বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১০:৪৩ পূর্বাহ্ন

ডিজিটাল স্ক্রীন: চোখ বাচাঁনোর উপায়

যমুনা নিউজ বিডিঃ আজকাল সংগত কারনেই কম্পিউটার, ল্যাপটপ, ট্যাব অথবা মোবাইল ফোনের ব্যবহার বেড়ে গেছে। অফিসের কাজ বলুন, লেখাপড়া আর বিনোদন সবকিছুতেই ডিজিটাল স্ক্রীনের দিকে আমাদের চোখ রাখতেই হয়। এই ধরনের দৃস্টি ব্যবহারে চোখের নিন্মলিখিত উপসর্গ সমূহ হতে পারে:

১। চোখের পানি শুকিয়ে যেতে পারে।
২। চোখ কচ কচ করতে পারে।
৩। চোখে ঝাপসা দেখা যেতে পারে।
৪। মাথা ধরা অথবা মাথা ব্যাথা হতে পারে।
৫। চোখে ডাবল দেখা যেতে পারে।
৬। গাড় ব্যাথা হতে পারে।
৭। চোখে পানি পরতে পারে।
৮। চোখ লাল হতে পারে।
৯। চোখে অলসতা আসতে পারে।
১০। আলোর প্রতি অসহিস্নতা হতে পারে।
১১। আলোর আধিক্যতা দেখা পারে।
১২। রং এর তারতম্য দেখা দিতে পারে।
১৩। চোখ জ্বালা পুড়া করা।

উপরোক্ত এক বা একাধিক উপসর্গ সাধারণত দেখা দেয় দীর্ঘ সময় ডিজিটাল স্ক্রীন ব্যবহার করার জন্য। সমীক্ষায় দেখা গেছে, যারা দৈনিক ৫ ঘন্টার বেশী ডিজিটাল স্ক্রীন ব্যবহার করে তাদের উপরে উল্লেখিত সমস্যা গুলি উল্লেখযোগ্য হারে বেশী। তবে, এর কম ব্যবহার করলেও কারো কারো এ ধরনের অসুবিধা হতে পারে। ডিজিটাল স্ক্রীন ব্যবহারের সময় চোখের পলক কম ফেলা এ ধরনের উপসর্গের অন্যতম প্রধান কারন।এছাড়া, কম্পিউটার জাতীয় ডিভাইসটির ধরন যেমন, স্ক্রীন এর রং, উজ্জ্বলতা, একাধিক রং এবং এর ভিন্নতা, ব্যবহারের প্রকৃতি যেমন দূরত্ব, দৃস্টিকোন ইত্যাদির উপরও চোখের ক্ষতিকর দিকগুলো নির্ভর করে। বর্তমানে অনেক ডিভাইসে এলইডি লাইট ব্যবহ্নত হয় যা নীল আলো প্রতিসরন করে। এই প্রতিসরিত নীল তরংগের আলো চোখের করণিয়ার মারাত্বক ক্ষতি সাধন করে থাকে।

ডিজিটাল স্ক্রীন জনিত চোখের সমস্যা গুলি থেকে পরিত্রাণ পেতে নিন্মলিখিত পদক্ষেপগুলো গ্রহন করা যেতে পারে:

১।চোখ থেকে ৯০ সেমি বা ৩৫ ইন্ছি দূরে রেখে কম্পিউটার, ট্যাব, ল্যাপটপ, মোবাইল ব্যবহার করতে হবে।
২। ডিজিটাল ডিভাইসের মনিটরটি বুক লেভেলে বা তার নিচে রেখে ব্যবহার করতে হবে।
৩। এসি রুমে রুম হিউমিডিফাইয়ার ব্যবহার করতে হবে।
৪। ঘন ঘন চোখের পলক ফেলার অভ্যাস করতে হবে।
৫। আমিরিকান অপটোমেট্রিক সোসাইটির মতে প্রতি ২ ঘন্টা কম্পিউটার ব্যবহারে অন্তত ১৫ মিনিট বিশ্রাম নিতে হবে।
৬। এ ব্যাপারে ২০-২০-২০ নিয়ম মানা যেতে পারে অর্থাৎ প্রতি ২০ মিনিট পর ২০ ফিট দূরে তাকাঁতে হবে ২০ সেকেন্ড এর জন্য।
৭। নীল রং প্রতিরোধক টিন্টেড চশমা ব্যবহার করা যেতে পারে।
৮। মনিটরে ‘নাইট মোড’ লাইট ব্যবহার করা যেতে পারে।
৯। চোখে করণিয়ার কোন পূর্ব সমস্যা থাকলে তার চিকিৎসা বান্ঝনীয়।
১০। চোখে কৃত্তিম টেয়ার ড্রপ ব্যবহার করা যেতে পারে।

আশা করি যাঁরা দীর্ঘ সময় কম্পিউটার, ট্যাব, ল্যাপটপ এবং মোবাইল ব্যবহার করেন, অবশ্যই উল্লেখিত নিয়ম কানুন গুলো মেনে চলবেন। এতে ডিজিটাল স্ক্রীন জনিত জটিলতা থেকে আপনার চোখকে ক্ষতি থেকে রক্ষা করতে পারবেন।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com