February 23, 2024, 3:25 am

স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহিকে জুতাপেটা করার হুমকি

যমুনা নিউজ বিডি: আসন্ন সংসদ নির্বাচনে রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহিকে ফেসবুক লাইভে এসে জুতাপেটা করার হুমকি দেওয়ার ঘটনায় থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। গত শনিবার রাত দেড়টার দিকে তানোর থানায় মাহিয়া মাহি নিজে উপস্থিত হয়ে ফেসবুকে ভিডিও পোস্টকারী মাহাবুর রহমান মাহামের নামে লিখিত অভিযোগ করেন।

অন্যদিকে এই ঘটনায় নির্বাচন অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান ও রাজশাহীর জেলা এবং দায়রা জজ আদালতের বিচারক হুমকিদাতাকে শোকজ করেছেন। বিচারক আবু সাঈদ রোববার এ শোকজ নোটিস জারি করেন। এতে হুমকিদাতা বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের রাজশাহী জেলার কথিত সাধারণ সম্পাদক পরিচয় দানকারী মাহাবুর রহমান মাহামকে ২৭ ডিসেম্বর আদালতে উপস্থিত হয়ে এর লিখিত জবাব দিতে বলা হয়েছে।

হুমকিদাতা মাহাবুর রহমান মাহাম নামের ওই তরুণের বাড়ি রাজশাহীর তানোর উপজেলার তালন্দ ইউনিয়নের কালনা পূর্বপাড়া গ্রামে। তার বাবার নাম মৃত ছদের আলী। তিনি তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুনের গাড়ি ভাঙচুর মামলার প্রধান আসামি। এ ছাড়া মাহাম এলাকায় বখাটে হিসেবে পরিচিত। তিনি বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের রাজশাহী জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে পরিচয় দিয়ে বেড়ান। তবে যোগাযোগ করা হলে মাহাম জানান, তিনি নৌকার একজন সমর্থক। বর্তমানে দলীয় কোনো পদ তার নেই।

গত শনিবার রাতে নিজের ফেসবুক আইডিতে লাইভে এসে চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহিকে জুতাপেটা করার হুমকি দেন। প্রচার শুরুর দিন থেকেই এ আসনের টানা তিনবারের সংসদ সদস্য ও এবার নির্বাচনের নৌকার প্রার্থী ওমর ফারুক চৌধুরীর কঠোর সমালোচনা করে বক্তব্য রাখছেন মাহিয়া মাহি। ফারুক চৌধুরীর বিভিন্ন বিতর্কিত কার্যক্রম সামনে এনে মাহি এবার তাকে ভোট না দেওয়ার জন্য ভোটারদের আহ্বান জানাচ্ছেন। আর এ কারণেই ফেসবুকে ভিডিও পোস্ট করে মাহিকে জুতা মারার হুমকি দেন মাহাম। এর পাশাপাশি মাহি নৌকার প্রার্থী ফারুক চৌধুরীর বাড়ির কাজের লোকের যোগ্য নন বলেও দাবি করেন মাহাম। যদিও কিছুক্ষণ পর তিনি সেই ভিডিও ফেসবুক আইডি থেকে ডিলিট করে দেন।

ভিডিওতে নায়িকা মাহি সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে মাহাম বলেন, ভিডিও ছাড়ার পর রাজশাহী থেকে কয়েকজন সাংবাদিক ফোন করেছিলেন। তারা নানা প্রশ্ন করেছেন আর সে কারণে ভিডিও ডিলিট করে দিয়েছি।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তানোর থানার ওসি আবদুর রহিম বলেন, হুমকির অভিযোগ অধর্তব্য অপরাধ। এ কারণে আদালতের অনুমতি সাপেক্ষে অভিযোগটি তদন্ত করে তার পর প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ আসনের নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও তানোরের ইউএনও মো. বিল্লাল হোসেন বলেন, ভিডিওটি তিনি দেখেছেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহিয়া মাহির সঙ্গে এই বিষয়ে কথা হয়েছে। তদন্ত করে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD