বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:১৭ পূর্বাহ্ন

News Headline :
মিলনের সুস্থতা কামনা করে বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের বিবৃতি বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি দাবীতে বগুড়ার কাগইলে মশাল মিছিল বুড়িচংয়ে এক ইউনিভার্সিটির ছাত্রের গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা  সকল নেতাকর্মীর দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে চলা উচিত- মজিবর রহমান মজনু বগুড়া আ. হক কলেজের শিক্ষক পরিষদের নির্বাচনে জয়ী হলেন যারা নন্দীগ্রামে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্রুপের ৭শ’ সদস্যর মাঝে আর্থিক অনুদান প্রদান বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ সভাপতি রফিক ভূঁইয়ার স্মরণ সভা প্রথম স্থান অর্জন গম ও ভুট্টা গবেষণা ইনস্টিটিউটের কাল থেকে পলিথিনমুক্ত হচ্ছে চট্টগ্রামের তিন কাঁচাবাজার

ইকবাল সন্দেহে আটক যুবক কক্সবাজার থেকে কুমিল্লা পুলিশ লাইনসে নেওয়া হয়েছে

যমুনা নিউজ বিডিঃ  কুমিল্লা শহরের নানুয়া দিঘীর পাড়ের পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখার ঘটনায় ইকবাল হোসেন সন্দেহে এক যুবককে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে কক্সবাজার থেকে আটক করা হয়। এরই মধ্যে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার কার্যালয় থেকে আজ শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে তাঁকে কুমিল্লা পুলিশ লাইনসে নেওয়া হয়েছে। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, আটক ওই যুবকই ইকবাল হোসেন। এ ব্যাপারে বিস্তারিত পরে জানানো হবে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

এর আগে আজ ভোর সাড়ে ৬টার দিকে কক্সবাজার থেকে কড়া নিরাপত্তার মাধ্যমে ওই যুবককে নিয়ে কুমিল্লার উদ্দেশে রওনা দেয় পুলিশ।

কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) এম তানভীর আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, আমরা তাঁকে (ইকবাল সন্দেহে আটক যুবক) রিসিভ করেছি। এখন তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। যে প্রোসেসগুলো আছে, সবকিছু শেষ করব। এরপর যথাসময়ে আপনাদের সবকিছু জানানো হবে। সবাই আপনারা সহযোগিতা করেছেন। এ ঘটনার কারণে জাতিগতভাবে আমাদের যে সমস্যা হয়ে গিয়েছিল, আমরা চাই সবাই সম্প্রীতি বজায় রাখব। আপনাদের সহযোগিতা আমাদের অনেক সাহস যুগিয়েছে।’

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজার সৈকত এলাকার সুগন্ধা পয়েন্ট থেকে ইকবাল সন্দেহে ওই যুবককে আটক করা হয়। এরপর গতকাল রাতে তাঁকে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়।

কক্সবাজার জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করে জানান, বৃহস্পতিবার রাতে এক যুবক সৈকত এলাকায় ঘোরাফেরা করার সময় জেলা পুলিশের একটি দল ইকবাল সন্দেহে তাঁকে আটক করে। এরপর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে নিয়ে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। আজ শুক্রবার ভোর ৫টার দিকে কুমিল্লা জেলা পুলিশের একটি দল কক্সবাজারে আসে। এরপর সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ইকবালকে কুমিল্লা জেলা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এরপরই কুমিল্লা জেলা পুলিশের ওই দল ইকবালকে নিয়ে কুমিল্লার পথে রওনা দেয়।

এ বিষয়ে কুমিল্লা জেলা পুলিশ আনুষ্ঠানিকভাবে গণমাধ্যমকে জানাবে বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com