July 3, 2022, 11:48 pm

আজ থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-ঢাকা রুটে ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেনের যাত্রা শুরু

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি: ১৩জুন সোমবার থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-ঢাকা রুটে যাত্রা শুরু হচ্ছে সূলভ মূল্যে আম, কাঁচামাল ও পার্শ্বেলবাহী (রেলওয়ে আইনে পার্শ্বেল হিসেবে গণ্য) বিশেষ ট্রেন সার্ভিস ম্যাংগো স্পেশাল। টানা তৃতীয় মৌসুমের মত এই ট্রেন সার্ভিস উদ্বোধনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের কর্মকর্তারা। আজ বিকেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার রহনপুর রেলওয়ে স্টেশনে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের জিএম অসীম কুমার তালুকদার ট্রেন চলাচল উদ্বোধন করবেন। প্রতিটি ৪৩ টনের ৫ ওয়াগনের ট্রেনটি রহনপুর-চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর-রাজশাহী-ঢাকা রুটে নিয়মিত যাতায়াত করবে।

ট্রেন সার্ভিস চালুর বিষয়টিকে আমচাষি, ব্যবসায়ী, বাগানী, উদ্যোক্তাসহ প্রায় সকলেই স্বাগত জানালেও মৌসুম শুরুর তিন সপ্তাহ পর এই সার্ভিস চালু নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন অনকেই। তাদের বক্তব্য, চলতি মৌসুমে এ অঞ্চলে আম উৎপাদন ইদানিংকালের মধ্যে সবচেয়ে কম। বিশেষ করে আমের রাজ্য চাঁপাইনববাবগঞ্জে রেকর্ড পরিমাণ ফলন বিপর্যয়ের মুখে ট্রেন সার্ভিসটি এত দেরিতে শুরু করায় আশানুরুপ সেবা দিতে ব্যর্থ হতে পারে। ট্রেনটি মধ্য মে’র পরপরই চালু করলে পূর্ণ সুবিধে পাওয়া যাবে বলেই মনে করেন তারা।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ কৃষি এসোসিয়েশন সাধারণ সম্পাদক মুনজের আলম বলেন, ট্রেনটি আরও অন্তত ১৫ দিন আগেই চালু করা দরকার ছিল। সারাবছরই কাঁচামাল পরিবহনের জন্য এমন দূরপাল্লার ট্রেন চালু থাকা দরকার। আপাতত করোনায় বন্ধ চাঁপাইনবাবগঞ্জের থেকে খুলনা, ঢাকাসহ বিভিন্ন গন্তব্যে চলাচলকারী সকল ট্রেন পুনরায় চালু ও চালু সকল ট্রেনে কাঁচামালের ওয়াগন দেয়া যেতে পারে। ট্রেনে আম পরিবহন সবদিক থেকেই সুবিধাজনক বলেও মনে করেন তিনি। চাঁপাইনবাবগঞ্জ নাগরিক কমিটির সদস্য সচিব মনিরুজ্জামান মনির জানান, এ ব্যাপারে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হবে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ স্টেশনের কুলি সর্দার গফুর আলী ট্রেন চালুতে খুশি হলেও কিছুটা দেরি হওয়ায় হতাশা ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, এই ট্রেনে মূলত ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা ও অনলাইনে অর্ডার নিয়ে আম সরবরাহকারীরা আম পরিবহন করেন। এবার আম কম থাকায় বেশিরভাগ পাঠানোর মত আমই সড়ক পথে চলে গেছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জের জেলা প্রশাসক একেএম গালিভ খান বলেন, দেরি হলেও ট্রেনটি চালু সংশ্লিষ্টদের উপকারে আসবে। মানুষ স্বল্পমূল্যে আম পাঠাতে পারবে। তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, মানুষ এ সুবিধে গ্রহণ করবে। তিনি ট্রেনটি চালু হওয়াতে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ স্টেশন সহকারী মাস্টার মো. ওবাইদুল্লাহ বলেন, ট্রেনটি ব্যবসা সফল করতে সকল প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। সংশ্লিষ্ট সকল পক্ষের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে। জেলা সদরে মাইকিং করা হয়েছে। তিনি বলেন, ট্রেনে মালের ভাড়া এখন পর্যন্ত গত দু’বছরের ন্যায় অপরিবর্তিত রয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জের সকল স্টেশন থেকে ঢাকা পর্যন্ত প্রতি কেজি মালের ভাড়া পড়বে ১ টাকা ৩১ পয়সা। এছাড়া কুলি চার্জ দিতে হবে প্রতি ক্যারেট (মাল বা আমের ২০ কেজির ঝুড়ি) ১০ টাকা। যা রাজশাহী থেকে হবে প্রতি কেজি ১ টাকা ১৮ পয়সা। রেলওয়ের নিজস্ব কুলিরা মালামাল ট্রেনে ওঠানামার কাজ করবে।

তিনি বলেন, করোনাকালে ২০২০ সালের ৫ জুন প্রথম ও ২০২১ সালের ২৭ মে ট্রেনটি দ্বিতীয়বারের মত চালু করা হয়েছিল। ট্রেনটি ২০২০ সালের ২১ জুলাই পর্যন্ত চলাচল করে আম পরিবহন করে ১ লাখ ৬৭ হাজার ৮২ কেজি। রাজস্ব আয় হয় ২ লাখ ১১ হাজার ৪৫৮ টাকা। অপরদিকে ২০২১ সালের ১৬ জুলাই পর্যন্ত চলাচল করে আম পরিবহন করে ২ লাখ ৩৬ হাজার ৯৭৩ টাকা। রাজস্ব আয় হয় ১৩ লাখ ৪৪ হাজার ৯২০ টাকা। ট্রেনটি যেসব স্টেশনে মাল পরিবহন করবে তার মধ্যে রয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুর, নাচোল, নেজামপুর, আমনুরা জংশন, আমনুরা বাইপাস, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর, কাঁকনহাট, রাজশাহী, সরদহ রোড, আড়ানী, আব্দুলপুর, বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম, জয়দেবপুর, ঢাকা বিমানবন্দর, তেজগাঁও ও কমলাপুর। ট্রেনটি রহনপুর ছাড়বে বিকেল ৪টা, চাঁপাাইনবাবগঞ্জ ছাড়বে সন্ধ্যা ৬টা ও রাজশাহী ছাড়বে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়। ট্রেনটি রাত দেড়টায় ঢাকা পৌঁছুবে।

রহনপুর স্টেশন মাস্টার মীর্জা কামরুল হক বলেন, ট্রেন উদ্বোধনের সকল প্রস্তুতি চূড়ান্ত। সপ্তাহের প্রতিদিনই ট্রেনটি চলাচল করবে। ট্রেনটি চালুর সিদ্ধান্ত গত সপ্তাহে রেলওয়ে কন্ট্রোল রুম থেকে তাদের নিশ্চিত করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন


© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD