Breaking News
Home / জাতীয় / পঞ্চগড়-ঢাকা আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিসে আসন নিয়ে অসন্তোষ

পঞ্চগড়-ঢাকা আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিসে আসন নিয়ে অসন্তোষ

যমুনা নিউজ বিডি: দীর্ঘদিনের দাবি, আন্দোলন আর প্রতীক্ষার পর পঞ্চগড়-ঢাকা আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিস চালু হয়েছে। শনিবার সকালে পঞ্চগড় রেলওয়ে স্টেশনে আনুষ্ঠানিকভাবে এর উদ্বোধন করা হয়। আন্তঃনগর ট্রেনের উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে পুরো স্টেশনজুড়ে উৎসবের আমেজ তৈরি হয়।

সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা ছাড়াও সব শ্রেণি-পেশার মানুষ এক পলক আন্তঃনগর ট্রেন দেখতে জড়ো হয় স্টেশনে। ফিতা কেটে এবং সবুজ পতাকা নাড়িয়ে আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিসের উদ্বোধন করেন রেল মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আবুল কালাম আজাদ। এ সময় যাত্রীদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

এ সময় অন্যদের মধ্যে বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক কাজী মো. রফিকুল আলম, পঞ্চগড় ২ আসনের সাংসদ অ্যাডভোকেট নূরুল ইসলাম সুজন, পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন, পুলিশ সুপার গিয়াস উদ্দিন আহমদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ গোলাম আজমসহ প্রশাসন ও রেল বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে আন্তঃনগর ট্রেন চালু হওয়ায় সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আনন্দ শোভাযাত্রা করেছে জেলা নাগরিক কমিটি। এ ছাড়া জেলা প্রশাসন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে।
এই রেল যোগাযোগের মাধ্যমে রাজধানী ঢাকার সাথে দেশের সর্ব উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ের রেল যোগাযোগে নতুন মাত্রা যোগ হলো। যোগাযোগ ব্যবস্থার নতুন মাত্রার সাথে সাথে এই রেল যোগাযোগ জেলার আর্থসামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

নতুন ট্রেন না মিললেও দিনাজপুর থেকে ঢাকাগামী একতা ও দ্রুতযান এক্সপ্রেস ট্রেন দুটি এখন পঞ্চগড় থেকে ঢাকা চলাচল করবে। এটিই এখন দেশের দীর্ঘতম রেলপথ। তবে ১০ লাখেরও বেশি জনসংখ্যার এ জেলার জন্য ট্রেন দুটিতে আসন রয়েছে মাত্র ৩৫টি করে। তাই দীর্ঘদিন পর আন্তঃনগর ট্রেন চালু হওয়ায় যেমন উচ্ছ্বসিত পঞ্চগড়ের মানুষ তেমনি আসন বরাদ্দ কম থাকায় অসন্তোষও রয়েছে।

স্বাধীনাতাপূর্ব পঞ্চগড়ের জরাজীর্ণ রেলপথটি ২০১১ সালে দিনাজপুরের পার্বতীপুর থেকে পঞ্চগড় পর্যন্ত ১৫০ কিলোমিটার মিটারগেজ লাইন ডুয়েলগেজ রেললাইনে রূপান্তরসহ রেললাইন ও স্টেশন আধুনিকায়নে ৯৮২ কোটি টাকার একটি প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। কাজ শেষ হয় ২০১৬ সালে। রেললাইন আধুনিকায়নের পর থেকেই পঞ্চগড়ের মানুষের দাবি ছিল পঞ্চগড়-ঢাকা আন্তঃনগর ট্রেন চালুর।

এই দাবিতে তারা মানববন্ধন, রেলমার্চসহ বিভিন্ন কর্মসূচিও পালন করেছে। গত বছরের ১৭ জুন রেলমন্ত্রী মজিবুল হক পঞ্চগড় থেকে দিনাজপুর পর্যন্ত একতা ও দ্রুতযান এক্সপ্রেসের দুটি শাটল ট্রেন পঞ্চগড় উদ্বোধন করেন। দীর্ঘ অপেক্ষার পর পঞ্চগড় একতা ও দ্রুতযান এক্সপ্রেস চালু হলো। দ্রুতযান এক্সপ্রেস পঞ্চগড় স্টেশন থেকে প্রতিদিন সকাল ৭টা ২০ মিনিটে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাবে। প্রায় ৬৩৯ কিলোমিটার পথে ২২টি স্টেশনে যাত্রাবিরতি করে ঢাকায় পৌঁছাবে সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিটে। আবার দুই ঘণ্টা বিরতির পর এই ট্রেনটি রাত ৮টায় ঢাকা থেকে ছেড়ে পরদিন সকাল সাড়ে ৬টায় পঞ্চগড় পৌঁছাবে। একতা এক্সপ্রেস সকাল ১০টায় ঢাকা থেকে ছেড়ে রাত ৮টা ৪৫ মিনিটে পঞ্চগড় পৌঁছবে। রাত ৯টায় পঞ্চগড় থেকে ছেড়ে পরদিন সকাল ৮টা ১০ মিনিটে ঢাকা পৌঁছাবে।

ঢাকা থেকে পঞ্চগড় পর্যন্ত দ্রুতযান ও একতায় শীতাতপনিয়ন্ত্রিত (এসি) বাথের ভাড়া ১৯৪২ টাকা, এসি চেয়ারের ভাড়া ১০৫৩ টাকা, নন এসি বাথের ভাড়া ১১৪৫ টাকা এবং শোভন চেয়ারের ভাড়া ৫৫০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এই দুই ট্রেনে ১৩টি করে বগি রয়েছে। একতা এক্সপ্রেসে ৮৯৪ এবং দ্রুতযানে মোট ৯৪৪টি আসন রয়েছে। এসব ট্রেনে ১২০০ পর্যন্ত যাত্রী যাতায়াত করতে পারবেন। তবে পঞ্চগড় জেলার জন্য দুই ট্রেনে মাত্র ৩৫টি করে শোভন চেয়ার, ৫টি এসি চেয়ার এবং ১টি দুজনের নন এসি বাথ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যা চাহিদার তুলনায় অতি নগন্য। এ নিয়ে অসন্তোষ রয়েই গেছে সাধারণ মানুষের মাঝে।

পঞ্চগড় ২ আসনের সাংসদ অ্যাডভোকেট নূরুল ইসলাম সুজন জানান, আমাদের জন্য আন্তঃনগর ট্রেনে যে আসন বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে তা খুবই কম। আমি রেল মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্টদের পঞ্চগড়ের জন্য আসন বাড়ানোর দাবি জানাচ্ছি।

রেল মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. আবুল কালাম আজাদ জানান, আমাদের ১৩৫০ নতুন বগি আসছে। তখন এখানে বগির সংখ্যা বাড়বে, রেলের সংখ্যাও বাড়বে।

Check Also

শিবগঞ্জের মাঝিহট্টে প্রতিপক্ষের মারপিটে দুই জন আহত অতঃপর থানায় অভিযোগ

যমুনা নিউজ বিডি: বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার মাঝিহট্টে প্রতিপক্ষের মারপিটে মহিলাসহ আহত-২ অতঃ পর থানায় অভিযোগ। অভিযোগ …

Powered by themekiller.com