বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১১:৫৭ পূর্বাহ্ন

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে বগুড়ায় সমাবেশ

ষ্টাফ িরপোর্টারঃ সাংবাদিক রোজিনার বিরুদ্ধে করা মামলা প্রত্যাহার, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও অফিসিয়াল সিক্রেসি এ্যাক্ট বাতিলের দাবিতে বগুড়ায় মানববন্ধন করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট।

সোমবার বেলা ১২ টার দিকে শহরের সাতমাথা এলাকায় এ কর্মসূচি পালন করা হয়। সমাবেশে বক্তারা বাংলাদেশের অফিসিয়াল পাসপোর্ট থেকে ‘ইসরাইল ছাড়া পৃথিবীর সকল দেশের জন্য প্রযোজ্য’ বাক্যটি পরিবর্তন করে ইসরাইল শব্দ বাদ দিয়ে ‘সকল দেশের জন্য প্রযোজ্য’ বাক্য প্রতিস্থাপন করার সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাম গণতান্ত্রিক জোট বগুড়ার সমন্বয়ক ও বাংলাদেশের কমিউনিষ্ট পার্টির (সিপিবি) জেলা কমিটির সভাপতি জিন্নাতুল ইসলাম। সমাবেশ সঞ্চালনা করেন গণতান্ত্রিক জোটের অন্যতম নেতা বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) জেলা কমিটির সদস্য সচিব সাইফুজ্জামান টুটুল। বক্তব্য রাখেন বাসদ’র জেলা কমিটির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম পল্টু, সিপিবি’র জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ফরিদ, গণসংহতি আন্দোলন জেলা সমন্বয়কারী আব্দুর রশীদ।

সভাপতির বক্তব্যে জিন্নাতুল ইসলাম বলেন, ‘ সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার করে প্রমাণ করেছে বর্তমান সরকার দুর্নীতিবাজদের রক্ষাকর্তা। বাক স্বাধীনতা, ব্যক্তি স্বাধীনতা, সংবাদ পত্রের স্বাধীনতায় চূড়ান্তভাবে আঘাত করছে সরকার। ১৯২৩ সালে ব্রিটিশ উপনিবেশিক আমলের আইন‘ অফিসিয়াল সিক্রেসি এ্যাক্ট’, যা স্বাধীন দেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৩২ ধারায় যুক্ত করা হয়েছে। যার অন্যায় প্রয়োগ করে সব ধরণের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করছে। সেই কুখ্যাত আইনেই রোজিনাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। স্বাধীনতা রক্ষায় অবিলম্বে সাংবাদিক রোজিনার মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, বাক-ব্যক্তি সংবাদপত্রের স্বাধীনতায় সরকারি হস্তক্ষেপ বন্ধ এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও অফিসিয়াল সিক্রেসি এ্যাক্ট বাতিল করা জরুরী।’

সাইফুল ইসলাম পল্টু বাংলাদেশের অফিসিয়াল পাসপোর্ট থেকে ‘ইসরাইল ছাড়া পৃথিবীর সকল দেশের জন্য প্রযোজ্য’ বাক্যটি পরিবর্তন করে ইসরাইল শব্দ বাদ দিয়ে ‘সকল দেশের জন্য প্রযোজ্য’ বাক্য প্রতিস্থাপন করার সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, ‘সভার প্রস্তাবে বলা হয়, ফিলিস্তিনিদের আবাসভূমি দখল করে ইসরাইল একটি জোর পূর্বক প্রতিষ্ঠিত রাষ্ট্র। যা মধ্যপ্রাচ্যসহ গোটা পৃথিবীতে মার্কিন মদদে সন্ত্রাসী কার্যক্রম পারিচালনা করে আসছে। ১৯৪৮ সাল থেকে আজ পর্যন্ত বহু ফিলিস্তিনি নারী-পুরুষ-শিশুকে হত্যা করেছে। গাজা ও পশ্চিম তীরের সামান্য ভূমি বাদে সমগ্র ফিলিস্তিন ভূমি দখল করেছে এবং প্রতিনিয়ত যুদ্ধ, হত্যা সংঘটিত করে চলেছে।

তিনি বলেন, ‘জাতিসংঘ দুই রাষ্ট্রনীতির মাধ্যমে সমাধানসূত্র খোজার চেষ্টা করেছিল। বাংলাদেশও সেই দুই রাষ্ট্র নীতিকে সমর্থন জানিয়েছে। কিন্তু গত দুই বছর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাদের দূতাবাস জেরুজালেমে স্থানান্তর করে জাতিসংঘের ঐ নীতিকে বাস্তবে প্রত্যাখ্যান করেছে। যুদ্ধবাজ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মদদে ইসরাইল আজ গোটা দুনিয়ায় যুদ্ধাস্ত্র সরবরাহ করছে। তাদের গোয়েন্দা ডিভাইস আজ বিভিন্ন দেশে গোয়েন্দারা ব্যবহার করছে। এদিকে মার্কিন-ভারত-ইসরাইলের মধ্যে সামরিক চুক্তি রয়েছে যা দক্ষিণ এশিয়ার জন্য হুমকীস্বরূপ। আর ভারত-মার্কিনকে খুশি করার জন্যই কী বাংলাদেশ পাসপোর্ট থেকে ইসরাইলের নাম প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা দেশবাসীর প্রশ্ন।’

যে সমস্ত আইন মানুষের বাক-স্বাধীনতা হরণ করছে, ব্যক্তি স্বাধীনতা হরণ করছে, সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতা হরণ করছে তা অবিলম্বে বাতিল করার দাবি জানানো হয় এই মানববন্ধন সমাবেশে।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com