Home / সারাদেশ / চকরিয়া-পেকুয়ার মানুষের স্বপ্ন এবার পূরণ হবে: জাফর আলম

চকরিয়া-পেকুয়ার মানুষের স্বপ্ন এবার পূরণ হবে: জাফর আলম

যমুনা নিউজ বিডি: আনুষ্ঠানিক নির্বাচনী প্রচারণা শুরু না হলেও কক্সবাজার-১ তথা চকরিয়া-পেকুয়া আসনে নির্বাচনের যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করার কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে নেওয়া হচ্ছে। প্রতিদিন সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চকরিয়া, পেকুয়া, মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা এবং পৌরসভার ওয়ার্ড পর্যায় পর্যন্ত দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে নির্বাচনী প্রস্তুতিসভা ও দলীয় কর্মীদের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে। এসব প্রস্তুতি সভায় আওয়ামী লীগ তথা মহাজোট প্রার্থী আলহাজ্ব জাফর আলমসহ দলীয় সিনিয়র নেতারাও উপস্থিত হচ্ছেন।

এ প্রসঙ্গে মহাজোট প্রার্থী জাফর আলম বলেন, চকরিয়া-পেকুয়ার মানুষের স্বপ্ন এবার নৌকাকে বিপুল ভোটে জয়ী করে এই আসনটি শেখ হাসিনাকে উপহার দেওয়া। তাই দল থেকে আমাকে প্রার্থী করায় জননেত্রী শেখ হাসিনাকে এই আসনটি উপহার দেওয়ার জন্য কাজ করে যাচ্ছি। আশা করছি, জয় এবার অবশ্যই নৌকার হবে।

আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ ৮ প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা

এদিকে কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনে এমপি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে দাখিল করা ৮ জন প্রার্থীর সকলকেই বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

আজ রবিবার জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন মনোনয়ন পত্র যাচাই-বাছাই শেষে এসব প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বৈধ বলে ঘোষণা করেন। এর মধ্য দিয়ে নির্বাচনে এই আসনে আওয়ামী লীগ তথা মহাজোট, বিএনপি তথা ঐক্যফ্রন্ট ও জাতীয় পার্টিসহ ৮ প্রার্থীই নির্বাচনে মাঠে রয়েছেন। তবে মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের শেষদিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে কেউ প্রার্থীতা প্রত্যাহার করছেন কী-না। এর পর চূড়ান্তভাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অবতীর্ণ হবেন প্রার্থীরা।

মনোনয়ন পত্র বৈধ হওয়া ৮ প্রার্থী হলেন আওয়ামী লীগ তথা মহাজোট মনোনীত প্রার্থী চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ জাফর আলম, বিএনপি তথা ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী সাবেক এমপি হাসিনা আহমেদ, জাতীয় পার্টির প্রার্থী ও বর্তমান এমপি মৌলভী মোহাম্মদ ইলিয়াছ, ওয়ার্কার্স পার্টির প্রার্থী আবু মো. বশিরুল আলম, জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলনের (এনডিএম) প্রার্থী ফয়সাল চৌধুরী, ইসলামী শাসনতন্ত্রের আলী আজগর। এ ছাড়াও দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী হলেন বদিউল আলম ও তানিয়া আফরিন।

এদিকে আওয়ামী লীগ তথা মহাজোটের প্রার্থী আলহাজ্ব জাফর আলমের মনোনয়নপত্র বৈধ হওয়ার খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে খুশিতে আত্মহারা হয়ে পড়েন অনেকে। তাৎক্ষণিক হৈ-হুল্লোরে মেতে ওঠেন দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকেরা। রিটার্নিং অফিসার কর্তৃক জাফর আলমের প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণার খবরটি একে অপরকে মুঠোফোনে ছড়িয়ে দেন।

এ প্রসঙ্গে চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও শ্রমিকনেতা ফজলুল করিম সাঈদী, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু কালের কণ্ঠকে বলেন, সকাল থেকেই দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের দৃষ্টি ছিল জেলা রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ের দিকে। কেননা স্বাধীনতার পর এই প্রথম জাফর আলমকে একজন যোগ্য প্রার্থী হিসেবে পেয়ে আমরা স্বপ্ন দেখছি এবারের নির্বাচনে কক্সবাজার-১ আসনটি জননেত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দিতে। তাই নির্বাচনের কয়েকটি ধাপের মধ্যে মনোনয়নপত্র বৈধ হওয়ার বিষয়টি একটি আনন্দের। এজন্য নেতাকর্মী ও সাধারণ জনতার দৃষ্টি ছিল জাফর ভাইয়ের মনোনয়ন পত্র বৈধ হচ্ছে কীনা।

Check Also

শার্শা সীমান্ত থেকে ইয়াবাসহ যুবক আটক

যমুনা নিউজ বিডি : যশোরের শার্শা থানার অগ্রভুলাট সীমান্ত থেকে ১ হাজার ৯০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ …

Powered by themekiller.com