রবিবার, ২০ Jun ২০২১, ০৩:৪৩ পূর্বাহ্ন

ছাত্রাবাসের নিয়ন্ত্রন নেয়াকে কেন্দ্রকরে বগুড়ায় ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর দিনেই কলেজ চত্বরে আধিপত্য বিস্তার এবং ছাত্রাবাসের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার (২৬ মার্চ) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজ চত্বরে এঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কলেজ চত্বরে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
জানা যায়, মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে শুক্রবার সকাল থেকেই আজিজুল হক কলেজ চত্বরে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সমবেত হন। কলেজ চত্বরে ছাত্রলীগের কর্মী আরিফের সাথে অপর এক কর্মী ইমরানের তর্ক বিতর্কের জের ধরে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

উল্লেখ্য, গত ১১ মার্চ রাতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ হয়। এতে জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তাকবির ইসলাম খানসহ দুই গ্রুপের ৯ জন আহত হয়। আহতদের চিকিৎসার জন্য বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ঘটনার পাঁচ দিন পর ১৬ মার্চ শজিমেক হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তাকবির।

সংঘর্ষের পর ১৩ মার্চ দুইগ্রুপের পক্ষ থেকে সদর থানায় পাল্টাপাল্টি পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করা হয়। তাকবিরের মা আফরোজা ইসলাম বাদী হয়ে বগুড়া আজিজুল হক কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রউফসহ ৭ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করেন। অপরদিকে আজিজুল হক কলেজ ছাত্রলীগ নেতা সোহাগ হাসান বাদী হয়ে তাকবীরসহ ১২ জনের নাম উল্লেখ করে ও আরও ২০ থেকে ২৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে মামলা করেন।

মামলার পর থেকেই সরকারি আজিজুল হক কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রউফ ও তার সহযোগীরা পলাতক রয়েছেন। এই সুযোগে আজিজুল হক কলেজ সংলগ্ন পুরান বগুড়া এলাকায় রউফের নিয়ন্ত্রণে থাকা ছাত্রাবাসগুলো দখলে নিতে মরিয়া হয়ে উঠে একটি পক্ষ। এনিয়ে গত কয়েকদিন ধরে উত্তেজনা চলে আসছিল। তার জের ধরেই শুক্রবার সকালে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।
বগুড়া সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানান, ছাত্রাবাসের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। বর্তমানে কলেজ চত্বরে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com