February 9, 2023, 1:23 pm

ক্রেতা বিক্রেতায় মুখরিত বগুড়ার ঐতিহাসিক মহাস্থান কুরবানি হাট

অানিছুর রহমান মিটু:   আসন্ন কুরবানি ঈদকে সামনে রেখে ক্রেতা ও বিক্রেতায় মুখরিত বগুড়ার ঐতিহাসিক মহাস্থান কুরবানির হাট। সংকীর্ণ সময়ে হাট বারের শেষ বুধবার বগুড়ার ঐতিহাসিক মহাস্থান হাটে শেষ মুহূর্তে জমে উঠেছে কুরবানীর গরু-ছাগলের হাট।
মুসলিম উম্মাহর দ্বিতীয় বৃহত্তম প্রিয় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদ উল আযহা। সর্বোচ্চ ত্যাগ তিতীক্ষার এ উৎসবে মুসলিম উম্মাহ পরম করুণাময় মহান আল্লাহর নৈকট্য লাভের আশায় পশু কুরবানী করা হয়। বগুড়া জেলার বিভিন্ন হাটে কুরবানী পশু ক্রয় বিক্রয় করতে দেখা গেলেও মহাস্থান হাটের মত এতটা জমজমাট দেখা যায়নি। বুধবার মহাস্থানহাটের সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, অন্যান্য বারের তুলনায় গরু-ছাগলের এ পশুহাটটিতে উপচে পড়া ভিড়। গরু, ছাগলের সাথে ক্রেতা-বিক্রেতাদের ভিড়ে জমজমাট এ হাটে যেন পা ফেলা দুস্কর। বুধবার সকাল থেকেই দূর-দূরন্ত থেকে গরু-ছাগল নেয়ে বিক্রেতারা হাটে আসতে শুরু করে। দুপুর থেকেই বৃহৎ এ হাটটি ক্রেতা-বিক্রেতাদের পদচারণা ও বেচাকেনাতে মুখরিত হয়ে ওঠে। অবশ্য গরুর সংখ্যাই বেশি।
ইতিপূর্বে এ হাটে ক্রেতা-বিক্রেতাদের মধ্যে দর-কষাকষির চিত্র বেশি দেখা গেলেও শেষ হাটে তা দেখা যায়নি। নিজেদের মধ্যে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে পশু কেনাবেচার চেষ্টা করছেন ক্রেতা-বিক্রেতা। ক্রেতারা দেখে-শুনে পছন্দের গরুটির দরদাম করছেন। পছন্দ হলে ন্যায্য দামে কিনে খুশিমনে পশু নিয়ে বাড়ি ফিরছেন।
হাটের চারপাশ ঘুরে দেখা যায়, শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ছিলো লক্ষণীয়। নিরাপত্তা ব্যবস্থাও নিয়েছে হাট কর্তৃপক্ষ ও পুলিশ প্রশাসন। পুলিশের পক্ষ থেকে জাল বা নকল টাকা শনাক্ত করণ মেশিন স্থাপন করা হয়েছে। সাদা পোশাকে নজরদারি রেখেছেন তারা। ফলে সার্বিক ব্যবস্থাপনায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন ক্রেতা-বিক্রেতারা। আগামি শনিবারও পশু হাট হবে বলে হাট ইজারাদার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন। বগুড়ার সদরের লাহিড়ীপাড়া ইউনিয়ন এলাকা থেকে আসা গরু বিক্রেতা শুক্রর আলী জানান, কুরবানির শেষ হাট বুধবার তাই আশেপাশের কৃষকেরা তাদের পালনকৃত গরু মহাস্থানহাটে নিয়ে এসেছেন। বাজারে পর্যাপ্ত গরুর আমদানি হওয়ায় দাম অনেকটা কম। তার গরু ১ দেড় লাখ টাকা হাকান হলেও তিনি ২লাখ টাকায় বিক্রি করবেন বলে জানিয়েছেন।
এদিকে, ক্ষোভ প্রকাশ করে সদরের গাবতলীর কাগইল এলাকা থেকে আসা ক্রেতা ইউনুস আলী জানান- অন্যবারের তুলনায় এবার গরুর দাম বেশি। বাজারে সবে মাত্র এলাম দরদাম চলছে বাজেটের মধ্যে পছন্দের গরু দেখতেছি। শিবগঞ্জ উপজেলার আমতলী গ্রামের আবু জাফর বিশাল আকৃতির একটি ষাড় গরু হাটে নিয়ে এসেছেন। তিনি দাম চাইছেন ১০ লাখ টাকা। ৬লাখ টাকা পর্যন্ত দাম হাঁকিয়েছেন ক্রেতারা। আশানুরূপ দাম পেলে তিনি গরুটি বিক্রি করবেন বলে জানান।
এদিকে কুরবানির হাটের শেষ মুহূর্তে মহাস্থান গো-হাটি গরুর সংকুলান না হওয়ায় মহাস্থান হাইস্কুল ডাকবাংলো রোড ও মহাস্থান নেসকো বিদ্যুৎ অফিসের মূলফটক পর্যন্ত গরুর আমদানি দেখা যায়।
মহাস্থানে হাটে বিক্রি করতে আসা ৩টি গরু দুর্ঘটনায় কবলিত হয়। একটি মহাস্থান হাটের গোয়াস মার্কেটের সামনে পায়ের রগ ছিঁড়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। আরেকটি মহাস্থান হাট থেকে ছুটে দিয়ে আন্ডারপাস সেতুর উপর থেকে পড়ে গিয়ে আহত হয়। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় গরুটি জবাই করে কসাই ডাকা হয়। একই ভাবে হিটস্ট্রোকে প্রায় এক লক্ষাধিক টাকা মূল্যের একটি ষাড় অসুস্থ হয়ে পড়েন।
রাত ১২টা পর্যন্ত গরু ক্রয় বিক্রয় হবে বলে হাট ইজারাদার কমিটি জানিয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD