Home / সারাদেশ / বগুড়া / সারিয়াকান্দীতে নৌকার বিপক্ষে কাজ করতে বাধ্য করছে সাহাদারা মান্নান

সারিয়াকান্দীতে নৌকার বিপক্ষে কাজ করতে বাধ্য করছে সাহাদারা মান্নান

স্টাফ রিপোর্টারঃসারিয়াকান্দি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও স্থানীয় এমপি পতœী সাহাদারা মান্নান স্থানিয় প্রশাসনকে প্রভাবিত করে নৌকা মার্কার কর্মীদেরকে হয়রানি করার হুমকি দিচ্ছে। দলীয় সকল স্তরের নেতাকর্মীকে এমপি’র ক্ষমতার ভয় দেখিয়ে নৌকা মার্কার বিপক্ষে কাজ করতে বাধ্য করছে। কেউ তাদের কথা মানতে না চাইলে তাদেরকে প্রশাসনিক ভীতি ও দল থেকে বহিস্কারের হুমকি দিচ্ছে। এতে দলের কর্মীরা ভীত ও বিব্রত বোধ করছে এবং নৌকা মার্কার পক্ষে কাজ করার সাহস, মনোবল হারিয়ে ফেলছে বলে অভিযোগ করে সংবাদ সম্মেলন করেছেন সারিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থী অধ্যক্ষ মুহম্মদ মুনজিল আলী সরকার।শুক্রবার বিকেলে বগুড়া প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি এসব অভিযোগ করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ ফারাজি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি, জেলা পরিষদ সদস্য রেজাউল করিম মন্টু, সারিয়াকান্দি পৌর মেয়র আলমগীর শাহী সুমন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সারিয়াকান্দির সাবেক কমান্ডার আলী আজগর সহ নেতাকর্মী।সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ১৮ মার্চ অনুষ্ঠিতব্য উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী মনোনয়ন বোর্ড তথা জননেত্রী শেখ হাসিনা তাকে সারিয়াকান্দি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী মনোনিত করলেও বগুড়া- ১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নান ও তার পতœী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাহাদারা মান্নানের প্রত্যক্ষ বিরোধীতা ও নির্যাতনের স্বীকার হতে হচ্ছে। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে এমপি পতœী সাহাদারা মান্নানের একক নাম কেন্দ্রে প্রেরণ করা হয়। কিন্তু কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ড অতীত কার্যক্রম পর্যালোচনা করে মুনজিল সরকারকে দলীয় প্রার্থী মনোনীত করে। এতে এমপি মান্নান ও তার পতœী সাহাদারা মান্নান ক্ষিপ্ত হয়ে ২২/০২/২০১৯ তারিখে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় যুবলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুস ছালামকে তাদের মনোনিত প্রার্থী হিসাবে ঘোষণা দিয়ে মাইকে ঘোষণা করেন যে, মুনজিল সরকারকে শেখ হাসিনা মনোনয়ন দিয়েছে, দল দেয়নি, সারিয়াকান্দি আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী আব্দুস ছালাম। এমপি ঢাকায় চলে গেলেও সাহাদারা মান্নান এলাকায় থেকে তাদের প্রার্থী আব্দুস ছালামের পক্ষে প্রকাশ্যে নির্বাচনী প্রচারনা চালাতে থাকে। যা ইতিপূর্বে জেলা ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগকে লিখিত অভিযোগের মাধ্যমে অবহিত করা হয়। তিনি বলেন, ১২/০৩/২০১৯ তারিখে বগুড়া জেলার আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সারিয়াকান্দি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী মুনজিল আলী সরকারের পক্ষে নৌকা মার্কার পথসভায় দলের নেতা কর্মীকে স্পষ্টভাবে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার নির্দেশ দেয়। সাহাদানা মান্নান তার পরের দিন থেকে আরও জোরালো ভাবে আব্দুস ছালামের পক্ষে নির্বাচনী কাজ শুরু করে কালো টাকা ছড়ানো সহ এবং দলীয় নেতা কর্মীদেরকে কঠোর ভাবে নিদের্শ দেন ছালামের পক্ষে কাজ করতে হবে। তিনি জানান, শুক্রবার সকাল বেলায় গুজব শুনতে পান যে, কামালপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হেদায়েত কে অপহরণ করতে গিয়ে সারিয়াকান্দি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ ফারাজী, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র আলমগীর শাহী সুমন গ্রেফতার হয়েছে। অথচ হেদায়েত চেয়ারম্যান সকাল ৯ টা থেকে তার বাড়ীতে সাহাদারা মান্নানকে নিয়ে মিটিং করেছে। তিনি বলেন, আমি আতংকিত হচ্ছি এই কারণে যে, ঐ প্রভাবশালী মহল এরকম গুজব ছড়িয়ে সত্যি সত্যিই কাউকে গুম করে আমার এবং আমার কর্মীদের উপর দায় চাপিয়ে দিয়ে বিপদে ফেলতে পারে। এছাড়াও আমরা বিশ্বস্ত সুত্রে সংবাদ পাচ্ছি যে, জনাব সাহাদারা মান্নানের নেত্রীতে দোয়াত কলম মার্কার পক্ষে অন্তত ৩০/৩২টি কেন্দ্রের ভোট বল পূর্বক কেটে নিবে এবং সেই উদ্দেশ্যে উক্ত কেন্দ্র গুলোতে সাহাদারা মান্নানের অনুগত নেতাকর্মীরা সাধারণ ভোটারদেরকে ভোট কেন্দ্রে যেতে নিষেধ করে বিভিন্ন রকম হুমকি ও ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। কেউ ভোট কেন্দ্রে গেলে হাত-পা ভেঙ্গে দেওয়া হবে। এবারের ভোট আমরা আমাদের ইচ্ছা মাফিক করে নিব, তোমাদের কেন্দ্রে আসার কোন প্রয়োজন নেই। তিনি সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য প্রশাসন ও দলীয় নেতৃবৃন্দের সহযোগিতা কামনা করেন।

Check Also

শৈলকুপায় ভাইস চেয়ারম্যানের প্রার্থীর সমর্থকদের উপর হামলা, আহত ৭

যমুনা নিউজ বিডিঃ ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের উপর হামলার ঘটনা …

Powered by themekiller.com