শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৩৭ অপরাহ্ন

বিশ্বকাপে সাফল্যে আশাবাদী বাংলাদেশ

যমুনা নিউজ বিডিঃ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলতে হলে বাছাইপর্ব পার হতে হবে বাংলাদেশকে। মিশনটা কঠিন হলেও আসন্ন বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে নিয়ে স্বপ্ন দেখছেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। উজ্জ্বীবিত তরুণদের নিয়ে আসরে ভালো ফলের আশা করছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের অতীত পরিসংখ্যান খুব একটা সুখকর নয়। গেল আসরেও প্রথম রাউন্ডে সেরা হয়ে মূল পর্বে গিয়ে হতাশা করেছে। অবশ্য সময় বদলেছে, দলে এসেছে একঝাঁক নতুন মুখ। আছেন অভিজ্ঞরাও। তাই বিশ্বকাপে ভালো কিছুর আশা দেখছেন অধিনায়ক।

আজ মঙ্গলবার আসন্ন বিশ্বকাপের চূড়ান্ত সময়সূচি প্রকাশ করে আইসিসি। আসন্ন টুর্নামেন্টের দুই রাউন্ডে চারটি গ্রুপে ভাগ হয়ে লড়াই করবে দলগুলো। রাউন্ড ওয়ান ও সুপার টুয়েলভে মোট চারটি গ্রুপে ভাগ হয়ে খেলা হবে। সুপার টুয়েলভে সরাসরি আটটি দল খেলবে। আর রাউন্ড ওয়ানের গ্রুপ ‘এ’ ও গ্রুপ ‘বি’ থেকে চারটি দল সুপার টুয়েলভে যুক্ত হবে। বাংলাদেশকেও গ্রুপ ‘এ’ খেলে দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে হবে।

সূচি ঘোষণার দিন আইসিসির পাঠানো বিবৃতিতে বাংলাদেশ অধিনায়ক শোনালেন বিশ্বকাপ নিয়ে নিজের আশার কথা। তিনি বলেন, ‘এই টুর্নামেন্ট সব দলের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ, বিশেষ করে আমাদের জন্য। বিশ্বকাপের আগে আমরা কয়েকটি সিরিজ খেলছি। যদি আমরা এসব সিরিজে ভালো করতে পারি, আত্মবিশ্বাস অর্জন করতে পারি, সিরিজগুলো জিতে বিশ্বকাপে যেতে পারি, আমাদের দলের জন্য তা হবে দারুণ অনুপ্রেরণার।’

বিশ্বকাপে প্রতিটি ম্যাচই গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, ‘বিশ্বকাপের মতো আসরে প্রতিটি দলই গুরুত্বপূর্ণ। যার সঙ্গে খেলা হোক, একদম প্রথম বল থেকেই সেরাটা খেলতে হবে, সম্ভব সেরা মানসিক অবস্থায় থাকতে হবে এবং দলীয় প্রক্রিয়ায় পূর্ণ মনোযোগ ধরে রাখতে হবে যেন প্রতিটি ম্যাচ জেতা যায়।’

নিজের দল নিয়ে মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘আমাদের শক্তির জায়গা দলের অলরাউন্ডাররা এবং বোলিং বিভাগ। পাশাপাশি আমাদের ব্যাটিংও ভালো এবং দলের ভারসাম্য দারুণ। পাঁচ-ছয়জন অলরাউন্ডার আছে আমাদের, যারা ব্যাট-বল দুটিতেই অবদান রাখতে পারে। এই মুহূর্তে আমাদের পেসাররা অবিশ্বাস্য পারফর্ম করছে। স্পিন তো বরাবরই আমাদের শক্তি। তারা যদি কয়েকটি ম্যাচে নিজেদের মেলে ধরতে পারে, আশা করি আমরা ভালো কিছু ফল পাব। এ ছাড়া সকিব এক নম্বর অলরাউন্ডার এবং আমাদের দলের সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ। মুশফিকুর রহিম ও মুস্তাফিজুর রহমানও দলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আফিফ হোসেন, শামীম হোসেন, নুরুল হাসানের মতো অন্যরাও নিজের জন্য ও দলের জন্য ভালো করতে মুখিয়ে আছে এবং এই তরুণরা নজর কাড়ার মতো।’

আগামী ১৭ অক্টোবর বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ডের উদ্বোধনী দিনে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। প্রথম দিনে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ স্কটল্যান্ড। দ্বিতীয় রাউন্ড গড়াবে ২৩ অক্টোবর থেকে।

প্রথম পর্বের উদ্বোধনী দিনের প্রথম ম্যাচে ‘বি’ গ্রুপে পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে খেলবে স্বাগতিক ওমান। বাংলাদেশের দ্বিতীয় ম্যাচ ১৯ অক্টোবর, প্রতিপক্ষ ওমান। প্রথম পর্বে বাংলাদেশের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ ২১ অক্টোবর, ওমানের বিপক্ষে। প্রথম রাউন্ডের এই ম্যাচগুলো হবে ওমানের মাটিতে।

বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচটি হবে ১৪ নভেম্বর। তার আগে দুই গ্রুপের দুটি করে সেরা দল খেলবে দুটি সেমিফাইনালে। প্রথম সেমিফাইনাল ১০ নভেম্বর এবং দ্বিতীয় সেমিফাইনাল ১১ নভেম্বর। প্রথম সেমিতে লড়বে ‘এ’ গ্রুপের সেরা দল ও ‘বি’ গ্রুপের রানার্সআপ। আর দ্বিতীয় সেমিতে লড়বে ‘বি’ গ্রুপের সেরা দল ও ‘এ’ গ্রুপের রানার্সআপ। ম্যাচগুলো হবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com