October 4, 2022, 10:23 pm

ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে বগুড়া পলিটেকনিকের শিক্ষক বদলি

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানির করার অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় বগুড়া পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের এক শিক্ষককে বদলি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ থেকে এই আদেশ দেয়া হয়। আদেশ পত্রে স্বাক্ষর করেন উপসচিব রহিমা আক্তার।

অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম হাফিজুর রহমান। তিনি বগুড়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের পাওয়ার বিভাগের চিফ ইনস্ট্রাক্টর।

বদলির আদেশে হাফিজুর রহমানকে আগামি ৫ জুন তারিখের মধ্যে পটুয়াখালী পলিটেকনিক্যাল ইন্সটিটিউটে যোগদান নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ৫ জুন বিকেলের মধ্যে যোগদান না করলে তাকে বগুড়া পলিটেকনিক থেকে তাৎক্ষনিক অবমুক্ত ঘোষণা করা হবে।

বদলির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বগুড়া পলিটেকনিকের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. আবু সাইম জাহান।

তিনি জানান, সম্প্রতি পাওয়ার বিভাগের এক ছাত্রী হাফিজুরের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানীর অভিযোগ করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠান তদন্ত করে প্রাথমিক সত্যতা পায়। সেই প্রতিবেদন কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগে পাঠানো হলে, তাকে বদলির নির্দেশ দেয়া হয়।

সম্প্রতি পাওয়ার বিভাগের এক শিক্ষার্থী চিফ ইন্সট্রাক্টর হাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির করার লিখিত অভিযোগ করেন। এতে ওই শিক্ষার্থী উল্লেখ করেন, ক্লাসে তার হিজাব খুলে মুখ দেখাতে বাধ্য করেন। এ ছাড়া ক্লাসে পর্ন ভিডিও দেখার গল্প তুলতেন।

শিক্ষার্থীর অভিযোগ, তৃতীয় সেমিস্টার পরীক্ষায় একটি বিষয়ে তাকে রেফার্ড করেন হাফিজুর রহমান। রেফার্ড বিষয়ের জন্য ১৫০০ টাকা নেন। এরপর আবার চতুর্থ সেমিস্টারে ফেল করার হুমকি দেন ওই শিক্ষক। পরে শিক্ষকের কাছে গেলে আধাঘণ্টার জন্য বাসায় আসতে বলেন ওই ছাত্রীকে।

এসব বিষয় নিয়ে বৃহস্পতিবার সকালে শিক্ষার্থীরা শিক্ষক হাফিজুরের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন করেন।

বদলির বিষয়টি স্বীকার করেছেন চিফ ইন্সট্রাক্টর হাফিজুর রহমান। তিনি বলেন, পটুয়াখালী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে বদলির আদেশ হয়েছে।

বদলির কারণ সম্পর্কে তিনি বলেন, আমরা শিক্ষক মানুষ, এখন কে কি করল, কোথায় কি করল? আমরা কিছু জানি না, বুঝিও না। ছেলেদের ক্লাস নিই, চলি-ফিরি। এভাবেই চলতে থাকি।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD