June 13, 2024, 5:57 pm

গাজায় ধ্বংসস্তূপের ভেতর মাকে খুঁজছে দুই বোন

যমুনা নিউজ বিডি: গাজার দক্ষিণাঞ্চলের খান ইউনিসে হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। রোববার (২ জুন) রাতে গাজার দক্ষিণাঞ্চলের খান ইউনিসে এই হামলা চালানো হয়। হামলার পরই সামার আল-ব্রেইম ও সাহার আল-ব্রেইম এই দুই বোন বুঝতে পারলেন, তাদের মা নিখোঁজ। দ্রুত দুই বোন ছুটে গেলেন হামলাস্থলে।

সেখানে গিয়ে কান্নাভেজা চোখে মায়ের নাম ধরে ডাকতে থাকলেন। আহাজারি করতে করতে পাগলের মতো ধ্বংসস্তূপ সরাতে লাগলেন তারা। কিন্তু মায়ের খোঁজ মেলেনি। খবর রয়টার্স।

ধ্বংসস্তূপে নির্বাক বসে থাকা সামার বললেন, মনে হচ্ছে, একটা দুঃস্বপ্নের ভেতরে আছি, যেন আমরা স্বপ্নে আছি। এটা একটা স্বপ্ন। আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করছি, যেন স্বপ্ন থেকে জাগরণে ফিরতে পারি এবং জানতে পারি, এটা শুধু স্বপ্নই ছিল। এটা সত্য নয়। তার মতো গাজার অন্যরা কেন এর মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন, সেই প্রশ্ন করলেন। বললেন, কী এমন করেছি যে এটা আমাদের প্রাপ্য ছিল?

রোববার (২ জুন) রাতে গাজার দক্ষিণাঞ্চলের খান ইউনিসে এই হামলা চালায় ইসরায়েল। সামার আল-ব্রেইম বলেন, শিশুরা তখন ঘুমাচ্ছিল। কিন্তু হামলায় নিষ্পাপ শিশুদের দেহ ছিন্নভিন্ন হয়ে গেছে।

সামারের বোন সাহার আল-ব্রেইম জানান, হামলায় তার চাচারা সপরিবার নিহত হয়েছেন। তারও মায়ের সঙ্গে থাকার কথা ছিল। কিন্তু সেখানে যাওয়ার জন্য কোনো গাড়ি না পাওয়ায় তার যাওয়া হয়নি।

মা আমিরা আল-ব্রেইমের খোঁজে ধসে পড়া কংক্রিট সরাতে সরাতে সাহার আল-ব্রেইম বলেন, আমার মা এখানে ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়ে গেছে। গাজার আর কোনো এলাকায় থাকা নিরাপদ নয়।

মায়ের নাম ধরে আহাজারি করতে করতেই সাহার বলেন, আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি যেন এই যুদ্ধ বন্ধ হয়। আমরা অনেক কিছু হারিয়েছি। সব প্রিয়জন হারিয়েছি। আমাদের আর হারানোর কিছু নেই।

ভেজা চোখে সামার বলেন, তারা (ইসরায়েল) আমাদের নিশ্চিহ্ন করে দিতে চায়। তারা যতই হত্যা-ধ্বংসযজ্ঞ চালাক ও যত কষ্ট দিক না কেন আল্লাহ যদি চান, তাহলে শেষ পর্যন্ত আমরাই বিজয়ী হব।

গাজার স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের দেওয়া তথ্যানুযায়ী, গত প্রায় আট মাসে ইসরায়েলের নির্বিচার হামলায় গাজায় ৩৬ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। হাজারো মানুষ চাপা পড়েছেন ধ্বংসস্তূপে। এদের অধিকাংশ নারী ও শিশু।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD