মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:০৪ অপরাহ্ন

নিমরোজ প্রদেশের রাজধানী দখল করল তালিবান

যমুনা নিউজ বিডিঃ আফগানিস্তানের দক্ষিন-পশিমাঞ্চলের নিমরোজ প্রদেশের রাজধানী জারাঞ্জ দখলে নিয়েছে সশস্ত্রগোষ্ঠি তালিবানরা। শুক্রবার (৬ আগস্ট) বিকালে বিবিসি বলেছে, মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পর তালিবান প্রথম কোনো প্রাদেশিক রাজধানীর দখল নিল। দুটি সূত্রের বরাত দিয়ে বিবিসির অনলাইন প্রতিবেদনে এমন খবর জানানো হলেও আফগানিস্তান সরকারের পক্ষ থেকে বিষয়টি স্বীকার করা হয়নি। তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিষয়টি স্বীকার করেছেন স্থানীয় একজন পুলিশ কর্মকর্তা।

টুইটারে পোস্ট দিয়ে তালিবানও জারাঞ্জ বিজয়ের দাবি করেছে। সরকারি বাহিনীর সঙ্গে লড়াইরত তালিবানের এক কমান্ডার রয়টার্সকে বলেছেন, ‘এটা তো কেবল শুরু। এখন শুধু দেখবেন কত দ্রুত অন্যান্য প্রদেশগুলোর পতন ঘটে আমাদের হাতে।’ বিবিসির প্রতিবেদনে এই খবর জানিয়ে বলা হচ্ছে, জারাঞ্জ হচ্ছে ইরান সীমান্তের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বাণিজ্য কেন্দ্র। এই শহরের চারদিকের এলাকা দখল করে নেওয়ার পর তালিবান যারানজ দখলের জন্য অবিরাম হামলা চালিয়ে যাচ্ছিল। তালিবানের হাতে জারাঞ্জের পতনের বিষয়টি স্বীকার না করে আশরাফ গনি নেতৃত্বাধীন আফগান সরকারের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, তালিবানের বিরুদ্ধে এখনো জারাঞ্জে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে কাবুল সরকার নিয়ন্ত্রিত নিরাপত্তা বাহিনী। তবে নিমরোজ পুলিশের এক মুখপাত্র নাম প্রকাশ না করে রয়টার্সকে বলেন, সরকারি বাহিনীর কাছে প্রয়োজনীয়সংখ্যক সেনা না থাকায় শক্ত প্রতিরোধ গড়া সম্ভব হয়নি। এই সুযোগে তালিবান প্রাদেশিক রাজধানী জারাঞ্জ দখল করতে সক্ষম হয়েছে। আফগানিস্তান থেকে বিদেশি সৈন্য প্রত্যাহারের শুরুর পর থেকে তালিবান সেখানে বেশ দ্রুতগতিতে বিভিন্ন এলাকা দখল করতে শুরু করে। ইতোমধ্যে আফগানিস্তানের বিস্তীর্ণ গ্রামীন এলাকার দখল নেওয়া তালিবানের লক্ষ্য এখন বড় বড় শহর দখল করা। রয়টার্স শুক্রবার জানিয়েছে, আরও তিনটি প্রাদেশিক রাজধানী শহর তালিবানের দখলে যাওয়া শুধু সময়ের ব্যাপার। শহরগুলো হলো হেরাত প্রদেশে রাজধানী শহর হেরাত, জৌজান প্রদেশের রাজধানী শেবেরঘান ও হেলমান্দ প্রদেশের রাজধানী লস্কর গাহ। কান্দাহার প্রদেশের রাজধানী কান্দাহার দখলের জন্য তুমুল লড়াই চালাচ্ছে তালিবান। কান্দাহারসহ উল্লিখিত চার শহরের অংশে ঢুকে পড়েছে তালিবান। সরকারি বাহিনী কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোতে নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখতে মরিয়া লড়াই চালাচ্ছে। দেশটির প্রধান শহরগুলোর ভাগ্য নিয়ে ভীষণ উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। উভয়পক্ষ নিয়ন্ত্রণ নিজেদের দখলে নিতে মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে। তবে সরকারি সেনারা কতদিন নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখতে পারবে সেটাই বড় প্রশ্ন। স্থানীয়রাও বাড়িঘর ছেড়ে পালাচ্ছেন। বিবিসি বলছে, তালিবান মিলিশিয়ারা ইতোমধ্যে অর্ধেক আফগানিস্তান নিজেদের দখলে নিয়েছে। এর মধ্যে প্রতিবেশী দুই দেশ পাকিস্তান ও ইরানের সঙ্গে ‌‘বর্ডার ক্রসিং’ রয়েছে। তবে তালিবান অবশ্য দেশের ৯০ শতাংশ নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার দাবি করছে।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com