রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:০৭ অপরাহ্ন

যে দুই দোয়া নামাজের শুরুতে পড়া সুন্নাত

যমুনা নিউজ বিডি ডেস্কঃ নামাজ ইসলামের প্রধান ইবাদত। প্রতিদিন ৫ ওয়াক্ত (নির্দিষ্ট নামাজের নির্দিষ্ট সময়) নামাজ পড়া প্রত্যেক মুসলমানের জন্য আবশ্যক বা ফরজ। নামাজ ইসলামের পঞ্চস্তম্ভের একটি। শাহাদাহ্‌ বা বিশ্বাসের পর নামাজই ইসলামের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভ।

রাসূলুল্লাহ (সা.) নামাজ পড়ার শুরুতে দোয়া পড়তেন। হাদিসের বর্ণনা থেকে এ সময় দুইটি দোয়া পড়ার কথা জানা যায়। মুসলিম উম্মাহ এ দোয়াকে ছানা হিসেবে জানে। রাসূলুল্লাহ (সা.) ছানা হিসেবে কী দোয়া পড়তেন?

নামাজের শুরুতে তাকবিরের পর সুরা পড়ার আগে কিছু সময় নিরব থেকে রাসূলুল্লাহ (সা.) দোয়া পড়তেন। হাদিসে এমন দুইটি দোয়া পড়ার বর্ণনা পাওয়া যায়। তাহলো-

১. হজরত আয়েশা রাদিয়াল্লাহু আনহা বর্ণনা করেন, রাসূলুল্লাহ (সা.) যখন নামজ শুরু করতেন তখন বলতেন-

سُبْحَانَكَ اللَّهُمَّ وَبِحَمْدِكَ وَتَبَارَكَ اسْمُكَ وَتَعَالَى جَدُّكَ وَلاَ إِلَهَ غَيْرُكَ ‏

উচ্চারণ : ‘সুবহানাকা আল্লাহুমা ওয়া বিহামদিকা ওয়া তাবারাকাসমুকা ওয়া ত’আলা জাদ্দুকা ওয়া লা ইলাহা গাইরুকা।’

অর্থ : হে আল্লাহ! মহিমা ও প্রশংসা আপনার। আপনার নাম বরকতময়। আপনার মহিমা সমুন্নত। আপনি ছাড়া সর্বোত্তম কোনো ইলাহ নেই।’ (ইবনে মাজাহ, তিরমিজি)

২. হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত রাসূলুল্লাহ (সা.) তাকবিরে তাহরিমা ও কেরাআত পড়ার মধ্যবর্তী সময়ে কিছুক্ষণ নিরব থাকতেন। আমি বললাম- হে আল্লাহর রাসূল! আমার বাবা-মা আপনার জন্য কোরবান হোক। (আপনি) তাকবির ও কেরাআতের মধ্যে চুপ থাকার সময় কী পাঠ করে থাকেন? রাসূলুল্লাহ (সা.) বললেন, এ সময় আমি বলি-

اللَّهُمَّ بَاعِدْ بَيْنِي وَبَيْنَ خَطَايَاىَ كَمَا بَاعَدْتَ بَيْنَ الْمَشْرِقِ وَالْمَغْرِبِ، اللَّهُمَّ نَقِّنِي مِنَ الْخَطَايَا كَمَا يُنَقَّى الثَّوْبُ الأَبْيَضُ مِنَ الدَّنَسِ، اللَّهُمَّ اغْسِلْ خَطَايَاىَ بِالْمَاءِ وَالثَّلْجِ وَالْبَرَدِ ‏

উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা বায়িদ বাইনি ওয়া বাইনা খাতাইয়াইয়া, কামা বাআদ্তা বাইনাল মাশরিক্বি ওয়াল মাগরিবি; আল্লাহুম্মা নাক্কিনি মিন খাতাইয়াইয়া কামা ইউনাক্কাছ্ ছাওবুল আবইয়াদু মিনাদ্দানাসি, আল্লাহুম্মাগসিলনি মিন খাতাইয়াইয়া বিল মায়ি, ওয়াছ্ছালজি, ওয়াল বারাদি।’

অর্থ : ‘হে আল্লাহ্! তুমি আমাকে আমার পাপগুলো থেকে এত দূরে রাখ যেমন পূর্ব ও পশ্চিম পরস্পরকে পরস্পর থেকে দূরে রেখেছ। হে আল্লাহ্! তুমি আমাকে আমার পাপ হতে এমন ভাবে পরিষ্কার করে দাও, যেমন সাদা কাপড়কে ময়লা হতে পরিষ্কার করা হয়। হে আল্লাহ্! তুমি আমাকে আমার পাপ হতে (পবিত্র করার জন্য) পানি, বরফ ও শিশির দ্বারা ধুয়ে পরিষ্কার করে দাও।’ (বুখারি ও মুসলিম)

সুতরাং নামাজ ফরজ, ওয়াজিব, সুন্নাত কিংবা নফল হোক; তাকবিরের পর সুরা শুরু করার আগে উল্লেখিত যে কোনো একটি দোয়া পড়া সুন্নাত আমল।

আল্লাহ তায়ালা মুসলিম উম্মাহকে নামাজ শুরু করার পর এ দুইটি দোয়ার যে কোনো একটি পড়ার মাধ্যমে সুন্নাতের ওপর আমল করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com