মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০১:০২ অপরাহ্ন

মানবতার ফেরিওয়ালা হাসান আলী আলাল

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ মানব দরদী মানুষদের চিন্তা-চেতনা হলো শুধু নিজের জন্য বেঁচে থাকাই বেঁচে থাকা নয়। অসহায় মানুষের চোখের পানি মুছে দিয়ে বেঁচে থাকার নামই জীবন। জীবন হচ্ছে জাগ্রত মুহুর্তের কতকগুলো অনুভূতির সমষ্টি। প্রতিটি জীবন অনুভূতি এক একটি অভিজ্ঞতায় তাৎপর্যবাহী। এ পথ দুখী মানুষদের গল্প শোনার অভিজ্ঞতাটা শুধু অভিজ্ঞতা নয়, এটি হৃদয়স্পর্শী মর্মাহত ও হৃদয় গাঁথা। এ অভিজ্ঞতাটা ভূপেন হাজারিকার গানটি অনুরণন তুল্য ‘মানুষ মানুষের জন্য একটু সহানুভূতি কী পেতে পারে না ও বন্ধুৃৃৃৃৃ’..। দুখের কথা বলতে বলতে মুখে কোন কথা নেই চোখ ভরা জল। কথা বলতে বলতে চোখের জল আর বাঁধ মানছে না। অন্তরদহে সমবেদনায় দু’চোখ গড়িয়ে ফোঁটায় ফোঁটায় অশ্রæ গড়তে লাগলো। অশ্রæসিক্ত নয়নে বলতে শুরু করলো তাদের কেউ খোঁজ রাখে না। খায় কি খায় না সেটিও কেউ খোঁজ করে না। তাদের পরনে ছিন্ন পোশাক। ধারে কাছেও অনেকেই যান না। মাটির বিছানা, মাটির উপর শুয়ে মানুষের দয়ায় যা পায় তা দিয়ে দিন চালায়। আবার যে খাবার দেয় সে খাবার খেয়েই নিজের জগতে হারিয়ে যায়। তাদের পুষ্টিমান খাবারের অভাবে রোগশোক বাসা বেঁধেছে। নিরাপদ, নিরাপত্তা কিছুই নেই। সমাজের অনেকেই তাদের কাছ থেকে দূরে থাকে বলে এই অভাবী মানুষের কপালে ভাল আর কিছুই জোটে না। এই না জোটা মানুষগুলোর জন্য এবার কিছু জুটিয়ে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছেন মানবতার ফেরিওয়ালা হিসেবে পরিচিতি পাওয়া আকবরিয়া লিমিটেডের চেয়ারম্যান হাসান আলী আলাল।

যারা ভবঘুরে, মহাস্থানগড়, স্টেশন, বাসস্ট্যান্ড, হাটে-বাজারে, খাবারের অভাবে দিন চলে না বা পথে যাদের দিন কাটে তাদের এবার নিয়মিত খোঁজ খবর নিবেন হাসান আলী আলাল। পথ মানুষের জন্য তিনি খাবারের ব্যবস্থা করবেন। তাদের কাছে গিয়ে জীবনের পাওয়া না পাওয়ার গল্প করবেন। মানুষের মানবিকতার জায়গায় দাঁড়িয়ে তিনি মানবসেবায় নিজেকে মেলে ধরতে যাচ্ছেন।
‘বাহিরের জগতে এক্ষুনি বেরিয়ে পড়ো এবং ভালোবাসো প্রত্যেকটি মানুষকে, তোমার উপস্থিতিতে যেন হাজারো মানবহৃদয়ে নতুন আলো সঞ্চর জাগায়’।

এটিকে মাথায় রেখে গত কয়েকদিন ধরে বগুড়া শহরের বিভিন্ন এলাকার অভাবী মানুষের পাশে বসে গল্প করছেন। এবার তাদের মনের কষ্ট ও শখ পুরন করতে তিনি উদ্যোগ গ্রহণ করবেন।
মানবতার ফেরিওয়ালা আকবরিয়া লিমিটেডের চেয়ারম্যান হাসান আলী আলাল জানান, তার পিতা আকবরিয়া হোটেল প্রতিষ্ঠা করে মানবতার বীজ বপন করেছিলেন। পিতার আদর্শ নিয়ে তিনি এ মানবতার কাজগুলো পুরো বগুড়ায় ছড়িয়ে দিতে চান।

মানুষ মানুষের জন্য এই কথাটি স্মরণ করেই আজ আকবরিয়া লিমিটেড এগিয়ে যাবে মানবতার ফেরিওয়ালা হয়ে। আমরা চেষ্টা করছি অভাবী মানুষের পাশে দাঁড়াতে।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com