সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ১১:২৪ অপরাহ্ন

ছাতকে ১০ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হলেন যারা

যমুনা নিউজ বিডিঃ ছাতকের ১০ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৬টি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থীদের ভরাডুবি হয়েছে। মাত্র ৪ ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। বাকী ৭টির মধ্যে বিদ্রোহী ৩, বিএনপি ২ এবং ১টি ইউনিয়নে জামায়াত সমর্থীত প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। এখানের ১০টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৫১জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। প্রতিটি ইউনিয়নেই আওয়ামীলীগের একাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় নৌকার প্রার্থীদের এমন ভরাডুবি হয়েছে। কোন-কোন ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থীদের অবস্থান ছিল ৩য় স্থানে। বিগত নির্বাচনে উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের ৯টি ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী, ৩টি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এবং ১টি ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থী বিজয়ী হয়েছিলেন। চলতি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ১ম দফায় ৩টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে ২টিতে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী এবং ১টি ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী বিজয়ী হয়। ১১ নভেম্বর ২য় দফা ইউপি নির্বাচনে ছাতক সদর ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম (আনারস) ৩হাজার ১৪৩ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী রঞ্জন কুমার দাস (নৌকা) পেয়েছেন ২হাজার ৭৪৩ ভোট। খুরমা উত্তর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান বিল¬াল আহমদ (নৌকা) ৪হাজার ৬৩৭ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। এ নিয়ে তিনি টানা ৩য় বারের মতো চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি শামছুল ইসলাম খাঁ (আনারস) পেয়েছেন ৩ হাজার ৭৭৯ ভোট। কালারুকা ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান অদুদ আলম (নৌকা) ৯ হাজার ৭৬ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আশরাফুল আলম (আনারস) পেয়েছেন ৬ হাজার ৪২৭ ভোট। ছৈলা-আফজলাবাদ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী গয়াছ আহমদ (নৌকা) ৫হাজার ৯২২ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে বিজয়ী হয়েছেন। এ ইউনিয়নে তার নিকতম প্রতিদ্বন্দ্বি ছিলেন নানু মিয়া তার প্রাপ্ত ভোট ৫হাজার ২০ ভোট। জাউয়াবাজার ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান মেম্বার আব্দুল হক (ঘোড়া) ৪ হাজার ১৮২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী নূরুল ইসলাম (নৌকা) পেয়েছেন ৩হাজার ৪১১ ভোট। গোবিন্দগঞ্জ-সৈদেরগাঁও ইউনিয়নে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সুন্দর আলী (নৌকা)। তার প্রাপ্ত ভোট হল ৫হাজার ৪২৬ ভোট। নিকতম প্রতিদ্বন্দ্বি বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আখলাকুর রহমান পেয়েছেন ৪হাজার ৫৩২ ভোট। ইসলাপুর ইউনিয়নে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন সাবেক চেয়ারম্যান  জামায়াত নেতা এড. সুফী আলম সুহেল (টেলিফোন)। তার প্রাপ্ত ভোট হলো ৫হাজার ৪১৭। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মাওলানা আকিক হোসাইন (চশমা) পেয়েছেন ৪হাজার ৪৭৬ ভোট। চরমহল্লা ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আবুল হাসনাত মোটরসাইকেল) বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ছিলেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা কদর মিয়া (নৌকা)। দোলারবাজার ইউনিয়নে বিএনপি নেতা নূরুল আলম (চশমা) বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আমির উদ্দিন (মোটরসাইকেল) ছিলেন তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি।

এছাড়া দক্ষিণ খুরমা ইউনিয়নে নানা নাটকীয়তা শেষে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আবু বকর (ঘোড়া)কে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়েছে। তার প্রাপ্ত ভোট ২হাজার ৮২৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিদ্রোহী প্রার্থী জয়নাল আবেদীন (টেলিফোন) পেয়েছেন ২ হাজার ৭৭৪ ভোট। এসব নির্বাচনী ফলাফল উপজেলা সম্মেলন কক্ষ এবং স্ব স্ব রিটানিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com