মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:৩১ অপরাহ্ন

বগুড়ার দুই হাসপাতালে এস আলম গ্রুপের ২০টি হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা প্রদান

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর বগুড়ার সরকারি দুই হাসপাতালে করোনা রোগীদের উচ্চমাত্রায় অক্সিজেন সরবরাহের জন্য অবশেষে ২০টি হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা প্রদান করেন এস আলম গ্রুপ। বেসরকারি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান এস আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান সাইফুল আলম এর পক্ষ থেকে শনিবার দুটি হাসপাতালে ১০টি করে হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা হস্তান্তর করা হয়।

বগুড়ার জেলা প্রশাসক জিয়াউল হক , সিভিল সার্জন ডাঃ গাউসুল আজীম চৌধুরী, শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ মহসিন এবং মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক এ টি এম নুরুজ্জামান এসব সামগ্রী গ্রহণ করেন।

মোহাম্মদ আলী হাসপাতাল চত্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে এই হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা হস্তান্তর করেন এস আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামের পক্ষে ইসলামী ব্যাংক ফাউন্ডেশনের হাসপাতাল পরিদর্শক মোহাম্মদ আকরাম হোসেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগ এর সাধারন সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু, স্বাচিপ সভাপতি ডাঃ সামির হোসেন মিশু, ইসলামী ব্যাংক বগুড়া জোনাল হেড আব্দুস সোবাহান, ফাষ্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক এর সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট সলিমুল্লাহ, বগুড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহমুদুল আলম নয়ন প্রমূখ।

মোহাম্মদ আলী হাসপাতাল এর আরএমও কাজল বলেন, গত বছর করোনার সংক্রমণ শুরুর পর থেকেই করোনা বিশেষায়িত হিসেবে পরিচালিত হয়ে আসছে হাসপাতালটি। করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য হাইফ্লো নেজাল ক্যানোলা একটি অতি জরুরী চিকিৎসা উপকরণ। কিন্তু এক বছরেও পর্যাপ্ত হাইফ্লো নেজাল ক্যানোলা বরাদ্দ মেলেনি। এখন পর্যন্ত এ হাসপাতালে মাত্র দুটি হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা চালু আছে। এই সত্য বিষটি স্বিকার করেছি এর ফলে আজ এতো গুলো ক্যানোলা পাওয়া গেল যা দিয়ে রোগীদের ভাল সেবা প্রদান করা যাবে।

শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপপরিচালক আবদুল ওয়াদুদ বলেন, এই হাসপাতালে হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা আছে ১২টি। এর মধ্যে একটি বিকল। বাকি ১১টি দিয়ে ১০০ রোগীকে সেবা দিতে হয়। নতুন করে ১০টি হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা পাওয়ায় করোনা রোগীদের আরও বেশি সেবা দেওয়া সম্ভব হবে।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com