May 27, 2024, 9:29 am

গোপালগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে ৫ শ্রমিকের মৃত্যু

যমুনা নিউজ বিডিঃ গোপালগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে ৫ নির্মাণ শ্রমিক নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে কাশিয়ানী উপজেলার মহেশপুর ইউনিয়নের কাঠামদরবোস্ত কাগদী রেল ক্রসিংয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরপরই গোপালগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস, কাশিয়ানী থানা পুলিশ ও স্থানীয়রা উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করে। রাতেই নিহতদের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেহেদী হাসান ও গোপালগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের সহকারি পরিচালক আবুল কালাম আজাদ ৫ জনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন, কাশিয়ানী উপজেলার পারুলিয়া ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামের বিজয় মৃধার ছেলে সুজন মৃধা (৩৫), নিরোদ দাসের ছেলে পরিতোষ দাস (৩০), রবিন বিশ্বাসের ছেলে অমৃত বিশ্বাস (৩৫), মহের বিশ্বাসের ছেলে হিরামন বিশ্বাস (৪৫) ও পারুলিয়া গ্রামের মালেক সিকদারে ছেলে রাজ্জাক সিকদার (৪০)। এঘটনায় আহত একজন কাশিয়ারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে।

গোপালগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের সহকারি পরিচালক আবুল কালাম আজাদ জানান, রাতে ফরিদপুরের বোয়ালমারী এলাকার একটি নির্মাণাধীন ভবনের ঢালাইয়ের কাজ করে কংক্রিট মিক্সার মেশিন নিয়ে ১৪ জন শ্রমিক গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার পারুলিয়ায় ফিরছিলেন। এসময় মিক্সার মেশিন বহনকৃত গাড়ীটি কাঠামদরবোস্ত কাগদী রেল ক্রসিং পার হবার সময় রেল লাইনের উপর উঠলে রাজশাহী থেকে ছেড়ে আসা গোপালগঞ্জের গোবরাগামী টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেস ট্রেনটি ধাক্কা দেয়।

এতে মিক্সার মেশিনটি খাদে পড়ে দুমড়ে মুচড়ে যায় ও ৫ শ্রমিক সুজন মৃধা, পরিতোষ দাস, অমৃত বিশ্বাস, হিরামন বিশ্বাস ও রাজ্জাক সিকদার ট্রেনে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলে নিহত হন ও আহত হন আরও একজন। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে হতাহতদের উদ্ধার করে। আহত একজনকে কাশিয়ানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে নিহত ৫ জনের মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়াই রাতে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। নিহতদের পরিবার প্রতি ১০ হাজার টাকা করে নগদ সহায়তা দিয়েছে জেলা প্রশাসন। ভোরে নিহতদের দাফন ও শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী কাঠামদরবস্ত গ্রামের হাসান খান বলেন, ঘটনার সময় তি‌নি রেল লাই‌নের পাশে দাঁড়িয়ে মোবাইল ফোন চালা‌চ্ছিলেন। তখন তিনি প্রথম ট্রেনের আলো দেখে তাদের কলাপাতা দিয়ে নেমে যাওয়ার জন্য সং‌কেত দেন। তখন নসিমনের পিছন থেকে ৫ জন নেমে যান। তবে সামনে কয়জন বিষয়টি বুঝতে না পারায় ট্রেনে কাটা পড়ে মারা যান।

কা‌শিয়ানীর উপজেলা নির্বাহী কর্কমর্তা মো. মেহেদী হাসান জানান, ন‌সিমনে ১৪ জন শ্রমিক ছিলেন।‌ নিহতদের দাফন কাফনের জন্য পরিবার প্রতি ১০ হাজার টাকা করে নগদ সহায়তা দেয়া হয়েছে।

গোপালগঞ্জে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নিহাদ আদনান তাইয়ান জানান, নসিমনের ৫ যাত্রী ঘটনাস্থলে নিহত হন। দুর্ঘটনার বিষয়টি তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

রাজবাড়ী রেলওয়ে থানা পুলিশের ওসি মো. মাসুদ আলম জানান, গোপালগঞ্জের বেশির ভাগ রেললাইন রেল কর্তৃপক্ষের অনুমোদিত নয়। রেল ক্রসিংগুলোতে গেট ও গেটম্যান দেয়া উচিত ছিল। এ বিষয়টি আমরা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানাবো।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD