July 16, 2024, 7:23 am

হবিগঞ্জের ৫১ ইউনিয়নের মানুষ পানিবন্দি

হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের ৯টি উপজেলার মধ্যে ৭টি উপজেলা বন্যা কবলিত। হবিগঞ্জের নদীগুলির পানি কমলেও হাওড় এলাকার মানুষ এখনও পানিবন্দি। তবে জেলার ৭৮টি ইউনিয়নের মধ্যে ৫১টি ইউনিয়নের মানুষ এখনও প্লাবিত। পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়, বন্যা পরিস্থিতির ক্রমশ উন্নতি হচ্ছে। সরকারি সহায়তার পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান ত্রাণ কার্য চালিয়ে যাচ্ছে। আজমিরীগঞ্জ উপজেলার কাটাখালী গ্রামের বাসিন্দা প্রসেনজিত জানায় আজমিরীগঞ্জ সদরের অবস্থা বেশী খারাপ। তবে বর্তমানে পানি স্থিতিশীল রয়েছে। এছাড়া উপদ্রুত এলাকায় সাপ আতংক রয়েছে। বিদ্যুৎ প্রায় ২ ঘণ্টার জন্য দেওয়া হয় এবং নেটওয়ার্ক পাওয়া যায় না।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বানভাসি মানুষের জন্য ১০ লাখ টাকা, ২২৫ মেট্রিক টন চাল এবং ২ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার বরাদ্দ করেছে জেলা প্রশাসন। মাঠে কাজ করছে ৩০টি মেডিক্যাল টিম।

পানিতে ১৬ হাজার ৩৬৮ হেক্টর আউশ, ১৪ হাজার ৬৬০ হেক্টর বোনা আমন, ১ হাজার ৯১৫ হেক্টর জমির সবজি এবং ৫০ হেক্টর অন্যান্য ফসলের জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

জেলায় ২৫৩টি আশ্রয় কেন্দ্রে উঠেছেন ২০ হাজার ৪৬৩ জন। এদের মধ্যে ৭ হাজার ৭৪৯ জন পুরুষ, ৭ হাজার ৫৪৮ জন নারী, ৪ হাজার ৯৬৬ জন শিশু ও ২০০ জন প্রতিবন্ধী। সরকারি হিসেবে পানিবন্দি অবস্থায় জীবনযাপন করছে ২৩ হাজার ৫৩৫টি পরিবার এবং ক্ষতিগ্রস্ত লোক সংখ্যা ৮০ হাজার ৩২০ জন। সবশেষ খবরে জানা যায় আজমিরীগঞ্জে ১টি পৌরসভা ও ৫টি ইউনিয়ন, নবীগঞ্জে ১২, বানিয়াচংয়ে ১৫, লাখাইয়ে ৬, হবিগঞ্জ সদরে ৬, মাধবপুরে ৫ এবং বাহুবল উপজেলার ১টি ইউনিয়ন বন্যাকবলিত হয়েছে।

হবিগঞ্জ জেলার বন্যা কবলিত ৪টি উপজেলায় ৬০ হাজার পরিবারে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রেখেছে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি। যে কারণে পানিবন্দি পরিবারগুলো দুর্ভোগে পড়েছেন। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি কর্তৃপক্ষ জানায়, বন্যা কবলিত এলাকায় সংযোগ সচল থাকলে দুর্ঘটনার শঙ্কা রয়েছে। তাই প্রাণহানী এড়াতে সংযোগ বন্ধ রাখা হয়েছে। যন্ত্রপাতি বিকল থাকার কারণে কিছু এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক করা যাচ্ছে না ।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © jamunanewsbd.com
Design, Developed & Hosted BY ALL IT BD