February 27, 2024, 12:33 am

ওষুধ ছাড়াই ভালো হবে থাইরয়েড

যমুনা নিউজ বিডি: ইদানীং থাইরয়েড রোগীর সংখ্যা বহুগুণ বেড়ে গেছে। আগে এই সমস্যা নিয়ে ততটা কথা বলতে শোনা যায়নি। থাইরয়েড আমাদের শরীরের ভালো কার্যকারিতার জন্য অপরিহার্য। তবে এটি যখন কম বা বেশি হরমোন উৎপন্ন করে তখন শরীরে নানা সমস্যা তৈরি হতে পারে। ওষুধ না খেয়ে ঘরোয়া উপায়েও থাইরয়েড নিয়ন্ত্রণে রাখা যায় বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

চিকিৎসকদের মতে, একটি হল হাইপো থাইরয়েড অন্যটি হাইপার। প্রথমটি হলে থাইরয়েড গ্রন্থি থেকে কম হরমোন ক্ষরিত হয়, আর পরেরটিতে হরমোন বেশি পরিমাণে ক্ষরিত হয়। তবে এই দুই থাইরয়েডই ক্ষতিকর বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

এটি যখন কম বা বেশি হরমোন উৎপন্ন করে তখন শরীরে নানা সমস্যা তৈরি হতে পারে, যেমন গলগন্ড, থাইরয়েডাইটিস, হাইপারথাইরয়েডিজম, হাইপোথাইরয়েডিজম, গ্রেভস ডিজিজ, থাইরয়েড ক্যানসার, থাইরয়েড নোডুলস এবং থাইরয়েড স্টর্মও হতে পারে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

ভারতীয় আয়ুর্বেদ চিকিৎসক ডা. ডিক্সা ভাবসার বলেন, ওষুধ ছাড়া এই ৫টি সুপারফুড খাদ্যতালিকায় রাখলে এই সমস্যা অনেকটাই কমে যেতে পারে। কোন ৫টি সুপারফুড তা জেনে নেয়া যাক:

১. আমলকি: ডা. ডিক্সার মতে, কমলালেবুর থেকে একটা আমলকির মধ্যে আট গুণ বেশি ভিটামিন সি থাকে। আবার ডালিমের চেয়ে প্রায় ১৭ গুণ বেশি ভিটামিন সি রয়েছে। এটি প্রতিদিন খাদ্য তালিকায় রাখলে থাইরয়েড নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব।

২. নারকেল: থাইরয়েড রোগীদের অন্যতম সেরা খাবার হতে পারে ডাব অথবা নারকেল। তিনি জানিয়েছেন, নারকেল ধীর এবং অলস বিপাকে উন্নত করতে সাহায্য করে। আসলে নারকেলের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে এমসিএফএ (মাঝারি-চেইন ফ্যাটি অ্যাসিড) এবং এমটিসি (মাঝারি-চেইন ট্রাইগ্লিসারাইড) রয়েছে যা বিপাককে উন্নত করতে সহায়তা করে। তাই থাইরয়েড রোগীরা নারকেল খেলে উপকার পাবেন।

৩. কুমড়ার বীজ: কুমড়ার বীজে জিঙ্ক রয়েছে। এই জিঙ্ক শরীরের অন্যান্য ভিটামিন এবং খনিজগুলিকে শোষণ করতে সাহায্য করে এবং শরীরে থাইরয়েড হরমোন সংশ্লেষণ করে ভারসাম্যকে উন্নত করতে সাহায্য করে।

৪. ব্রাজিল নাটস: সেলেনিয়াম একটি মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট এটি শরীর থাইরয়েড হরমোনের বিপাকের জন্য বিশেষভাবে প্রয়োজন। বিশেষজ্ঞদের মতে এটি টি৪ থেকে টি৩ রূপান্তরের জন্য প্রয়োজনীয়। ব্রাজিল বাদাম এই পুষ্টির সেরা প্রাকৃতিক উত্সগুলির মধ্যে একটি বলে মনে করা হয়। চিকিৎসকের মতে আপনি যদি দিনে তিনটি ব্রাজিল বাদাম খান তাহলে এটি শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং থাইরয়েড মিনারেলের জন্য স্বাস্থ্যকর।

৫. মুগ ডাল: মুগ ডালে প্রোটিন, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, জটিল কার্বোহাইড্রেট এবং প্রচুর ভিটামিন এবং খনিজ থাকে। বিশেষজ্ঞরা বলেন এই ডালে ফাইবারের পরিমাণও বেশি। আপনি যদি কোষ্ঠকাঠিন্যে ভোগেন তাহলে থাইরয়েড ভারসাম্যহীনতার একটি সাধারণ পার্শ্ব লক্ষণ বলা হবে। মুগ মটরশুঁটির মতোই আয়োডিন সরবরাহ করে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD