বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:০৮ অপরাহ্ন

বগুড়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আরিফ রেহমানের ছেলে ইরামের দাফন সম্পন্ন

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আরিফ রেহমানের জোষ্ঠ্য পুত্র  ইরাম আর রহমান(১৫) জানাজার নামাজ ও দাফন সম্পন্ন হয়েছে। রোববার বাদ যোহর শহরের কানুছগাড়ী জামে মসজিদে তার জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। নামাজ শেষে ইরামকে ভাই পাগলা মাজার গোরস্থানে দাফন করা হয়।

তার জানাজা নামাজে বগুড়া জেলা প্রশাসক মো: জিয়াউল হক, দৈনিক করতোয়া সম্পাদক মোজাম্মেল হক লালু, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম মোহন, বগুড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহমুদুল আলম নয়ন, বগুড়া ফটো জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন এর সভাপতি মমিনুর রশীদ শাইনসহ বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ বিপুল সংখ্যক মুসল্লি অংশগ্রহন করেন।

তার ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন দৈনিক করতোয়া সম্পাদক মোজাম্মেল হক, বগুড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহমুদুল আলম নয়ন, সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম বাবু, আব্দুল মোত্তালিব মানিক, এস.এম কাওছার, যুগ্ম সম্পাদক সাজেদুর রহমান সিজু, সাজ্জাদ হোসেন পল্লব, কোষাধ্যক্ষ কমলেশ মহন্ত সানু, দপ্তর সম্পাদক শফিউল আজম কমল, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মেহেরুল সুজন, ক্রীড়া সম্পাদক ইলিয়াস হোসেন, পাঠাগার সম্পাদক এইচ আলিম, কার্যনির্বাহী সদস্য জেএম রউফ, প্রদীপ ভট্টাচার্য্য শংকর, মিলন রহমান, তানসেন আলম, আব্দুর রহিম, ইনছান আলী শেখ, লতিফুল করিম, ফরহাদুজ্জামান শাহী, প্রবীর মহন্ত। অনুরূপ বিবৃতি দিয়েছেন বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়ন সভাপতি আমজাদ হোসেন মিন্টু ও সাধারণ সম্পাদক জেএম রউফ, বগুড়া ফটো জিার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন এর সভাপতি মমিনুর রশীদ শাইন ও সাধারন সম্পাদক আব্দুর রহিম।
এর আগে শনিবার রাত সাড়ে ১০টায় ঢাকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইরামের মৃত্যু হয়। সে শহরের অার্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থী ও এবারের এসএসসি পরিক্ষার্থী ছিল।

ইরাম গত মাসে টাইফয়েড জ্বরে আক্রান্ত হয়েছিল। জ্বর সেরে গেলে ২৮ জুলাই হঠাৎ তার হাত পা ও শরীর অবশ হয়ে যায়। বগুড়া মেডিকেলে চিকিৎসা শেষে ২ আগস্ট ভর্তি করানো হয় ঢাকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস ও হাসপাতালে। হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক কাজী দীন মোহাম্মদের নেতৃত্বে একটি মেডিকেল বোর্ড তার চিকিৎসা শুরু করেন। সেখানে ৫ আগস্ট অচেতন হয়ে পড়লে স্থানান্তর করা হয় আইসিইউতে। একদিন পর জ্ঞান ফিরে আসলেও ৯ আগস্ট আবার অচেতন হয়ে পড়ে ইরাম। পরেরদিন ১০ আগস্ট রাত নয়টা থেকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয় তাকে। সেখানে কৃত্রিম শ্বাস যন্ত্র দিয়ে শ্বাস- প্রশ্বাস চালানো হয়। পরে শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে চিকিৎসকেরা ইরামকে মৃত ঘোষণা করেন।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com