বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:১৫ অপরাহ্ন

কুয়াকাটা সৈকতে ১০ ঘণ্টার ব্যবধানে ফের ভেসে এলো মৃত ডলফিন

যমুনা নিউজ বিডিঃ পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সমুদ্রসৈকতে ১০ ঘণ্টার ব্যবধানে ভেসে এসেছে আরেকটি মৃত ডলফিন। রবিবার (৯ মে) রাত ৯টার দিকে কুয়াকাটা সৈকতের জিরো পয়েন্ট থেকে পশ্চিমে ইসলামপুর দাখিল মাদরাসা সংলগ্ন সৈকতে ভেসে আসে এটি। মৃত ডলফিনটির দৈর্ঘ্য ৪ ফুট। এর আগে রবিবার সকাল ১১টার দিকে কুয়াকাটার লেম্বুরবন সংলগ্ন সমুদ্র সৈকতে ভেসে আসে ১০ ফুট লম্বা একটি মৃত ডলফিন। স্থানীয় জেলেরা মৎস্য বিভাগকে মৃত ডলফিনের খবর জানায়।

জেলে আনোয়ার মাঝি বলেন, ভেসে আসা ৪ ফুট লম্বা ডলফিনের দেহের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে জেলেদের জালে আটকে ডলফিন মারা গেছে। এর আগেও বিভিন্ন সময় বেশ কয়েকটি মৃত ডলফিন ও তিমি সৈকতে ভেসে আসে। তবে কী কারণে এসব ডলফিন মারা যাচ্ছে তা নিশ্চিত করতে পারেনি মৎস্য বিভাগ। ওয়ার্ল্ড ফিস বাংলাদেশের এনহ্যান্সড কোস্টাল ফিশারিজ ইন বাংলাদেশ (ইকো ফিশ-২) অ্যাক্টিভিটির পটুয়াখালীর সহকারী গবেষক সাগরিকা স্মৃতি বলেন, কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী এলাকায় বেশ কিছুদিন ধরে একশ্রেণির জেলেরা হাজারি বড়শি (দড়ির সঙ্গে ৬ ইঞ্চি পরপর বড়শি পাতা থাকে) ফেলে শাপলাপাতা মাছসহ অন্য প্রজাতির মাছ ধরে থাকেন। দড়ির সঙ্গে বড়শি বাঁধা থাকে ৮শ থেকে ১ হাজার। বড়শিগুলো মাটির সঙ্গে মিশিয়ে ফেলে রাখা হয়। এসব বড়শি ধারালো হয়। ধারণা করা হচ্ছে, ডলফিন দু’টি এ ধরনের বড়শিতে আটকা পড়ে আঘাত পেয়ে মারা গেছ। এ ব্যাপারে পটুয়াখালী জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোল্লা এমদাদুল্লাহ বলেন, ঘটনাস্থলে মৎস্য বিভাগের কর্মকর্তাদের পাঠানো হয়েছে। কী কারণে ডলফিন মারা গেছে সেটি নিশ্চিত হতে পোস্টমর্টেম করার চেষ্টা করা হবে। তবে মৃত ডলফিনের অবস্থা বেশি খারাপ হলে মাটি চাপা দেওয়া হবে। এ বিষয়ে মৎস্য অধিদপ্তর বরিশালের কোস্টাল অ্যান্ড মেরিন ফিশারিজ প্রকল্পের উপ-প্রকল্প পরিচালক মো. কামরুল ইসলাম বলেন, এ ধরনের ডলফিন উত্তর ও দক্ষিণ মেরুর শীতল জল ছাড়া প্রায় প্রতিটি সমুদ্রে পাওয়া যায়। সাধারণত এ ধরনের ডলফিনকে বোতল জাতীয় ডলফিন বলা হয়। এ জাতীয় ডলফিন উপকূলীয় অঞ্চলে বাস করে।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com