August 13, 2022, 3:25 pm

আমাকে আইন শেখাতে আসবেন না, বিএনপির হারুনকে আইনমন্ত্রী

যমুনা নিউজ বিডিঃ জাতীয় সংসদে ‘সুপ্রিম কোর্ট জাজেস বিল’র রিপোর্ট পেশের সময় বক্তব্য দিতে গিয়ে বিএনপি সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ আওয়ামী লীগ সরকারের ঘন ঘন আইন পাশের বিরোধিতা করে বলেন, সরকার নিজেদের সুবিধার জন্য প্রায়শ সংসদে বিল পাশ করে যাচ্ছে। কিন্তু যেসব আইন হচ্ছে তার বাস্তবায়ন হচ্ছে না। আইনের ব্যত্যয় ঘটছে। আইনের বৈষম্য ঘটছে।

মঙ্গলবার (৮ জুন) জাতীয় সংসদে ‘ সুপ্রিম কোর্ট জাজেস বিল’ উত্থাপনের আগে এটির তীব্র বিরোধিতা করেন হারুন।

তিনি বলেন, যারা নিজেরা খেয়ালখুশি মত আইন করেন, কিন্তু আইনের বাস্তবায়ন হয় না। কিছুদিন আগে আমরা দেখলাম, জাতীয় সংসদের সদস্য হাজী সেলিম দণ্ডিত হওয়া সত্ত্বেও চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে গেছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, তিনি আইন মেনেই গেছেন। অথচ সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিদেশে চিকিৎসার জন্য বার বার আবেদন করেও কোনও লাভ হয়নি। আদালত বলেছেন, এ ধরনের কোনও সুযোগ নেই। এখানে আইনের বৈষম্য করা হয়েছে।

এসময় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বিএনপির সংসদ সদস্যকে বার বার থামতে বলেন। স্পিকার তাকে বিলটির বিষয়ে কোনও বক্তব্য থাকলে তা নিয়ে আলোচনা করার জন্য বলেন। কিন্তু হারুন স্পিকারের কোনও কথা না মেনে নিজের মত কথা বলতে থাকেন। এসময় সংসদে হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। এর মধ্যেও হারুন তার বক্তব্য চালিয়ে যান।

তিনি বলেন, এ বিলে বিচারকদের সুযোগ-সুবিধা বাড়ানো হচ্ছে। তাতে আমার আপত্তি নেই। তবে বিচার ব্যবস্থাকে হরণ করা হচ্ছে। বিচার ব্যবস্থার ওপর সরকারি নিয়ন্ত্রণ আসছে- এমন অভিযোগ করেন তিনি। এসময় স্পিকার তাকে আবারও থামতে বলেন।

কিন্তু হারুন বলেন, আমরা দেখছি সরকারি দলের কর্মসূচি পুলিশের প্রহরায় বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। কিন্তু বিরোধী দলকে কোনও কর্মসূচি পালন করতে দেওয়া হচ্ছে না। এখানে আইনের শাসন বলে কিছু নেই। তাহলে এই আইন করে কী লাভ। সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যে ঘটনা ঘটেছে, একটি সভ্য রাষ্ট্রের এই ধরনের ঘটনা কীভাবে ঘটে। আমরা দেখেছি একজন ছাত্রীকে কীভাবে ছাত্র নামধারী গুণ্ডারা নির্যাতন করেছে। তার বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত কোনও ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। সরকার যে আইন করছেন, এই আইন কার জন্য করছেন?

প্রতি উত্তরে সংসদে দাঁড়িয়ে আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, বিরোধী দলীয় সংসদ সদস্য হারুনুর রশিদ যে কথা বললেন; তার কথা শুনে হাসব না কাঁদবো এটা আমি বুঝতে পারছি না। তার কারণ, তিনি যে জ্ঞান দিলেন তাতে আমি বুঝে উঠতে পারছি না- আমি আইন সম্পর্কে কিছু বুঝি কিনা? আইন সম্পর্কে বিএনপি আমলে যা হত, তাতে তার নিজেরই বোধোদয় হওয়া উচিৎ।

আনিসুল হক বলেন, আমি আপনার মাধ্যমে বলতে চাই; উনি যে বিচারের কথা বললেন.. আপনি কি ভুলে গেছেন ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের ঘটনার কথা? জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুসহ তার পরিবারের ১৭ জন সদস্যদের হত্যার পরে কি বিচার হয়েছিল? তাদের বিচার করা দরকার ছিল কিনা। উনারা এখন কী বলবেন আমি জানি না। হয়তোবা বলবেন, ইনডিমিনিটি অর্ডার করে বন্ধ করা হয়। বিচার পাওয়া বন্ধ করেছিলেন তারাই। আর এখন তাদের কাছ থেকে বিচার শিখতে হবে। এখন হয়তো তারা বলবেন, এটা খন্দকার মোশতাক করেছিলেন। তারা ক্ষমতায় ছিলেন ১৯৭৫ থেকে ১৯৮১ সাল পর্যন্ত। বার বার তারা (বিএনপি) ক্ষমতায় এসেছিলেন, কিন্তু ইনডিমিনিটি কিন্তু তোলেননি। আর এখন উনারা আইন শেখান। তার কাছ থেকে আমাকে আইন শিখতে হবে..?

আইনমন্ত্রী আরও বলেন, এখন বলতে পারি জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের বিচার হয়েছে। মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার হয়েছে। জেল হত্যার বিচার চলছে। আর সাহস করে বিচারপতিরা এই বিচার করায় আজ তাদের বেতন-ভাতা বৃদ্ধির আইন করা হচ্ছে। আর আপনারা আইন শেখাচ্ছেন। মাননীয় স্পিকার আমাকে বিএনপির কাছ থেকে আইন শিখতে হবে..?

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD