সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:১৭ অপরাহ্ন

ভারতে এবার করোনা শনাক্ত ৮ সিংহ

যমুনা নিউজ বিডিঃ প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ ব্যাপক আকার ধারণ করেছে দক্ষিণ এশিয়ার ঘনবসতিপূর্ণ দেশ ভারতে। কোভিড-১৯ এর ছোবল থেকে রেহাই মিলছে না বন্য প্রাণীদেরও। প্রথমবারের মতো এবার দেশটিতে সিংহের শরীরেও করোনা সংক্রমণের খবর মিলেছে।

হায়দরাবাদের নেহরু জুলজিক্যাল পার্কের আটটি এশিয়াটিক সিংহের শরীরে কোভিড ধরা পড়েছে। সেন্টার ফর সেলুলার অ্যান্ড মলিকিউলার বায়োলজিতে তাদের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছিল। সেখানে সিংহগুলোর আরটি-পিসিআর টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

চিড়িয়াখানার কর্মকর্তা ড. সিদ্ধানন্দ কুকীর্তি অবশ্য আনুষ্ঠানিকভাবে বিষয়টি নিশ্চিত করেননি। তিনি বলেন, এটা সত্যি যে সিংহগুলোর মধ্যে কোভিড লক্ষণ দেখা গিয়েছিল। এখনো সিসিএমবি থেকে আরটি-পিসিআর রিপোর্ট হাতে আসেনি। আর তা এলেও ঘোষণা করা ঠিক নয়। সিংহগুলো ভালোই আছে।

ওয়াইল্ড লাইফ রিসার্চ অ্যান্ড ট্রেনিং সেন্টারের (ডব্লিউআরটিসি) ডিরেক্টর শিরিষ উপাধ্যায় জানিয়েছেন, এর আগে নিউইয়র্কের ব্রংস চিড়িয়াখানায় আটটি বাঘ, সিংহের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছিল। হংকংয়ে কুকুর, বিড়ালও আক্রান্ত হয়েছে।

জানা গেছে, আক্রান্ত সিংহদের খিদে চলে গিয়েছিল। নাক দিয়ে পানি গড়িয়ে পড়ছিল আর তারা কাশছিল। এই লক্ষণগুলো দেখেই এনজেপি চিড়িয়াখানার কর্তৃপক্ষ তাদের করোনা টেস্ট করার সিদ্ধান্ত নেয়।

প্রায় ৪০ একর এলাকাজুড়ে হায়দরাবাদের নেহেরু জিওলজিক্যাল পার্কের এই চিড়িয়াখানা অবস্থিত শহরের উপকণ্ঠে। পার্কের ১২টি সিংহের মধ্যে চারটি স্ত্রী এবং চারটি পুরুষ সিংহ করোনা সংক্রামিত হয়েছে।

চিকিৎসকরা সিংহগুলোর অরোফ্যারিনজিয়াল সোয়াবের নমুনা সংগ্রহ করে সিসিএমবিতে পাঠিয়েছে। সিসিএমবির বিজ্ঞানীরা জিনোম সিকোয়েন্সিং করে দেখবেন ভাইরাসের কোনো স্ট্রেন রয়েছে সিংহগুলোর শরীরে। স্বভাবতই এতে ধাক্কা খেয়েছে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ।

এমওইএফসিসির তরফে সারা ভারতে সব চিড়িয়াখানা, ন্যাশনাল পার্ক, স্যাংচুয়ারি, বাঘ সংরক্ষণ কেন্দ্রগুলো বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এনজেপি আপাতত দুই দিনের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে। সম্প্রতি সেখানে ২৫ জন কর্মচারীর করোনা ধরা পড়েছে।

এ দিকে কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ের বাড়বাড়ন্ত আটকাতে এরই মধ্যে রাজ্যের সমস্ত চিড়িয়াখানা, অভয়ারণ্য বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকার। রাজ্য বন দফতর সোমবার এই মর্মে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে।

বন দফতর সূত্রে জানা গেছে, রাজ্যের সব চিড়িয়াখানা, অভয়ারণ্য, পাখিরালয়, বাঘ প্রকল্প পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত বন্ধ রাখতে হবে। কয়েক দিন আগেই রাজ্য সরকার কোভিডের ঢেউ রুখতে বাজার, দোকানপাট এবং অন্যান্য অফিস-আদালত খোলার ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এবার সব ধরনের পর্যটন কেন্দ্র বন্ধের দিকে এগোলো রাজ্য সরকার। শুধু চিড়িয়াখানা বা অভয়ারণ্যই নয় বরং ইকো-ট্যুরিজম সেন্টারও বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

ভারতীয় বার্তা সংস্থা এএনআইয়ের টুইটার অ্যাকাউন্টে সিংহের করোনা শনাক্ত সংক্রান্ত টুইটে নিজেদের মতামত দিয়েছেন অনেকে ব্যবহারকারী। সরকার আরণ্য পার্থসারথি লিখেছেন, এটি গুরুতর উদ্বেগের বিষয়। সিংহদের আক্রান্ত হওয়ার মানে হলো আসন্ন দিনগুলোতে ভাইরাসটি যে কোনও প্রাণীকে ধরাশায়ী করে ফেলবে।

বিমল লখোটিয়া লিখেছেন, অভিনন্দন মানব জাতি। চিড়িয়াখানার ভিতরে বেশ ভালোভাবে বসে থাকা প্রাণীগুলোকেও আপনারা ছাড়েননি..

কার্তিক শর্মা লিখেছেন, এমনকি প্রাণীরাও এখন নিরাপদ নয়। পৃথিবী থেকে পুরো জীবজগৎকে নিশ্চিহ্ন করে দেওয়ার মিশনে নেমেছে কোভিড-১৯।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com