বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ০৫:০৭ অপরাহ্ন

বগুড়ায় সব ধরনের সমাবেশ বন্ধসহ জেলা প্রশাসনের ১৮ টি নির্দেশনা

যমুনা নিউজ বিডিঃ করোনা সংক্রমণ রোধে দুই সপ্তাহের জন্য (১ এপ্রিল থেকে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত) বগুড়ায় সব ধরনের সমাবেশ বন্ধসহ ১৮ টি নির্দেশনা দিয়েছে জেলা প্রশাসন। বৃহস্পতিবার বগুড়া জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জিয়াউল হক স্বাক্ষরিত এক গণবিজ্ঞপ্তিত নির্দেশনাগুলো মেনে চলতে জনসাধারনকে অনুরোধ করা হয়। সেই সাথে এ আদেশ অম্যান্যকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে ওই গণবিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।  

করোভাইরাসের সংক্রমণ রোধে বগুড়া জেলা প্রশাসন যে ১৮ টি নির্দেশনা দিয়েছে সেগুলো হলো-

১. জেলার সকল ধরণের সমাবেশ যেমন-সামাজিক/রাজনৈতিক/ধর্ম (ইসলামিক জলসা, নামযজ্ঞ, প্যাগোডায় প্রার্থনা, সভা-সমিতি ইত্যাদি) আয়োজন আগামী ১৫(পনের) দিনের জন্য সম্পূর্ণ  রুপে বন্ধ রাখাতে হবে।

২. মসজিদ, মন্দিরসহ সকল ধর্মীয় উপাসনালয়ে নামাজ এবং প্রার্থনাকালে কোভিড স্বাস্থ্য প্রটোকল তথা ৩ ফুট দূরে অবস্থান এবং মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করতে উপপরিচালক, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, ইমামগণ এবং সংশ্লিষ্ট ধর্মীয় উপাসনালয় কমিটিকে বিশেষ অনুরোধ করা হলো।

৩. পর্যটন, বিনােদন কেন্দ্র, সিনেমা হল, থিয়েটার বন্ধ রাখতে হবে এবং সব ধরনের মেলা আয়ােজন বন্ধ থাকবে।

৪. গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে এবং ধারণক্ষমতার অর্ধেকের বেশি যাত্রী পরিবহন করা যাবে না।

৫. আন্তঃজেলা যান চলাচল সীমিত রাখতে হবে। 

৬. বিদেশফেরত যাত্রীদের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করতে হবে।

৭. নিত্যপ্রয়ােজনীয় দ্রব্যসামগ্রী খােলা ও উন্মুক্ত স্থানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়-বিক্রয় করতে হবে।

৮. স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানগুলােয় মাস্ক পরাসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা নিশ্চিত করতে হবে।

৯. শপিং মলে ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়েরই যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা বাধ্যতামূলক।

১০. জেলার সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে।

১১. অপ্রয়ােজনীয় ঘােরাফেরা/ আড্ডা বন্ধ থাকবে। জরুরি প্রয়ােজন ছাড়া বাইরে বের হওয়া যাবেনা।

১২. অতি প্রয়ােজনে বাইরে গেলে স্বাস্থ্যবিধি পুরােপুরি মানতে হবে। এ ক্ষেত্রে মাস্ক না পরলে বা স্বাস্থ্যবিধি মেনে না

চললে আইন অনুসারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

১৩. করােনায় আক্রান্ত/করােনার লক্ষণযুক্ত ব্যক্তিকে আইসােলেশনে থাকতে হবে। করােনায় আক্রান্ত ব্যক্তির ঘনিষ্ঠ

সংস্পর্শে আসা অন্যদেরও কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

১৪. জরুরি সেবায় নিয়ােজিত প্রতিষ্ঠান ছাড়া সব সরকারি-বেসরকারি অফিস, প্রতিষ্ঠান, শিল্পকারখানা ৫০

শতাংশ লােকবল দিয়ে পরিচালনা করতে হবে। অন্তঃসত্ত্বা, অসুস্থ, ৫৫ বছরের অধিক বয়সী ব্যক্তিদের

বাসায় থেকে কাজের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

১৫, সভা, সেমিনার, প্রশিক্ষণ, কর্মশালা যথাসম্ভব অনলাইনে আয়োজন করতে হবে।

১৬, সশরীরে উপস্থিত হতে হয় এমন যেকোনাে ধরনের গণপরীক্ষার ক্ষেত্রে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

১৭. হােটেল, রেস্তোরায় ধারণক্ষমতার অর্ধেক মানুষ প্রবেশ করতে পারবে।

১৮. কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ ও অবস্থানের পুরােটা সময়ই বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরাসহ সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com