Home / সারাদেশ / হেডফোনের আগুনে মা’রা গেল অপূর্ব

হেডফোনের আগুনে মা’রা গেল অপূর্ব

যমুনা নিউজ বিডিঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে মোবাইল চার্জ দেওয়া অবস্থায় হেডফোন ব্যবহারের সময় বিদ্যুতায়িত হয়ে ঘরে আগুন লাগে। এতে কিশোর অপূর্ব মারাত্মকভাবে আহত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরণ করেছে। মঙ্গলবার (৯ জুন) সকাল ৯টায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের নিবির পরিচার্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃ;;ত্যুবরণ করেছে
বলে নিশ্চিত করেছে তার পরিবার। আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অপূর্বের মায়ের অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন তারা। আগুনে পুড়ে তিনদিন মৃ;;ত্যু যন্ত্রণা সহ্য করে অবশেষে মৃ;;ত্যুর কাছে হার মানে কিশোর অপূর্ব দাস।
জানা যায়, জয়রামপুর গ্রামের মিজানুর রহমানের ভাড়াটিয়া বানুরানী দাস ও তার ১৭ বছরের সন্তান অপূর্ব দাস গত ৭ জুন সকালে বিদ্যুতায়িত হয়ে শরীরে আগুন লেগে মারাত্মকভাবে আহত হয়। এ সময় অপূর্বদের রুম ভেতর থেকে দরজা বন্ধ ছিল।
বাড়িওয়ালা ও আশপাশের মানুষের চিৎকারে দরজা খুলেই অপূর্ব মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এ সময় তারা শরীরে হেডফোনের তার পেঁচানো ছিল। এমন সময় ঘরে ঢুকে তার মাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে দ্রুত ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায় এবং তার মা মৃ;;ত্যু যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে।
অপূর্বের মৃত্যুতে তার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সোনারগাঁ জি, আর স্কুল অ্যান্ড কলেজের সকল শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও পরিচালনা পর্ষদের সদস্যরা শোক জানিয়েছেন। প্রতিষ্ঠানের শিক্ষানুরাগী সদস্য আলহাজ্ব মনিরুরুজ্জামান জানান, অপূর্ব অত্যন্ত বিনয়ী ও মেধাবী ছাত্র ছিল। জন্মের পর থেকেই সে মায়ের কাছে বড় হয়েছে। মা ই তার বাবা-মা। বাবার আদর তার ভাগ্যে জোটেনি।
অপূর্বের মৃ;;ত্যুতে শোক ও তার মায়ের সুস্থতা  কামনা করেছেন, সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি গাজী মুজিবুর রহমান ও সোনারগাঁ থানা প্রেসক্লাবের সকল সদস্য। মোবাইল চার্জে দিয়ে কেউ হেড ফোন কানে লাগিয়ে ঘুমিয়ে না পড়ে এবং মোবাইল চার্জে দিয়ে কেউ যেন কোনভাবেই তা ব্যবহার না করে এ অনুরোধ জানিয়েছেন থানা প্রেসক্লাবের সাংবাদিকবৃন্দ।

Check Also

অবশেষে বরখাস্ত হলেন ময়দানহাটা ইউপি চেয়ারম্যান রুপম

শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়ার শিবগঞ্জে বিকাশ অ্যাকাউন্ট খুলতে জন প্রতি ২৮০ টাকা করে আদায়ের অভিযোগে …

%d bloggers like this:

Powered by themekiller.com