October 2, 2022, 7:19 am

থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান-ওচা বরখাস্ত

যমুনা নিউজ বিডিঃ থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান-ওচাকে বরখাস্ত করেছেন দেশটির সর্বোচ্চ আদালত। প্রায়ুথ চান-ওচার প্রধানমন্ত্রীর মেয়াদ শেষ হয়েছে এই মর্মে বিরোধীরা আদালতের দ্বারস্থ হন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। ২০১৪ সাল থেকে দেশটির প্রধানের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। থাইল্যান্ডের সংবিধানে প্রধানমন্ত্রীর মেয়াদ হলো আট বছর। সাবেক এ সেনাপ্রধান প্রথমে ২০১৪ সালের সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করেন এবং তারপর ২০১৯ সালে কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যে নির্বাচনের অধীনে পদ ধরে রাখেন।

সম্প্রতি কয়েক বছর ধরে বিরোধিতার সম্মুখীন হচ্ছেন তিনি এবং তার নিজের জোটের লোকেরা আস্থা হারাচ্ছেন। এ বছর এখন পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে একাধিক বার অনাস্থা ভোট হয়েছে। বিরোধীরা বলছেন, প্রায়ুথ চান-ওচার ক্ষমতার মেয়াদ শুরু হয় যখন তিনি জান্তা প্রধান ছিলেন। একজন সামরিক নেতা হিসেবে তিনি ২০১৪ সালে অভ্যুত্থান ঘটিয়ে ক্ষমতা দখল করেন। এরপর ২০১৪ সালের আগস্টে সামরিক সরকারের অধীনে নিজেকে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেন। সুতরাং তার মেয়াদ শেষ হচ্ছে চলতি সপ্তাহে। কিন্তু প্রায়ুথ চান-ওচার সমর্থকরা বলছেন, তার মেয়াদ মাত্র শুরু হয়েছে ২০১৭ সালে। ২০১৯ সালে নতুন সংবিধান অনুসারে তিনি পুনরায় প্রধানমন্ত্রী হন। এই শর্তাবলীর অধীনে, তিনি প্রযুক্তিগতভাবে ২০২৭ পর্যন্ত কাজ চালিয়ে যেতে পারেন। যদি তিনি আসন্ন সাধারণ নির্বাচনে জয়ী হন। বুধবার (২৪ আগস্ট) থাইল্যান্ডের সাংবিধানিক আদালত রাজনৈতিক বিরোধীদের কাছ থেকে মামলার শুনানিতে রাজি হন। এসময় বিচারকদের পাঁচজনের মধ্যে ৪ জনই তাকে বরখাস্ত করার ব্যাপারে সমর্থন দেন। তবে এ মামলার রায় কখন হবে তা এখনো স্পষ্ট নয়।

এদিকে, তার পদত্যাগের দাবিতে ব্যাংককে আন্দোলনে নেমেছে অনেকেই। এখন উপ-প্রধানমন্ত্রী, ৭৭ বছর বয়সী প্রবিত ওংসুওয়ান অন্তর্বর্তীকালীন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। থাইল্যান্ডে আগামী বছরের মে মাসের আগে ভোট হওয়ার কথা। যদিও উপ-প্রধানমন্ত্রী পূর্বে জানিয়েছিলেন যে এটি নভেম্বরের প্রথম দিকে হতে পারে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD