June 18, 2024, 11:58 pm

যে ৪ ধরনের পশু কোরবানি করা বৈধ নয়

যমুনা নিউজ বিডি: কোরবানি করার জন্য সুস্থ ও ত্রুটিমুক্ত পশু নির্বাচন করা আবশ্যক। বড় ধরনের অসুস্থতা বা ত্রুটি আছে এমন পশু দিয়ে কোরবানি শুদ্ধ হয় না।

হাদিসে এসেছে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়সাল্লাম বলেছেন, أَرْبَعٌ لاَ تَجُوزُ فِي الأَضَاحِي الْعَوْرَاءُ بَيِّنٌ عَوَرُهَا وَالْمَرِيضَةُ بَيِّنٌ مَرَضُهَا وَالْعَرْجَاءُ بَيِّنٌ ظَلْعُهَا وَالْكَسِيرُ الَّتِي لاَ تَنْقَى

অর্থ: ‘৪ ধরনের পশু কোরবানি করা বৈধ নয়, (১) যে পশু একচক্ষুহীন বা কানা এবং সেটির কানা হওয়াটা স্পষ্ট (২) স্পষ্ট অসুস্থ বা রোগগ্রস্থ পশু (৩) বাহ্যত দেখা যায় এমন ল্যাংড়া পশু এবং (৪) হাঁড় বেরিয়ে গেছে এমন দুর্বল পশু’। (সুনানে আবু দাউদ: ২৭৯৩)

উক্ত হাদিসের আলোকে ওলামায়ে কেরাম বলেন, যে পশুর শিঙ গোড়া থেকে ভেঙে গেছে এবং সে কারণে মস্তিস্কও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, ঐ পশু দিয়ে কোরবানি শুদ্ধ হবে না। তবে শিং ভাঙ্গার কারণে মস্তিষ্কে যদি আঘাত না পৌঁছে, তাহলে ঐ পশু দিয়ে কোরবানি জায়েজ। যে পশুর অর্ধেক শিং বা কিছু শিং ফেটে বা ভেঙ্গে গেছে বা শিং একেবারে উঠেইনি, সে পশু দিয়ে কোরবানি করা জায়েজ।

এ ছাড়া নিজে হেঁটে জবাইয়ের জায়গায় যেতে পারে না এমন শুকনো দুর্বল পশু দিয়ে কোরবানি শুদ্ধ হয় না। দাঁত পড়ে যাওয়ার কারণে ঘাস চিবিয়ে খেতে পারে না এমন পশু দিয়ে কোরবানি শুদ্ধ হয় না। যে পশুর লেজ বা কোনো কান অর্ধেক বা তারও বেশি কাটা সে পশু দিয়েও কোরবানি শুদ্ধ হয় না।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD