বুধবার, ০৪ অগাস্ট ২০২১, ০৪:১৮ অপরাহ্ন

বাংলাদেশের আরেকটি হার

যমুনা নিউজ বিডিঃ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ এক ম্যাচ বাকি থাকতেই হারলো বাংলাদেশ। মঙ্গলবার নেপিয়ারের ম্যাকলেন পার্কে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে বৃষ্টি আইনে বাংলাদেশ হেরেছে ২৮ রানে। প্রথম ম্যাচে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল হেরেছিল ৬৬ রানে। আগামী ১ এপ্রিল সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।

এদিন জয়ের জন্য ১৬ ওভারে বাংলাদেশকে করতে হতো ১৭০ রান। কিন্তু টাইগাররা ১৬ ওভারে ৭ উইকেটে ১৪২ রান করতে সক্ষম হয়। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫১ রান করেন সৌম্য সরকার। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৮ রান করেন নাঈম শেখ।

নিউজিল্যান্ডের বোলারদের মধ্যে টিম সাউদি ২টি, হামিশ বেনেট ২টি, অ্যাডাম মিলনে ২টি ও গ্লেন ফিলিপস ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

বৃষ্টির কারণে খেলা বন্ধ হওয়ায় ১৬ ওভারে বাংলাদেশের লক্ষ্য ১৪৮ রান। এই লক্ষ্য নিয়েই নেপিয়ারে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামেন দুই বাংলাদেশি ওপেনার লিটন দাস ও মোহাম্মদ নাঈম। জয়ের জন্য ওভারপ্রতি ৯.২৫ রান দরকার বাংলাদেশের। দুই ওপেনার শুরুটাও করেন এই রানরেট মাথায় রেখে। কিন্তু ইনিংসের ১.৩ ওভার পর দুই আম্পায়ার এসে খেলা বন্ধ করেন। প্রথমে যে লক্ষ্য দেওয়া হয়েছে, সেটা নাকি ভুল! তবে সেটি যা–ই হোক নেপিয়ারের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে শেষ পর্যন্ত ২৮ রানে হেরেছে বাংলাদেশ।

এমন সময় ম্যাচ রেফারি জেফ ক্রোর কক্ষ থেকে প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোকে বের হয়ে আসতে দেখা যায়। কাগজ-কলম হাতে তাঁর সঙ্গে বেরিয়ে আসেন ম্যাচ রেফারিকেও। থার্ড আম্পায়ারের কক্ষে এসে জেফ ক্রোকে আরও কিছুক্ষণ অঙ্ক কষতে দেখা যায়। এরপর নতুন লক্ষ্য ঘোষণা করা হয়। বাংলাদেশের জিততে দরকার ১৬ ওভারে ১৭০ রান!

এমন সময় ধারাভাষ্য কক্ষে ছিলেন নিউজিল্যান্ডের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান রস টেলর। তিনি বলছিলেন, ‘আমরা ক্রিকেটে অনেক কিছুই দেখি। কিন্তু অবশ্যই এমন কিছু কখনো দেখিনি।’ ঘরের বসে খেলা দেখছিলেন আরেক নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটার জিমি নিশাম। তিনিও সঠিক লক্ষ্য না জানিয়ে দুই দলকে খেলতে নামানোর সিদ্ধান্তে অবাক। টুইট করে তিনি লিখেছেন, ‘আপনি কীভাবে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করেন লক্ষ্য না জেনে? অদ্ভুত বিষয়!’

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নামে নিউজিল্যান্ড। কিউইদের ইনিংসে বৃষ্টির কারণে দুইবার খেলা বন্ধ হয়। প্রথমবার বন্ধ হয়েছিল ১২.২ ওভার পর। দ্বিতীয়বার বন্ধ হয় ১৭.৫ ওভার পর। দ্বিতীয়বার খেলা বন্ধ হওয়ার আগ পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ ছিল ১৭.৫ ওভারে ৫ উইকেটে ১৭৩ রান।

নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে গ্লেন ফিলিপস ৩১ বলে পাঁচটি চার ও দুইটি ছক্কার সাহায্যে ৫৮ রান করে অপরাজিত থাকেন। আর ড্যারিল মিচেল ১৬ বলে ৬টি চারের সাহায্যে ৩৪ রান করে অপরাজিত থাকেন।

বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে শেখ মেহেদী হাসান ২টি, তাসকিন আহমেদ ১টি, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ১টি ও শরিফুল ইসলাম ১টি করে উইকেট শিকার করেন। ম্যাচসেরা হন গ্লেন ফিলিপস।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ফল: বৃষ্টি আইনে ২৮ রানে জয়ী নিউজিল্যান্ড।

নিউজিল্যান্ড ইনিংস: ১৭৩/৫ (১৭.৫ ওভার)

(গাপটিল ২১, অ্যালেন ১৭, কনওয়ে ১৫, ইয়ং ১৪, ফিলিপস ৫৮*, চ্যাপম্যান ৭, মিচেল ৩৪*; নাসুম ০/২৫, সাইফউদ্দিন ১/৩৫, তাসকিন ১/৪৯, শরিফুল ১/১৬, শেখ মেহেদী ২/৪৫)।

বাংলাদেশ ইনিংস: ১৪২/৭ (১৬ ওভার)

(নাঈম ৩৮, লিটন ৬, সৌম্য ৫১, রিয়াদ ২১, আফিফ ২, মিথুন ১, শেখ মেহেদী ১২*, সাইফউদ্দিন ৩, তাসকিন ০*; সাউদি ২/২১, বেনেট ২/৩১, মিলনে ২/৩৪, সোধি ০/৩৪, ফিলিপস ১/২০)।

ম্যাচসেরা: গ্লেন ফিলিপস (নিউজিল্যান্ড)

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com