সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০০ পূর্বাহ্ন

News Headline :
শেখ রাসেলের জন্মদিনে বগুড়া জেলা আ’লীগের কর্মসূচি ঘোষণা প্রথমবার জাতীয়ভাবে পালিত হচ্ছে ‘শেখ রাসেল দিবস’ নওগাঁর সাপাহারে বিএমএসএফ’র পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান  সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে বগুড়ায় শ্রমিক লীগের মানববন্ধন ইউপি নির্বাচনে ভোট চুরির চেষ্টা করলে জনতা হাত গুঁড়িয়ে দেবে : হেলালুজ্জামান লালু বগুড়ায় ৫ কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার দৈনিক বগুড়ার ১৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত বগুড়ায় করোনার টিকা নেয়ার সময় বৃদ্ধার চেইন ছিনতাই, ৫ নারী গ্রেফতার মুজিব শতবর্ষ বগুড়া জেলা দাবা লীগ উদ্বোধন হবু স্ত্রীকে ৬০ কেজি সোনার গহনা উপহার দিলেন যুবক!

বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতাসহ ১ লাখ ৪৭ হাজার ৫৩৭ জনের নাম

যমুনা নিউজ বিডিঃ স্বাধীনতাসংগ্রামের মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জাতীয় চার নেতার নাম শীর্ষে রেখে মুক্তিযোদ্ধাদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ শুরু করেছে সরকার। বাঙালির শ্রেষ্ঠ অর্জন মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়া এক লাখ ৪৭ হাজার ৫৩৭ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার নাম এসেছে প্রথম তালিকায়। এই তালিকায় ১৯১ জন শহীদ বুদ্ধিজীবীর নামও রয়েছে। স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর প্রাক্কালে গতকাল বৃহস্পতিবার এই তালিকা প্রকাশ করে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়।

এ বিষয়ে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক নিজ মন্ত্রণালয়ে করা সংবাদ সম্মেলনে বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের আগে যত সার্টিফিকেট দেওয়া হয়েছে, সেগুলোতে ‘সাময়িক’ শব্দটি লেখা আছে। এখন তাঁদের চূড়ান্ত সার্টিফিকেট দেওয়া হবে। যাঁরা জীবিত আছেন তাঁদের জন্য পৃথক কার্ডও ইস্যু করা হবে। তিনি বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের কে আসল কে নকল, এসব বিষয়ে অনেক ধরনের বিতর্ক হয়েছে। আজকের (গতকাল বৃহস্পতিবার) তালিকায় শুধু তাঁদের নামই প্রকাশ করা হয়েছে, যাঁদের বিষয়ে কখনো অভিযোগ ওঠেনি।

মন্ত্রী বলেন, যাঁদের বিষয়ে অভিযোগসহ অন্য ধরনের জটিলতা আছে, তাঁদের তালিকাসহ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো যাচাই-বাছাই করে আগামী জুন মাসের মধ্যে চূড়ান্তভাবে প্রকাশ করা হবে। সব মিলিয়ে মুক্তিযোদ্ধার প্রকৃত সংখ্যা এক লাখ ৭০ হাজার পার হবে বলে ধারণা দেন মন্ত্রী। তিনি আরো বলেন, নতুন করে মুক্তিযোদ্ধা হওয়ার জন্য কেউ কোনো আবেদন করতে পারবেন না। যাঁরা আবেদন করেছেন, এখন শুধু আপিল করা হবে, এরপর রিভিউ হবে।

একই সঙ্গে রাজাকারের তালিকা প্রকাশের জন্য নতুন আইন পাস হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন মন্ত্রী।

মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকায় শীর্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দীন আহমদ, এম মনসুর আলী ও এ এইচ এম কামারুজ্জামানের নাম রাখা হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত তালিকায় বিভাগওয়ারি মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা তুলে ধরা হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকা বিভাগে ৩৭ হাজার ৩৮৭ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৩০ হাজার ৫৩ জন, বরিশাল বিভাগে ১২ হাজার ৫৬৩ জন, খুলনা বিভাগে ১৭ হাজার ৬৩০ জন, ময়মনসিংহ বিভাগে ১০ হাজার ৫৮৮ জন, রাজশাহী বিভাগে ১৩ হাজার ৮৯৯ জন, রংপুর বিভাগে ১৫ হাজার ১৫৮ জন ও সিলেট বিভাগে ১০ হাজার ২৬৪ জন।

মন্ত্রী জানান, দেশের প্রখ্যাত গবেষকদের নিয়ে একটি কমিটি করে তাঁদের সুপারিশের ভিত্তিতে ১৯১ জন শহীদ বুদ্ধিজীবীর তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। যাচাই-বাছাই শেষে ধাপে ধাপে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আরো তালিকা প্রকাশ করা হবে।

বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তালিকায় জিয়াউর রহমান, খন্দকার মোশতাকসহ বঙ্গবন্ধুর খুনিদের নাম আছে জানিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, যেসব মুক্তিযোদ্ধা জাতির পিতাকে হত্যাসহ মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিরুদ্ধে কাজ করেছেন, তাঁদের নামের পাশে সেসব কার্যক্রমের কথা লেখা থাকবে।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com