September 27, 2022, 5:56 am

বগুড়ার আদমদীঘিতে কালবৈশাখী ঝড়ে লণ্ডভণ্ড এক গ্রামের অর্ধশতাধিক বাড়ি

আদমদীঘি উপজেলা প্রতিনিধিঃ বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার একটি গ্রাম পুরো লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে কালবৈশাখী ঝড়ে। অসংখ্য বাড়িঘর বিধ্বস্তের পাশাপাশি গাছপালা ও বৈদ্যুতিক তারের খুঁটি উপড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

উপজেলার সান্তাহার ইউনিয়নের পশ্চিম ছাতনী গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। ঝড়ের পর শুক্রবার সকালে এক যুবক ধান নিয়ে যাওয়ার সময় পরে থাকা বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে বিদ্যুতায়িত হয়ে গুরুত্বর আহত হন। ঝড়ে গৃহহারা মানুষজন বর্তমানে খোলা আকাশের নিচে দিন কাটাচ্ছেন।

জানা গেছে, উপজেলার পশ্চিম ছাতনী গ্রামে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে কালবৈশাখী ঝড়ে অর্ধশতাধিক বাড়িঘর তছনছ হয়ে গেছে।ওই গ্রামের মন্ডলপাড়ার ইটভাটা শ্রমিক জহুরুল ইসলামের ৪ টি ঘরের টিনের ছাউনি উড়ে গেছে, বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন এবং আবসাবপত্র ভেঙে প্রায় আড়াইলাখ টাকার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তিনি। একই মহল্লার খলিলুর রহমান, আলী আজগর, নজরুল ইসলামও প্রায় সমপরিমান ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছেন। এছাড়া মৃধাপাড়ার বিধবা নুরজাহানের তিনটি ঘরের টিনের ছাউনি উড়ে প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে। একই ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছেন বীরমুক্তিযোদ্ধা ইদ্রিস আলীও। তারা এখন খোলা আকাশের নিচে দিন কাটাচ্ছেন।

উপজেলার সান্তাহার ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য সমাজ খান জানান, রাতে হঠাৎ ঝড়-বৃষ্টি শুরু হয়। ঝড়ের তাণ্ডবে প্রায় ৫০টি ঘর ভেঙে যায়, উড়ে যায় বেশকিছু ঘরের চাল। গৃহহীন হয়ে পড়েছেন ক্ষতিগ্রস্থরা। তাদের দ্রুত সরকারি সহায়তা দরকার।

উপজেলার সান্তাহার ইউপি চেয়ারম্যান নাহিদ সুলতানা তৃপ্তি জানান, ঝড়ের তাণ্ডবে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। শুক্রবার সকালে খবর পেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত গ্রামের মহল্লায় ছুটে যাই। সেখানে পৌঁছানোর পর ঝড়ে পরে থাকা বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে আহত এক যুবককে আমি নিজেই উদ্ধার করে দ্রুত নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তি করাই।

তিনি আরও জানান, ঝড়ে অর্ধশতাধিক বাড়িঘরের ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতির পরিমাণ বুঝে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার ( ইউএনও) সঙ্গে আলোচনা করে সহায়তার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD