বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:১৪ পূর্বাহ্ন

News Headline :
মিলনের সুস্থতা কামনা করে বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের বিবৃতি বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি দাবীতে বগুড়ার কাগইলে মশাল মিছিল বুড়িচংয়ে এক ইউনিভার্সিটির ছাত্রের গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা  সকল নেতাকর্মীর দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে চলা উচিত- মজিবর রহমান মজনু বগুড়া আ. হক কলেজের শিক্ষক পরিষদের নির্বাচনে জয়ী হলেন যারা নন্দীগ্রামে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্রুপের ৭শ’ সদস্যর মাঝে আর্থিক অনুদান প্রদান বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ সভাপতি রফিক ভূঁইয়ার স্মরণ সভা প্রথম স্থান অর্জন গম ও ভুট্টা গবেষণা ইনস্টিটিউটের কাল থেকে পলিথিনমুক্ত হচ্ছে চট্টগ্রামের তিন কাঁচাবাজার

কঙ্গোতে সশস্ত্র বিদ্রোহীদের হামলায় নিহত ১২

যমুনা নিউজ বিডিঃ গণপ্রজাতন্ত্রী কঙ্গোতে সশস্ত্র বিদ্রোহীদের হামলায় কমপক্ষে ১২ জন নিহত হয়েছে। দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় ইতুরি প্রদেশে বাস্তুচ্যুত নিরীহ মানুষের ওপর ওই হামলা চালানো হয়। এক সামরিক মুখপাত্র হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

কো-অপারেটিভ ফর দ্য ডেভেলপমেন্ট অব দ্য কঙ্গোর (কোডেকো) বিদ্রোহীরা রবিবার রাতে ড্রোড্রো গ্রাম ঘিরে ফেলে। হামলায় ৬ শিশু, চার পুরুষ এবং দুই নারী নিহত হয়েছে। ইতুরির সামরিক সরকারের এক মুখপাত্র রয়টার্স নিউজ এজেন্সিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তবে বেশ কিছু গ্রুপ জানিয়েছে, নিহতের সংখ্যা আরও বেশি। ২০১৭ সাল থেকেই ওই অঞ্চলে সক্রিয় হয়ে উঠেছে বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলো। জাতিসংঘের তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত বিদ্রোহীদের হামলায় শত শত মানুষ নিহত হয়েছে। এ ছাড়া আরও কয়েক হাজার মানুষ নিজেদের বাড়ি-ঘর হারিয়েছে।

বিদ্রোহীদের লক্ষ্যই ছিল বাস্তুচ্যুত লোকজনের ওপর হামলা চালানো। ইতুরির কারিটাস এলাকার ক্যাথলিক চ্যারিটির পুরোহিত এবং সমন্বয়কারী নাবু লিদজা ক্রিসান্তে জানান, তারা সহকর্মীরা ৩৫টি মরদেহ দেখতে পেয়েছেন। স্থানীয় গির্জাতেও হামলা চালিয়েছে বিদ্রোহীরা।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক কিভু সিকিউরিটি ট্র্যাকার জানিয়েছে, দ্রোদ্রো এবং এর আশেপাশের গ্রামগুলোতে ১০৭টি মরদেহ পাওয়া গেছে। নিহতের মধ্যে অধিকাংশই বেসামরিক নাগরিক।

কঙ্গোতে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী মিশনের মুখপাত্র মাথিয়াস গিলম্যান বলেন, হামলা থেকে পালিয়ে শান্তিরক্ষীদের সুরক্ষিত একটি এলাকায় আশ্রয় নিয়েছেন কমপক্ষে ১৬ হাজার মানুষ।

অপরদিকে কোনো বেসামরিককে হত্যার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন কোডেকোর মুখপাত্র প্যাট্রিক বাসা। তিনি রয়টার্সকে জানিয়েছেন, দ্রোদ্রো এলাকায় তাদের যোদ্ধাদের সঙ্গে হেমা মিলিশিয়ার যোদ্ধাদের সংঘর্ষ ঘটেছে। ওই এলাকা থেকে অনেক আগেই বেসামরিক লোকজন পালিয়ে গেছে বলেও দাবি করেন তিনি।

-খবর আল জাজিরা

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com