September 30, 2022, 11:16 pm

কাভার্ডভ্যান চাপায় দুই ভাইসহ চারজন নিহত

যমুনা নিউজ বিডিঃ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সোনাপাহাড় এলাকায় কাভার্ড ভ্যানচাপায় ঘটনাস্থলে দুই ভাইসহ চারজন নিহত হয়েছেন। বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টার দিকে কাভার্ড ভ্যানচাপায় ঘটনাস্থলে প্রাণ হারান চারজন। বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টার দিকে চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার সদর ইউনিয়নের গড়িয়াইশ গ্রামে জানাজা শেষে তাদের দাফন করা হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পেট্রোল পাম্পের পশ্চিম পাশে দাঁড়ানো একটি ট্রেইলরকে প্রথমে ধাক্কা দেয় জোনাকি পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস। এ নিয়ে ট্রেইলর ও বাস চালকের মধ্যে তর্কাতর্কি শুরু হয়। সে সময় সেখানে স্থানীয় লোকজন জড়ো হয়। ঘটনার কথা শুনে পুলিশও আসে। এসময় দ্রুতগতিতে আসা ঢাকামুখী একটি কাভার্ড ভ্যান তাদের চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুই ভাইসহ চারজন প্রাণ হারান। আহত হয়েছেন পুলিশ সদস্য ও সিএনজি চালকসহ ১০ জন।

নিহতরা হলেন- মীরসরাই উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের রায়পুর গ্রামের মো. হারুনের ছেলে মেহেদী হাসান (২২), মীরসরাই সদর ইউনিয়নের গড়িয়াইশ গ্রামের শামসুদ্দীনের ছেলে সুমন (২৮) ও শেখ ফরিদ (৩০) এবং পূর্ব রায়পুর এলাকার আবুল কাশেম (৩৪)। সুমন ও শেখ ফরিদ দুইজন সহোদর ভাই।

আহতরা হলেন- জোরারগঞ্জ হাইওয়ে থানা পুলিশের কনস্টেবল মো. মোস্তফা (৪৫), আব্দুল আউয়াল (৫০) রফিক (২৫), আব্দুল আউয়াল (৫০), শেখ আহম্মদ (৪৫)। আহতরা চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

অন্যদিকে একই সঙ্গে দুই ছেলেকে হারিয়ে কান্নাজড়িত কণ্ঠে বাবা বলেন, এভাবে দুই ছেলে চলে যাবে কখনও চিন্তাও করতে পারিনি। আমি এখন কাকে নিয়ে বাঁচব। ছোট ছোট নাতি-নাতনিদের কি হবে?

এলাকার বাসিন্দা নুরুল মোস্তফা বলেন, সুমন-ফরিদ দুই ভাইকে একসঙ্গে খৎনা করানো হয়। বিয়েও হয় একসঙ্গে। আবার একসঙ্গে চলাচল করত। এলাকার কারও সঙ্গে তাদের দুই কথা হয়নি কখনও। সড়ক দুর্ঘটনায় মারাও গেল একসঙ্গে। বিষয়টি মানতেও কষ্ট হচ্ছে। নিহত শেখ ফরিদের রাহিম (৪) ও তাসফিয়া নামের দুটি সন্তান রয়েছে। আর নিহত সুমনের নিশাদ (৭) নামের ছেলে ও মারিয়া (৪) নামের মেয়ে রয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD