মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:১৬ অপরাহ্ন

দু’টি উপায় বিদেশ যেতে পারবেন খালেদা জিয়া

যমুনা নিউজ বিডিঃ বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে বিদেশ যাওয়ার সুযোগ করে দিতে এখন দুটো পথ খোলা রয়েছে। এক্ষেত্রে রাষ্ট্রপতি তার সাজা মওকুফ করে বিদেশ যাওয়ার পথ করে দিতে পারেন- সেক্ষেত্রে তাকে এর জন্য আবেদন করতে হবে। অথবা উচ্চ আদালত মামলা স্থগিত রাখার আদেশ দিয়েও বিদেশ যাওয়ার পথ সুগম করে দিতে পারে। সেক্ষেত্রে আদালতের দ্বারস্থ হতে হবে বিএনপি চেয়ারপার্সনকে।

করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর কিছু জটিলতা দেখা দিলে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় বিএনপি চেয়ারপার্সব খালেদা জিয়াকে। শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে তাকে সরিয়ে নেওয়া হয় করোনা কেয়ার ইউনিটে। তারপরই বিদেশে নিতে তার পরিবারের পক্ষ থেকে সরকারের কাছে আনুষ্ঠানিক আবেদন জানানো হয়।

খালেদা জিয়ার আবেদনটি আইন যাচাই-বাছাই শেষে রবিবার আইন মন্ত্রণালয় জানিয়ে দেয়, চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে বিদেশে যাওয়ার অনুমতি দিতে পারছে না সরকার। তবে, অন্য কি উপায় আছে সে বিষয়ে কোনো ব্যাখ্যা দেয়নি আইন মন্ত্রণালয়।

এমন পরিস্থিতিতে প্রশ্ন উঠেছে ফৌজদারি কার্যবিধি ৪০১ ধারায় দণ্ডপ্রাপ্ত আসামির ক্ষেত্রে সরকারের হাতে কতটুকু আইনি ক্ষমতা রয়েছে।

৪০১ ধারা অনুযায়ী সরকার দণ্ড স্থগিত করে শর্তযুক্ত বা শর্তহীন মুক্তি দিতে পারে। যেকোনো সময় মুক্তির আদেশ বাতিলও করতে পারে। এই ধারায় দণ্ড স্থগিত রাখার আসামির যেকোনো দরখাস্ত বিবেচনা করে নির্দেশ দেয়ারও সুযোগ রয়েছে। ৪০১ ধারার উপধারা অনুযায়ী রাষ্ট্রপতিও দণ্ড মওকুফ করতে পারেন। সে ক্ষেত্রে আসামিকে আবেদন করতে হবে।

খালেদা জিয়াকে বিদেশে চিকিৎসা নেয়ার নির্দেশ দেয়ার আইনি সুযোগ সরকারের রয়েছে বলে মনে করেন সুপ্রিমকোর্টের সিনিয়র আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘এক্ষেত্রে সরকার যদি শর্ত দিত যে বিদেশে যেতে পারবেন কিন্তু চিকিৎসা শেষে দেশে ফেরত আসতে হবে। এছাড়া আইনের এমন কোনও বিধান নেই সরকারের অনুমতির পরও দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি বিদেশে চিকিৎসা নিতে যেতে পারবেনা।’

অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মেহেদি হাসান চৌধুরী বলেন, ‘বিদেশ যাওয়ার আগে খালেদা জিয়ার সাজা আদালত থেকে স্থগিত করতে হবে।’

তবে, দুর্নীতি দমন কমিশনের আইনজীবী খুরশিদ আলম খান বলছেন ভিন্ন কথা। তার দাবি, সরকারের সাজা স্থগিত করাটাই আইনসঙ্গত হয়নি।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১৭ বছরের দণ্ড নিয়ে কারাগারে ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। গেল বছরের ২৫শে মার্চ শর্ত সাপেক্ষে সাজা স্থগিত করে তাকে মুক্তি দেয় সরকার।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com