সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০৫:১১ অপরাহ্ন

তাড়াশে ইভটিজিংয়ের শিকার গৃহবধূর আত্মহননের চেষ্টা

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় ইভটিজিংয়ের শিকার হয়েছে এক গৃহবধূ আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। পরে মুমূর্ষু অবস্থায় স্বজনরা তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন।

স্বজনরা অভিযোগ করেন, প্রতিবেশী সুদের কারবারি সোহেল রানা প্রায়ই ওই গৃহবধূকে উত্ত্যক্ত করে। মানসম্মান বাঁচাতে একপর্যায়ে কিটনাশক খেয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নেন তিনি। গতকাল শুক্রবার দুপুরে উপজেলার বাঁশবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরিবারের সদস্যরা বিষয়টি টের পেয়ে ওই গৃহবধূকে সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করলে চিকিৎসক তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানান। তারাশ থানা সূত্র জানায়, এ ব্যাপারে এখনো কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গৃহবধূর স্বজনরা জানান, সংসারের প্রয়োজনে উপজেলার বাঁশবাড়িয়া গ্রামের ওই গৃহবধূর স্বামী একই গ্রামের সোহেল রানার কাছ থেকে চড়া সুদে টাকা ধার নেন। এরপর থেকে সোহেল ওই গৃহবধূর স্বামীর কাছে তাগাদা না দিয়ে বাড়িতে গিয়ে স্ত্রীর কাছে ওই টাকার জন্য তাগাদা দিতে থাকে। আসা-যাওয়ার মাঝে সোহেল ওই গৃহবধূকে কু-প্রস্তাব দিত। বিষয়টি জেনে সোহেলকে ওই বাড়িতে যেতে নিষেধ করেন গৃহবধূর স্বামী। এতে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উত্ত্যক্তের মাত্রা বাড়িয়ে দেয় সোহেল। একপর্যায়ে মানসম্মান বাঁচাতে ওই গৃহবধূ ট্যাবলেট খেয়ে শুক্রবার দুপুরে স্বামীর বাড়িতেই আত্মহননের চেষ্টা করেন। বিষয়টি টের পেয়ে তাকে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয় বলে জানান স্বজনরা।

আজ শনিবার দুপুরে সদর হাসপাতালের সহকারী রেজিস্ট্রার (মেডিসিন) ডা. মনির হোসেন জানান, গ্যাসের ট্যাবলেট খেয়ে অসুস্থ হয়ে শুক্রবার বিকেলে ওই রোগী হাসপাতালে আসেন। তাকে হাসপাতালের পঞ্চম তলার মেডিসিন ওয়ার্ডে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ভর্তি হ‌ওয়ার পর রোগীর অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল বর্তমানে অবস্থা কিছুটা উন্নতির দিকে।

তাড়াশ থানার ওসি মঞ্জুর রহমান বলেন, “আমি ঘটনাটি শুনেছি তবে বিষয়টি সর্ম্পকে কেউ এখনো অভিযোগ করেনি। ” পরিবারের স্বজনরা জানান, রোগীর অবস্থা একটু ভালো হলেই থানায় মামলা দায়ের করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media


© All rights reserved ©  jamunanewsbd.com