বুধবার, ২৮ Jul ২০২১, ০৪:১৯ অপরাহ্ন

স্যামসনের অবিশ্বাস্য ইনিংসে জয়ের খুব কাছে গিয়ে রাজস্থানের হার

যমুনা নিউজ বিডিঃ লোকেশ রাহুল, দীপক হুদার ব্যাটে তাণ্ডব চালিয়েছিল প্রথম ইনিংসে পাঞ্জাব কিংস। ২২১ রান করে স্বস্তিতেই ছিল তারা, কিন্তু সাঞ্জু স্যামসন ক্রিজে নামার পর তা চিন্তাতে ফেলে দেয় । অধিনায়কের অবিশ্বাস্য ইনিংসে জয়ের খুব কাছে গিয়েছিল রাজস্থান। কিন্তু ব্যর্থ হয় তারা।

২২২ রানের টার্গেট, চতুর্থ ওভারের দুই বল শেষ হতেই নেই ২৫ রানে ২ উইকেট। আইপিএলে অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক ম্যাচে ক্রিজে নামলেন সাঞ্জু স্যামসন। জস বাটলার ও শিবম দুবে মেরে খেললেও বড় কোনও অবদান রাখতে পারেননি। তবে স্যামসন একপ্রান্তে ছিলেন দুরন্ত।

ডানহাতি ব্যাটসম্যানের ব্যাটে পাওয়ার প্লেতে ২ উইকেট হারিয়েও ৫৯ রানে ছন্দ ধরে রাখে রাজস্থান। বাটলারের সঙ্গে ৪৫ রানের ও দুবের সঙ্গে ৫৩ রানের জুটি গড়েন স্যামসন। ৩৩তম বলে পেছনে উইকেটকিপার লোকেশ রাহুলের মাথার ওপর দিয়ে বাউন্ডারি মেরে ফিফটি করেন। পরের বলেই রাজস্থানের এলবিডাব্লিউর আবেদনে আম্পায়ার আউট দিলেও রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান তিনি। মাত্র ১০.২ ওভারেই দলীয় স্কোর একশ রাজস্থানের।

১৩তম ওভারে দুবের বিদায়ের পর মাঠে নামেন রিয়ান পরাগ। তাকে সঙ্গে নিয়ে স্যামসন আরও ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করেন। মাত্র ১৯ বলে পঞ্চাশ ছোঁয় তাদের জুটি। ১১ বলে ১ চার ও ৩ ছয়ে পরাগ ২৫ রানে আউট হলে ভাঙে ৫২ রানের এই জুটি। তবে লড়াই চালিয়ে যান স্যামসন। ১৮তম ওভারের প্রথম তিন বলে দুটি চার ও একটি ছয়ে ৫৪ বলে সেঞ্চুরি করেন তিনি। আইপিএল ইতিহাসে প্রথম অধিনায়ক হিসেবে অভিষেকে শতক হাঁকান এই ব্যাটসম্যান।

শেষ দুই ওভারে ২১ রান দরকার ছিল রাজস্থানের। কিন্তু প্রথম বলেই রাহুল তেওয়াতিয়া আউট হন। ক্রিস মরিসের সিঙ্গেলে স্ট্রাইকে গিয়েই ছয় মারেন স্যামসন। শেষ ওভারে লাগতো ১৩ রান। আর্শদীপ সিংয়ের চতুর বোলিংয়ে প্রথম তিন বলে আসে ২ রান। চতুর্থ বলে স্যামসন ছক্কা মারেন। পঞ্চম বলে মরিস রান নিতে চাইলেও তাকে ফেরত পাঠান, শেষ বলে দরকার ৫ রান। ছক্কাই মারতে চেয়েছিলেন, কিন্তু ক্যাচ হন।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com