রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১২:৩৯ অপরাহ্ন

বিচ্ছেদের ইঙ্গিত দিলেন শিল্পা!

যমুনা নিউজ বিডি: অভিনেত্রী শিল্পা শেঠি তার স্বামী রাজ কুন্দ্রার সঙ্গে আর এক ছাদে থাকবেন না বলে বি-টাউন পাড়ায় গুঞ্জন চলছে। এবার সেই আগুনে ঘি ঢাললেন নায়িকা নিজেই। শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) ইনস্টাগ্রামে একটি স্টোরি শেয়ার করেছেন শিল্পা। সেখানেই ‘সমাপ্তি’-র কথা বললেন রাজ কুন্দ্রার স্ত্রী।

অভিনেত্রী তার ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে একটি বইয়ের এক প্রচ্ছদের ছবি পোস্ট করেছেন। যার শিরোনাম, ‘নতুন সমাপ্তি’। তাতে ইংরেজি ভাষায় লেখা, ‘আমরা হয়তো বসে বসে অতীতের কথা ভেবে সময় নষ্ট করতে পারি। কী কী ভুল করেছি, কী কী ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছি, কাকে কষ্ট দিয়েছি, এ সব কিছু নিয়ে চিন্তা করতে পারি, কিন্তু অতীতে ফিরে গিয়ে সে সব বদলাতে পারব না। কিন্তু আমরা সামনে এগিয়ে যেতে পারি। ঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারি। পুরনো ভুলকে এড়িয়ে যেতে পারি। আশেপাশের মানুষের সঙ্গে ভালোভাবে থাকতে পারি। নিজেদের গুছিয়ে নেওয়ার অজস্র সুযোগ পাব আমরা। অতীতে যা করেছি, তার ভিত্তিতে নিজের পরিচয় তৈরি করার দরকার নেই। নিজের ভবিষ্যত নতুন করে তৈরি করতে পারি।’ ছবির সঙ্গে কেবল একটি লাল হৃদয়ের চিহ্ন জুড়ে দিয়েছেন শিল্পা। বিশেষ এই বইয়ের পাতার ছবি ইনস্টাগ্রামে তুলে ধরে কী বিশেষ কোনো বার্তা দিতে চাইলেন বলিউড তারকা? নাকি নিছক ভালোলাগার কয়েকটা লাইন ভাগ করে নিলেন অনুরাগীদের সঙ্গে? উত্তর অজানা। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, দিন তিনেক আগে রাজের নামে এক হাজার ৪০০ পাতার চার্জশিট পেশ করেছে মুম্বাই পুলিশের অপরাধ দমন শাখা। তারই একটি অংশে শিল্পার বয়ান লেখা হয়েছে। সেখান থেকে জানা গেছে, শিল্পা পুলিশকে জানিয়েছেন, রাজের অ্যাপ ‘হটশটস’ এবং ‘বলিফেম’ সম্পর্কে তার কাছে কোনো তথ্য ছিল না। শিল্পা বলেন, কাজের চাপে এমনই ব্যস্ত ছিলাম যে রাজ কী করছে সে সব খবর রাখতাম না।

পুলিশ জানিয়েছে, পর্নো বানিয়ে এই দু’টি অ্যাপের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিতেন রাজ। গুগল প্লে স্টোর এবং অ্যাপেল অ্যাপ স্টোর থেকে ‘হটশটস’ বাতিল করে দেওয়ার পর ‘বলিফেম’ তৈরি করা হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, গত ১৯ জুলাই পর্নো ভিডিও বানানো এবং বিভিন্ন অ্যাপের মাধ্যমে তা ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার হন ব্যবসায়ী রাজ কুন্দ্রা। তারপর থেকে নানাবিধ বিতর্ক সামলাচ্ছেন তার স্ত্রী শিল্পা এবং পরিবার।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com