June 13, 2024, 5:50 pm

বগুড়া-ধুনট-সিরাজগঞ্জ সড়কে সেতুর পাটাতন দেবে ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ

কাজীপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি: উত্তরাঞ্চলসহ বগুড়া-সিরাজগঞ্জ বাইপাস সড়কের কাজীপুর উপজেলার সোনামুখী ইছামতি নদীর উপর প্রায় ১১ বছর আগে নির্মিত পিএসসি গার্ডার সেতুর পাটাতন দেবে গেছে। গত বৃহস্পতিবার রাতের কোন এক সময় অতিরিক্ত পণ্য বোঝাই পরিবহন চলাচলকালে সেতুটির পাটাতন দেবে ওই সড়ক দিয়ে সব ধরণের ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে চরম বিপাকে পড়েছেন পরিবহনের যাত্রী ও ব্যবসায়ীরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বগুড়ার ধুনট ও সিরাজগঞ্জের কাজীপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকায় সোনামুখী ইছামতি নদীর উপর সেতুটির অবস্থান। সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) অর্থায়নে ২০১২-২০১৩ অর্থবছরে ১২৪ মিটার দীর্ঘ পিএসসি গার্ডার সেতুটি নির্মাণ করা হয়। এই সেতুর মাঝামাঝি স্থানে প্রায় ৫০ মিটার অংশ দেবে গিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত সেতুর উপর দিয়ে ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকলেও হালকা যানবাহনগুলো জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। সেতুর উপর দিয়ে যানবাহন যাতায়াতের সময় থরথর করে কাঁপতে থাকে। এ অবস্থায় যে কোনো সময় সেতুটি ভেঙে বড় ধরণের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন পরিবহন চালকরা। সেতুটি ভেঙে পড়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হলে চরম ক্ষতির মুখে পড়বেন স্থানীয়রা।

এই সড়কে যাতায়াত করা পরিবহনের কয়েক জন চালক জানান, এই সেতুর উপর দিয়ে উত্তরাঞ্চলসহ বগুড়ার শেরপুর-ধুনট ভায়া কাজীপুর উপজেলা হয়ে ঢাকার সাথে যোগাযোগ করা যায়। এই সেতু দিয়ে প্রতিদিন বাস, ট্রাকসহ শতশত ভারী যানবাহন চলাচল করে। বিভিন্ন ধরণের যানবাহনে উত্তরাঞ্চল থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু হয়ে ঢাকায় যাতায়াত করতে সময় অনেক কম লাগে। এ কারণে বাইপাস এই সড়কের সেতুটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্ত বর্তমানে সেতুর উপর দিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হওয়ায় পরিবহনের যাত্রী ও ব্যবসায়ীরা চরম বিপাকে পড়েছেন।

উপজেলার সোনামুখী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান শাহজাহান আলী খান বলেন, উত্তরাঞ্চলসহ এই এলাকার উৎপাদিত পণ্যগুলো আনা নেওয়ার জন্য বাইপাস সড়কের সেতুটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিকল্প সহজ কোনো সড়ক না থাকায় ঝুঁকি নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত সেতুর উপর দিয়ে চলাচল করছে কিছু কিছু যানবাহন। দ্রুতসময়ের মধ্যে সেতুটি সংস্কার করার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি। কর্তৃপক্ষও আশ্বাস দিয়েছেন ।

সিরাজগঞ্জের কাজীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সুখময় সরকার বলেন, বৃহস্পতিবার সকালের দিকে সেতুর পাটাতন দেবে যাওয়ার বিষয়টি আমি জেনেছি। তাৎক্ষনিকভাবে এ বিষয়টি সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসকসহ সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তাদের জানিয়েছি। আশা করছি দ্রুতসময়ের মধ্যে সেতুটি সংস্কারের ব্যবস্থা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD