Home / সারাদেশ / বগুড়া / বন্ধ, সকল রাষ্ট্রীয় পাটকল চালু ও আধুনিকায়নের দাবিতে বাম গণতান্ত্রিক জোট বগুড়া জেলার উদ্যোগে তিনমাথা রেলগেটে অবস্থান কর্মসূচী পালিত

বন্ধ, সকল রাষ্ট্রীয় পাটকল চালু ও আধুনিকায়নের দাবিতে বাম গণতান্ত্রিক জোট বগুড়া জেলার উদ্যোগে তিনমাথা রেলগেটে অবস্থান কর্মসূচী পালিত

বগুড়া প্রতিনিধিঃ আজ ১৯ অক্টোবর’২০ বেলা ১১:৩০টায় বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে বগুড়া জেলার উদ্যোগে সকল রাষ্ট্রীয় পাটকল চালু ও
আধুনিকায়ন করা, শ্রমিকদের সকল বকেয়া পরিশোধ, লোকসানের জন্য দায়ী মন্ত্রণালয় ও বিজেএমসির কর্মকর্তাদের বিচার, সরকারি-বেসরকারি সকল পাটকলে জাতীয়
ন্যূনতম মজুরি ঘোষণার দাবিতে বগুড়া তিনমাথায় রাজপথে অবস্থান কর্মসূচী পালিত হয়।
অবস্থান কর্মসূচী চলাকালে সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বাসদ জেলা আহ্বায়ক, বাম গণতান্ত্রিক জোট বগুড়া জেলা সমন্বয়ক অ্যাড. সাইফুল ইসলাম
পল্টু। বক্তব্য রাখেন সিপিবি জেলা সভাপতি জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না, বাসদ জেলা সদস্য সচিব সাইফুজ্জামান টুটুল, টিইউসি জেলা সহ-সভাপতি ফজলুর
রহমান, সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম বগুড়া জেলা আহ্বায়ক দিলরুবা নূরী, শ্রমিক ফ্রন্ট জেলা দফতর সম্পাদক শ্যাম্ল বর্মন, ছাত্র ফ্রন্ট জেলা সভাপতি
ধনঞ্জয় বর্মন, ছাত্র ইউনিয়ন সাঃ সম্পাদক সোহানুর রহমান। সমাবেশ পরিচালনা করেন সিপিবি জেলা সহ-সাধারণ সম্পাদক।

সমাবেশের সভাপতি অ্যাড. সাইফুল ইসলাম পল্টু বলেন, ‘আওয়ামী ফ্যাসিবাদী সরকার পাটকল বন্ধ করেছে, ১৫টি চিনিকল বন্ধের পাঁয়তারা করছে। রাষ্ট্রায়ত্ব
সকল প্রতিষ্ঠান ব্যক্তিখাতে ছেড়ে দেয়ার পরিকল্পনা করছে। এই সরকারের আমলে দুর্নীতি, লুটপাট, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি, নারী-শিশু নির্যাতন-ধর্ষণ সকল রেকর্ড ছাড়িয়েছে।
ফলে বর্তমান সরকারের কাছে দেশ-জাতি ও জনগণ নিরাপদ নয়’।
সমাবেশে জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না বলেন, ‘করোনা মহামারিতে পুরো দেশের মানুষের জীবন ও জীবিকা বিপন্ন। ঠিক এ সময়েই বাংলাদেশের রাষ্ট্রায়ত্ত ২৫টি পাটকল
বন্ধ করে স্থায়ী ও অস্থায়ী মিলে প্রায় ৫১ হাজার শ্রমিককে বেকার করে দিয়েছে আওয়ামী ফ্যাসিবাদী সরকার। এই দুর্যোগে সারা দুনিয়ায় যেখানে নানা প্রণোদনা দিয়ে
মানুষের জীবিকা রক্ষার চেষ্টা চলছে, সেখানে বাংলাদেশে করোনা মহামারির এই দুর্যোগের মধ্যে সোনালী আঁশের ঐতিহ্যবাহী পাটকল বন্ধ করে দিয়েছে। জনগণের
পাটকল দেশি-বিদেশী লুটেরাদের কাছে বিক্রি করার পাঁয়তারা করছে সরকার’।
অন্যান্য বক্তাগণ বলেন, বিশ্বব্যাপী পাট ও পাটজাত পণ্যের চাহিদা বাড়ছে বিপুলভাবে। বক্তাগণ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল বন্ধের পেছনে সরকারের
বড় অজুহাত লোকসান। কিন্তু কেন লোকসান, কাদের কারণে লোকসান, লোকসান বন্ধ করতে কী কী উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল? সে সব প্রশ্নের কোন উত্তর নেই। সরকার
মাথা ব্যথায় ওষুধ না দিয়ে মাথা কেটে ফেলার ব্যবস্থা করছে।
বক্তাগণ বলেন, আমরা বার বার বলেছি লোকসানের জন্য দায়ী সরকারের ভুলনীতি, দুর্নীতি এবং লুটপাট। সময়মত পাট কেনার টাকা না দেয়া, পরবর্তীতে বেশি দামে
নিম্নমানের পাট কেনা, ৫০/ ৬০ বছরের পুরনো তাঁত দিয়ে উৎপাদন করা, বিজেএমসি’র মাথাভারি প্রশাসনের ব্যয় ইত্যাদি হলো লোকসানের প্রধান কারণ।
বক্তাগণ আরো বলেন, ২৫টি পাটকলের ১০ হাজার তাঁতের মধ্যে অর্ধেকই অচল, ফলে অচল ও পুরনো যন্ত্রপাতি আধুনিকায়ন না করে পাটকল লাভজনক করা যাবে না।
বাম জোট ও স্কপের পক্ষ থেকে হিসেব করে দেখানো হয়েছে ১ হাজার ২০০ কোটি টাকা খরচ করে আধুনিক তাঁত স্থাপন করলে উৎপাদন বাড়বে তিনগুণ, শ্রমিকদের গড়ে
২৫ হাজার টাকা বেতন দিয়েও পাটকল লাভজনক করা সম্ভব। কিন্তু সরকার সে পথে না গিয়ে ৫ হাজার কোটি টাকা খরচ করে দেশী-বিদেশী লুটেরাদের স্বার্থে কারখানা
বন্ধ করে শ্রমিক ছাঁটাই করার পদক্ষেপ নিয়েছে। বক্তাগণ বলেন, রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল বন্ধের ফলে সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত হবেন স্থায়ী-অস্থায়ী মিলে ৫১ হাজার পাটকল শ্রমিক,
৪০ লাখ পাটচাষি, পাট ও পাটশিল্পের সাথে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে যুক্ত প্রায় ৪ কোটি মানুষ। বন্ধ হওয়ায় সরকারি পাটকল আর পাট কিনবে না। এ সুযোগে বেসরকারি
পাটকলগুলো সিন্ডিকেট করে ইচ্ছেমতো পাটের দাম নিয়ন্ত্রণ করবে। এতে পাটচাষীরা পাটের ন্যায্য দাম থেকে বঞ্চিত হবে। পাটকল বন্ধ হওয়ায় ভারতে কাঁচা পাট পাচার
আরও বাড়বে। ক্ষতিগ্রস্ত হবে দেশের সামগ্রিক অর্থনীতি। পাট বাংলাদেশের একটি স্থায়ী শিল্পের ভিত্তি রচনা করেছিল, যার কাঁচামাল দেশে উৎপাদিত হয়, সস্তা শ্রম শক্তিও
দেশের, উৎপাদিত পণ্য দেশের চাহিদা পূরণ করার পরও রপ্তানি করে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জিত হয়। সেই শিল্প অর্থনীতি ও শ্রমিক কৃষকের স্বার্থ রক্ষায় পাটকল বন্ধের
গণবিরোধী সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে অবিলম্বে চালুর দাবি জানান নেতৃবৃন্দ।বক্তাগণ বলেন, এই সরকার আকণ্ঠ দুর্নীতিতে নিমজ্জিত। ভোট ডাকাতির সরকারের দেশ ও
জনগণের প্রতি কোন দায় নাই, ফলে দেশ ও জাতীয় স্বার্থের বিরুদ্ধে একের পর এক পদক্ষেপ নিচ্ছে। নেতৃবৃন্দ রাষ্ট্রীয় পাটকলসহ সকল রাষ্ট্রীয় সম্পদ রক্ষার্থে ঐক্যবদ্ধ
গণআন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

Check Also

করোনায় আক্রান্ত এমপি সাহাদারা মান্নান হাসপাতালে ভর্তি

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়া-১ (সারিয়াকান্দি- সোনাতলা) আসনের সংসদ সদস্য, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির …

error: Content is protected !!
%d bloggers like this:

Powered by themekiller.com