সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৫:২৯ পূর্বাহ্ন

বগুড়ায় হাসপাতালে অক্সিজেনের সংকট ঘটেনি

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়ায় হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলার মাধ্যমে অক্সিজেন সরবরাহের অভাবে মৃত্যুর সংবাদ নিয়ে প্রকাশিত সংবাদ জেলার মানুষের মতে ভীতি দেখা দিয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে। বগুড়া মোহাম্মাদ আলী হাসপাতালে ৭ জনের মুত্যুর খবর নিয়ে জেলা ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে শুক্রবার রাতে এমন বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হলো জেলা প্রশাসনের পক্ষে।

বগুড়ার জেলা প্রশাসক জিয়াউল হক স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, ‘আজ শুক্রবার দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে পর্যাপ্ত সংখ্যাক হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলা না থাকায় অক্সিজের সরবরাহের অভাবে সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছেন আরও ১০ জন। মোহাম্মদ আলী হাসপাতাল আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) বিষয়টি জানিয়েছেন বলে প্রকাশিত সংবাদে উল্লেখ করা হয়েছে। এমন সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় জনমতে ভীতি দেখা দিয়েছে।’

বগুড়া জেলা প্রশাসক জিয়াউল হক স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বগুড়া জেলায় ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট মোহাম্মদ আলী হাসপাতালটি কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতাল হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এ হাসপাতালের পাশাপাশি বগুড়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল ও টিএমএসএস হাসপাতালে করোনার চিকিৎসা করা হচ্ছে। মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে ২২৫টি বেড, শজিমেক হাসপাতালে ১০০টি বেড ও বেসরকারি টিএমএসএস হাসপাতালে ১৬০টি বেড রয়েছে। এ সকল হাসপাতালের মধ্যে কোভিড-১৯ ডেডিকেটেড মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে সম্প্রতি সেন্ট্রাল অক্সিজেন সিস্ট্রেম চালু হয়েছে। এর মাধ্যমে যেসকল রোগীর অক্সিজেন প্রয়োজন তা সম্পূর্ণরূপে দেয়া হচ্ছে। তবে অক্সিজেন স্যাচুরেশন এর মাত্রা যখন ৮৭ এর নিচে নেমে যায় তখন রোগীকে অক্সিজেন দেয়ার জন্য হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলার প্রয়োজন হয়। মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে বর্তমানে ২টি হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলা রয়েছে। যার ফলে সংকটাপন্ন রোগীদের চিকিৎসায় সাময়িক অসুবিধার সৃষ্টি হয়েছে। এজন্য সাধারণ মাত্রার অক্সিজেন সরবরাহের কোনো রকম বিঘ্ন ঘটেনি। প্রয়োজনীয় অক্সিজেন সরবরাহ আছে। এছাড়াও শজিমেক হাসপাতালে ১২টি এবং টিএমএসএস হাসপাতালে ন্যাজাল ক্যানুলা রয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানুলার সল্পতার কারণে সামগ্রিকভাবে করোনা আক্রান্ত রোগীদের মাঝে অক্সিজের সরবরাহের কোনো সমস্যা হচ্ছে না। মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সিস্টেম কার্যকর রয়েছে। সাধারণ রোগীদের অক্সিজেন প্রাপ্তিতে কোন সমস্যা  হচ্ছে না। কেবল  সংকটাপন্ন রোগীদের ব্যবস্থপনায় সাময়িক অসুবিধার সৃষ্টি হয়েছে যা ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সহায়তায় অতিদ্রুত সমাধান করার বিষয়ে আমরা আশাবাদী।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com