June 12, 2024, 2:10 pm

বগুড়ায় ব্যবসায়ীদের নিয়ে জেলা টাস্কফোর্স কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়ায় নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য যৌক্তিক পর্যায়ে রাখার লক্ষ্যে জেলা টাস্কফোর্স কমিটির সভায় ব্যবসায়ীরা বলেন, সারাদেশে চাল, তেল, আটা, চিনিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য নিয়ন্ত্রণ করে দেশের স্বণামধন্য প্রথম সারির ৪ থেকে ৫টি গ্রুপ অফ কোম্পানি। যারা ইচ্ছামতো মজুদসহ সকল কিছুর নিয়ন্ত্রণ করে যার প্রভাব এসে পরে তৃণমূল ব্যবসায়ীদের উপর।

তারা বলেন, শুধু ছোট ব্যবসায়ীদের না ধরে সেইসব প্রভাবশালী শীর্ষ ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট ভাঙ্গতে হবে। যেকোন সমস্যা গোঁড়া থেকে সমাধানের আহ্বান জানান তারা যা জেলা পর্যায়ে ছোট ব্যবসায়ী বা মিল মালিকদের চাপ দিয়ে লাভ নেই। তবে তারা নিজেদের অবস্থান থেকে শতভাগ সহযোগিতা ও আন্তরিক থাকার কথা বলেন।

সোমবার বিকেলে বগুড়া জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় জেলার চাউল কল মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ, আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীরা নেতারা এসব কথা বলেন। সভায় চেম্বার অব কমার্স এর প্রতিনিধি এনামুল হক দুলাল এবং রাজাবাজার আড়ৎদার ও সাধারণ ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক পরিমল প্রসাদ রাজ তাদের দেয়া বক্তব্যে বলেন, চাহিদার তুলনায় বাজারে চালের সরবরাহ বাড়ালে দ্রব্যমূল্য কখনোই বাড়বে না বা কেউ সিন্ডিকেট করতে পারবে না। এজন্যে চাল আমদানির অনুমতি একটি নির্দিষ্ট গোষ্ঠীর মাঝে সীমাবদ্ধ না রেখে তা সামর্থ্যবান সকল ব্যবসায়ীর জন্যে খুলে দিতে হবে যেমনটা চালু রয়েছে পেঁয়াজ, মরিচ এবং আরও কিছু পণ্যের তাহলে বাজার কখনোই অস্থিতিশীল হবেনা।

সভায় বগুড়ার বর্তমান বাজার পরিস্থিতির সার্বিক চিত্র ধরেন জেলার কৃষি বিপনন কর্মকর্তা সরোয়ার আলম। তিনি জানান, সদ্য হঠাৎ করেই ডিমের বাজার অস্থিতিশীল হয়েছিল কিন্তু প্রশাসনের কঠোর মনিটরিং এ তা নিয়ন্ত্রণের পথেই। তিনি জানান, বগুড়ায় প্রতিদিন ডিমের চাহিদা প্রায় ৬ লক্ষ যেখানে শুধু কাজী ফার্মস এর মাধ্যমেই প্রায় ৪ লক্ষ ডিমের চাহিদা পূরণ হয় বগুড়ায়। বর্তমানে ডিমের সরবরাহ ঠিক আছে তাই দাম কেউ সিন্ডিকেট করে দাম বাড়ানোর সুযোগ নেই।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) হেলেনা আকতার তার বক্তব্যে বলেন, দেশের স্বার্থে একে অপরকে দোষারোপ না করে সাধারণ মানুষের কথা ভেবে সকলকেই সহনীয় ও আন্তরিক হতে হবে। কোন অসাধু মহল অবৈধ সিন্ডিকেট করে বা ইচ্ছাকৃত কৃত্রিম সংকট তৈরি করে যেন বাজারকে অস্থিতিশীল করতে না পারে সেদিকে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালতের পাশাপাশি প্রয়োজনে বগুড়ায় পুলিশেরও মনিটরিং কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট সালাহ্উদ্দিন আহম্মেদ জানান, বগুড়ার বাজারে দ্রব্যমূল্য যৌক্তিক পর্যায়ে রাখতে ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দদের আরও আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে। ইতিমধ্যেই জেলা প্রশাসনের নিয়মিত মনিটরিং এর কারণে ডিমের দাম অনেকটাই কমেছে। শুধু তাই নয় অবৈধভাবে যারা ধান মজুদ করে সিন্ডিকেট করার প্রয়াস করছে তাদেরকেও রুখে দিতে জেলা প্রশাসনের অভিযান চলমান রয়েছে। তিনি বলেন, বগুড়ার ব্যবসায়ীদের যে সুপারিশ পাওয়া গেলো তা লিখিতভাবে মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হবে। তবে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সকলকেই সচেতন হবে নইলে অসাধু ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। সভায় অন্যান্যদের মাঝে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা সিভিল সার্জন ডা: শফিউল আজম, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর বগুড়ার সহকারী পরিচালক ইফতেখারুল রিজভী, কিবরিয়া এগ্রো ইন্ডাস্ট্রির সত্ত্বাধিকারী গোলাম কিবরিয়া বাহার, জেলা চাউল কল মালিক সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, চাল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি শাহ মো: আবুল কালাম আজাদ  প্রমুখ। এসময় সভায় জেলার বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ, গণমাধ্যমকর্মীসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD