September 30, 2022, 6:43 am

News Headline :
বগুড়া জেলা ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত বগুড়ায় প্রকাশ্যে আ’লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা বুরকিনা ফাসোয় জঙ্গি হামলায় নিহত ১২ সারিয়াকান্দিতে চেয়ারম্যান প্রার্থী মকবুল হোসেনের পক্ষে মতবিনিময় দুপচাঁচিয়া পৌরসভায় ফ্রি জন্ম নিবন্ধন ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন বৃহস্পতিবার মাঠে গড়াচ্ছে জাতীয় যুব হকির ২৭তম আসর মান্নান আকন্দর নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ১৫নং ওয়ার্ডের সাধারণ জনগণের মানববন্ধন সহ-শিক্ষা কার্যক্রম একটি প্রতিষ্ঠানকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যায়-এসপি সুদীপ নন্দীগ্রামে যাত্রী ছাউনিতে পড়ে থাকা সাবেক প্রধান শিক্ষকের পাশে ইউএনও শিফা নুসরাত লড়াই করেও বাংলাদেশের কাছে হোয়াইটওয়াশ আমিরাত

বগুড়ার ভাটকান্দীতে টাইলস মিস্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়া পৌর এলাকার ভাটকান্দিতে  ওয়াজেদ হোসেন ঝন্টু নামে এক টাইলসমিস্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। শনিবার সকালে ভাটকান্দি ব্রিজের পূর্বপাশ এলাকায় হোটেলে খেতে গিয়ে এ ঘটনা ঘটে  বলে জানিয়েছে পুলিশ। ওয়াজেদ হোসেন ঝন্টু (৩০) ভাটকান্দি পশ্চিম পাড়া এলাকার আফজাল হোসেনের ছেলে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সকালে ঝন্টুসহ তিনজন এলাকার হোটেলে যান খিচুড়ি খেতে। এ দুজনের একজনের নাম মমিন। তারা তিনজনেই এক সাথে টাইলসের কাজ করেন। খিচুড়ি খেতে গিয়ে নিজেদের মধ্যে কোনো বিষয়ে দ্বন্দ্বে ঝন্টুর ওপর হামলা করে। ধারালো কিছু দিয়ে কুপিয়ে ঝণ্টু হত্যা করা হয়।

হোটেলের মালিক মানিক মিয়া বলেন, ওরা তিন জন এসে খিচুড়ি খেতে বসে। কিছুক্ষণ পর পানি চায় তারা। পানি দেয়ার পরপরই ওরা হামলা চালায় ঝন্টুর ওপর। তখন ভয়ে আমরা সরে আসি।

ঝন্টুর বাবা আফজাল হোসেন বলেন, সকালে মমিন এসে আমার ছেলেকে ডেকে নিয়ে যায়। ওরা একসাথে টাইলসের কাজও করে। হোটেলে বসে ছেলের সাথে ওরা খেতে বসে। আমি তখন ওই এলাকায় ছিলাম। এর কিছু পরে ঝন্টুকে দা দিয়ে কোপাতে শুরু করে। এ সময় আরও কয়েক জন হোটেলে ঢুকে আমার ছেলেকে কুপিয়ে চলে যায়। কেউ এগিয়ে আসেনি। পরে হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার জানায় ঝন্টু মারা গেছে।

আফজাল হোসেন আরও বলেন, প্রায় ৯ বছর আগে আমার ভাই শাহীনকে বালু ব্যবসায় নিয়ে হত্যা করা হয়। ওই ঘটনার মূল হোতা মিঠু, রহমান, মাসুদ এরাই আমার ছেলের হত্যায় জড়িত।

হত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নারুলী ফাঁড়ির ইনচার্জ (পরিদর্শক) মাহমুদ হাসান। তিনি জানান, সকালে হোটেলে ঝন্টুর সাথে তারাও নাসতা খাওয়ার জন্য হোটেলে এসেছিল। এরপর খাওয়া চলা অবস্থায় তাকে কুপিয়ে হামলা করা হয়। পরে স্বজনেরা ঝন্টুকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে।

পরে স্থানীয়রা আয়নাল নামে এক যুবককে মারধর করে পুলিশে সোপর্দ করে। তাকে শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে।

মাহমুদ হাসান বলেন, হত্যাকাণ্ডে পূর্ব শত্রুতার জের রয়েছে। এরা সবাই একসাথে কাজ করে। আবার এদের মধ্যে বালু ব্যবসাসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ঝামেলাও আছে। মাছ ধরার কথা উঠলেও কোন জলাশয় থেকে আর কবে মাছ ধরেছে এমন ঘটনা জানা যায়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD