May 24, 2024, 4:55 am

শ্রীলঙ্কায় সর্বদলীয় সরকারের সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করল বিক্ষোভকারীরা

যমুনা নিউজ বিডিঃ শ্রীলঙ্কায় সর্বদলীয় সরকার গঠনের সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করেছে বিক্ষোভকারীরা। তারা বলছে, সর্বদলীয় সরকার গঠনের মাধ্যমে ঘুরে ফিরে রাজাপাকসে ঘনিষ্ঠদেরকেই ক্ষমতায় থাকার পথ করে দেয়া হবে। তাদের দাবি, রাজাপাকসে ঘনিষ্ঠদের অবশ্যই সরকারের বাইরে রাখতে হবে। আল জাজিরার প্রতিবেদনে এ খবর দেয়া হয়েছে। প্রেসিডেন্টের সরকারি বাসভবন, সচিবালয় ও প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন দখল করে গত কয়েকদিন ধরে বিক্ষোভ করছেন হাজার হাজার বিক্ষুব্ধ জনতা। যা শুরু হয় গত শনিবার (৯ জুলাই) দুপুরে প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসের সরকারি বাসভন দখলের মধ্যদিয়ে। শ্রীলঙ্কার চলমান নজিরবিহীন অর্থনৈতিক সংকটের জন্য রাজাপাকসে পরিবার ও তাদের ঘনিষ্ঠদের দায়ী করে আসছে লঙ্কান জনগণ।

গোতাবায়ার পালানোর একদিন পর গত শ্রীলঙ্কার রাজনৈতিক দলগুলো রোববার (১০ জুলাই) বৈঠকে বসে। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, গোতাবায়া পদত্যাগ করার পর সব দলের প্রতিনিধিদের নিয়ে একটি অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠন করা হবে। বৈঠকের পর ক্ষমতাসীন দল শ্রীলঙ্কা পদুজানা পেরামুনার (এসএলপিপি) বিদ্রোহী অংশের নেতা বিমল বীরাবানসা বলেন, ‘অন্তবর্তীকালীন সময়ের জন্য সব দলের অংশগ্রহণে একটি ঐক্যবদ্ধ সরকার গড়তে আমরা নীতিগতভাবে একমত হয়েছি।’ সোমবার (১১ জুলাই) প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহের কার্যালয় থেকে বলা হয়, সর্বদলীয় সরকার গঠনে একটা চুক্তিতে পৌঁছানোর পর মন্ত্রিসভা ভেঙে দেয়া হবে। পদত্যাগ করবেন সব মন্ত্রী। বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আলোচনায় বসা সব মন্ত্রীর মত হচ্ছে,  সর্বদলীয় সরকার গঠনের চুক্তি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তারা তাদের দায়িত্বভার নতুন সরকারের হাতে ন্যস্ত করতে প্রস্তুত।’ তবে রাজধানীতে অবস্থান নেয়া বিক্ষোভকারীরা সর্বদলীয় সরকারের রাজনীতিকদের পদক্ষেপ প্রত্যাখ্যান করে বলেছে, প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে পদত্যাগ না করা পর্যন্ত সরকারি বাসভবন ছাড়বে না তারা। সাবির মাহমুদ নামে এক বিক্ষোভকারী বলছিলেন, ‘আমাদের দাবি একটাই, গোতাবায়া ও বিক্রমাসিংহেকে অবিলম্বে পদত্যাগ করতে হবে। এরপর একটা অন্তর্বর্তী সরকার গঠন করতে হবে যা ছয় মাসের জন্য দায়িত্ব পালন করবে। আমরা সর্বদলীয় সরকারের বিরুদ্ধে।’

বিক্ষোভকারীদের ধারণা, ক্ষমতাসীন শ্রীলঙ্কা পদুজানা পেরামুনা পার্টির নিয়ন্ত্রণেই থাকবে সর্বদলীয় সরকার। আর এ কারণেই জনগণের বেশিরভাগই সর্বদলীয় সরকারের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। যেমনটা বলছিলেন ৩৫ বছর বয়সী বিক্ষোভকারী মেলানি গুনাতিলকে। তার মতে, রাজাপাকসে পরিবারই পেছন থেকে সবকিছুর নিয়ন্ত্রণ করবে। মঙ্গলবার (১২ জুলাই) আল জাজিরাকে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আমাদের চাওয়া একটা অন্তর্বর্তী সরকার। সর্বদলীয় সরকার নয়।’

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD