বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:০৮ অপরাহ্ন

সৌদি আরবে আমূল পরিবর্তনের হাওয়া

যমুনা নিউজ বিডিঃ ধীরে ধীরে ওয়াহাবি মতবাদ থেকে সরে আসছে সৌদি আরব। কয়েক বছর ধরে নেয়া দেশটির নানা সংস্কারমূলক পদক্ষেপ দিচ্ছে তারই ইঙ্গিত।

মসজিদে মাইকের আওয়াজ কম রাখা, নারীদের একা থাকা ও গাড়ি চালানোর অনুমতি, ২৪ ঘণ্টা শপিং মল ও রেস্তোরাঁ খোলার রাখার মতো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে দেশটিতে, যা একসময় কল্পনাও করা যেত না।

কয়েক বছর ধরে সৌদি সরকার এমন কিছু সিদ্ধান্ত নিচ্ছে যাতে বিস্মিত সারাবিশ্ব। এক সময় কঠোর ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলার রীতির দেশটি এখন বিশ্বের অন্য দেশের সঙ্গে পাল্লা দিয়েই মন দিচ্ছে সামাজিক ও অর্থনৈতিক সংস্কারে। কয়েকদিন আগে সৌদি আরবের মসজিদগুলোয় মাইকের আওয়াজ কম রাখা সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। কর্তৃপক্ষ বলছে, মাইকের ভলিউমে উচ্চমাত্রার শব্দ তৈরি হয় যা শিশু ও বয়স্কদের জন্য ক্ষতিকর।

৯০ হাজারেরও বেশি মসজিদের দেশটির এমন সরকারি নির্দেশনার প্রতিবাদে অনলাইনে হ্যাশট্যাগ আন্দোলনও হয়। তবে এসব প্রতিবাদকে ছাপিয়ে প্রচলিত নিয়ম ভেঙে বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলার প্রত্যয়ে অনঢ় সৌদি সরকার। দেশটি এমন কিছু সংস্কার পদক্ষেপ নিয়েছে যা আগে চিন্তাও করা যেত না। কয়েক বছর আগেও দেশটিতে বেশ শক্তিশালী অবস্থানে ছিল ধর্মীয় পুলিশ। কিন্তু সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ক্ষমতায় আসার পর ক্রমশই দুর্বল হতে থাকে এই বাহিনীর।

নারীদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় নানামুখী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়াই ভ্রমণ, বিয়ে এবং তালাক দেওয়ার ক্ষমতা দিয়ে জারি করা হয়েছে আইন। এরআগে নারীদের গাড়ি চালানো ও সিনেমা হল স্থাপনের অনুমতি দেয়া হয়। এক সময় নামাজের সময় শপিং মল ও রেস্তোরাঁ বন্ধ রাখার রীতি ছিল সৌদি আরবে। তবে এখন ২৪ ঘণ্টাই খোলা রাখা হয়, এমনকি রেস্তুরাঁয় উচ্চ শব্দে গান বাজানোরও অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

এক সময় ইসলাম ব্যতীত অন্য ধর্মের আচার-অনুষ্ঠান পালন নিষিদ্ধ থাকা দেশটিতে এখন অন্য ধর্মাবলম্বীদের উপাসনালয় স্থাপনের অনুমতিও দেওয়া হচ্ছে- এক সময় যা ছিল কল্পনার বাইরে। পরিবর্তনের ছোয়া লেগেছে স্কুলের পাঠ্যবইতেও। অমুসিলমদের অবমাননা করা শব্দ তুলে দেওয়া হয়েছে। তবে মদ্যপান ও বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা বহাল রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com