সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৩:২৯ পূর্বাহ্ন

বগুড়ায় করতোয়া নদীতে ভাসমান সেই লাশের পরিচয় পাওয়া গেছে

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়ায় করতোয়া নদী থেকে দুই হাত বাঁধা ও গলায় গামছা পেঁচানো অবস্থায় উদ্ধার করা মৃতদেহের পরিচয় পাওয়া গেছে। তার নাম শমছের আলী (৫২)। তিনি নীলফামারী জেলার ডিমলা থানার ছাতুনামা গ্রামের  মৃত মহর উদ্দিনের ছেলে।

বগুড়া সদর উপজেলার মাটিডালি এলাকায় ঠান্ডু নামে একজনের ‘স’-মিলে শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন শমছের। তার লাশ উদ্ধারের স্থান থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে চালিতাবাড়ি গ্রামে তার শশুর বাড়ি। তার শশুরের নাম ফুলমিয়া।

এ তথ্যগুলো নিশ্চিত করেছেন বগুড়া সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাকির আল আহসান।

গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সদর উপজেলার শাখারিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণপাড়ায় করতোয়া নদী থেকে শমসের আলীর ভাসমান লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তার দুই হাত চিকন রশি দিয়ে বাঁধা ছিল ও গলায় গামছা পেঁচানো ছিল। পরে মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়।

বগুড়া সদর থানার ওসি মো. সেলিম রেজা বলেন, মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জানতে চাইলে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল ও মিডিয়া মুখপাত্র) ফয়সাল মাহমুদ জানান, আমরা ঘটনার রহস্য উদঘাটনে কাজ করছি। আশাকরি দ্রুত  সবকিছু জানতে পারব ও জড়িতদের আইনের আওতায় আনতে সক্ষম হওয়া যাবে।

তিনি বলেন, ঠিক কীভাবে শমছের আলীকে হত্যা করা হয়েছে তা ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়া গেলে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com