শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:২৭ অপরাহ্ন

হাড়কে মজবুত ও শক্ত রাখতে খেজুরের গুণাগুণ

যমুনা নিউজ বিডিঃ হাড় মানুষের শরীরের একটি গুরুত্বপূন্য উপাদান । হাড়ের মাধ্যমে আমাদের শরীরের গঠন হয়ে থাকে । তাই হাড় ছাড়া আমাদের শরীরের কোন কিছুই হয় না । তাই হাড় শরীরের একটি অতি প্রয়োজনীয় উপাদান । হাড়ের সুরক্ষায় আমরা নানা ধরনের কাজ করে থাকে । আমরা নানা ধরনের ওষধ এর মাধ্যমে হাড়ের সমস্যা নিরাময় করে থাকি । কিন্তু হাড়ের সমস্যা নিরাময়ের জন্য আমরা প্রাকৃতিক ভাবে নানা উপায় অবলম্বন করতে পারি ।

যেমন খেজুরের মাধ্যমে আমরা আমাদের হাড়ের নানা ধরনের সমস্যা নিরাময় করতে পারি । খেজুর আমাদের সবার পরিচিত একটি ফল । খেজুরে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার, উপকারি তেল, ক্যালসিয়াম, সালফার, আয়রন, পটাশিয়াম, ফসফরাস, কপার, ভিটামিন বি৬, ভিটামিন কে এবং আরও নানারকম খনিজ উপাদানে ভরপুর এই ফলটি কিন্তু আমাদের শরীরের জন্য অনেক উপকারী। এটি  নানাভাবে আমাদের শরীরের অনেক উপকারে লেগে থাকে। প্রতিদিন সকালে ৩ টি করে খেজুর খাওয়া শুরু করলে দারুন সব উপকার পাওয়া যায়। বিশেষ করে আমাদের হাড়কে শক্ত এবং মজবুত রাখতে এটি ভীষণ উপকারি। তাহলে আসুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে খেজুর আমাদের হাড়কে শক্ত ও মজবুত করতে পারে ।

খেজুর যেভাবে খেলে উপকার পাওয়া যাবে :

ফলের ভেতর খেজুর অত্যন্ত সুস্বাদু ও উপকারি একটি ফল । খেজুর এর নানা গুণাগুণ আমাদের শরীরের বিভিন্ন উপকার করে থাকে । খেজুর হাড়ের সুস্থ্যতায় এটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ্ ভূমিকা রাখে । যেহেতু খেজুর অত্যন্ত সুস্বাদু একটি ফল , তাই আমরা একে যেকোন ভাবে খেতে পারি । খেজুর এ সবচেয়ে বেশি উপকার মেলে প্রতিদিন রাতে ২-৩ টি শুকনো খেজুর একগ্লাস দুধে সারারাত ভিজিয়ে রাখতে হবে । এরপর রোজ সকালে এটি খেতে হবে । তাহলে খেজুরের উপকারিতা সবচেয়ে বেশি উপকার পাওয়া যায় ।

খেজুর যেভাবে কাজ করে :

খেজুরে রয়েছে   ক্যালশিয়াম এবং পটাশিয়াম আমাদের হাড়ের জন্য অনেক উপকারী। এই দুটি খনিজ আমাদের হাড়ের গঠনে সবচেয়ে বেশি সাহায্য করে থাকে। একই সাথে এই উপাদান গুলো আমাদের হাড়কে অনেক শক্ত এবং মজবুত করে তোলে। আর এই দুই উপাদানই খেজুরে প্রচুর পরিমাণে আছে। এছাড়া এতে আছে সেলেনিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, কপার এবং ম্যাগনেসিয়ামের মত উপকারী সব খনিজ পদার্থ। তাই প্রতিদিন খেজুর খেলে আমাদের হাড় শক্ত এবং মজবুত হয়ে ওঠে এবং একই সাথে এটি আমাদের  হাড়কে এতটাই শক্তপোক্ত করে যে অস্টিওপোরোসিসের মতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা একেবারে কমে যায়।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com