Home / খেলাধুলা / সমান্তরালেই এগোচ্ছে কেইন আর ইংল্যান্ডের স্বপ্ন

সমান্তরালেই এগোচ্ছে কেইন আর ইংল্যান্ডের স্বপ্ন

যমুনা নিউজ বিডি ঃ ২০০৫। ডেভিড বেকহাম ফুটবল একাডেমির উদ্বোধন হবে লন্ডনের বাইয়ি হোয়ার্ফে। এ উপলক্ষে বেশ কিছু স্কুলের বাচ্চাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়। ১১ বছর বয়সী দুই অভিন্ন-হৃদয় বন্ধুও সেই সৌভাগ্যবানদের দলে। ছেলেটির মাথায় কদমছাঁট চুল, সামনের দাঁত দুটো একটু উঁচু; মেয়েটির মাথায় দুই পাশে বেণি ঝোলানো। ইংল্যান্ডের ফুটবল অধিনায়কের সঙ্গে ছবি তুলতে পেরে কী খুশি ওই দুজনের!

২০১৮। ১৩ বছর পরের সময়টায় কত কিছুই না বদলে গেছে! শৈশবের প্রেমের পরিণতিতে ওই ছেলে-মেয়ে দুটি এখন পরস্পরের জীবনসঙ্গী। তাঁদের প্রথম সন্তান আইভি এসেছে পৃথিবীতে, দ্বিতীয়জনও আসার পথে। আর বদলে যাওয়া পৃথিবীতে সেই ছেলেটি এই বিশ্বকাপে বেকহামের উত্তরসূরি হয়ে ইংল্যান্ডের অধিনায়ক। হ্যারি কেইন।

আর শুধু অধিনায়কই নন, ইংল্যান্ডকে ২৮ বছর পর বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে তোলার নায়ক। ৫২ বছর পর দেশের বিশ্বকাপের স্বপ্ন সমর্পিত এই স্ট্রাইকারের ওপর। ছয় গোল করে নিজেও রয়েছেন সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার ‘গোল্ডেন বুট’ জেতার কক্ষপথে। আজ ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে সেমিফাইনালের গুরুত্ব তাই কেইনের কাছে অন্য রকম না হয়ে পারে না!

বিশ্বকাপ ফুটবল এলেই শোরগোল ওঠে ইংল্যান্ডকে নিয়ে। গণমাধ্যমের সৌজন্যে তাদের সব প্রজন্মই ‘সোনালি প্রজন্ম’। সাফল্যের খাতাটি যদিও শূন্য বরাবর। ১৯৬৬ সালের বিশ্বকাপ বাদে আর কোনো শিরোপাই যে কখনো জেতেনি! না বিশ্বকাপ, না ইউরো। সেই ইংল্যান্ডকে নিয়ে এবারই বরং প্রত্যাশা ছিল না সেভাবে। সে দেশের গণমাধ্যমের মুখরোচক শিরোনাম মুখরিত ছিল না এই দলের শিরোপা জয়ের সম্ভাবনা নিয়ে। অথচ প্রত্যাশার উজান বেয়ে সেই ইংল্যান্ডই কিনা উঠে এসেছে সেমিফাইনালে। আর তা অবশ্যই কেইনের বীরত্বে।

ইংল্যান্ডের অধিনায়ক কিন্তু তিনি ছিলেন না। জর্ডান হেন্ডারসনের কাছে ছিল আর্মব্যান্ড। বিশ্বকাপ শুরুর ঠিক আগে আগে কোচ গ্যারেথ সাউথগেট দায়িত্বটা দেন কেইনের কাছে। সে দায়িত্ব পেয়ে কেমনভাবেই না ঝলসে উঠলেন এই স্ট্রাইকার! এরই মধ্যে চার খেলায় করে ফেলেছেন ছয় গোল! ১৯৮৬-র গ্যারি লিনেকারের পর প্রথম ইংরেজ হিসেবে ‘গোল্ডেন বুট’ জয়ের জোর দাবিদার কেইন। আর ১৯৬৬-র পর প্রথমবারের মতো ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্নপালেও লেগেছে হাওয়া।

ইংল্যান্ডের এবারের বিশ্বকাপ অভিযান শুরু তিউনিসিয়ার বিপক্ষে ২-১ গোলের জয়ে। দুটি গোলই কেইনের; এর মধ্যে শেষটি নির্ধারিত ৯০ মিনিট পেরিয়ে যাওয়ার পর ইনজুরি সময়ে। পরের খেলায় পানামাকে ৬-১ গোলে উড়িয়ে দেওয়া জয়ে হ্যাটট্রিক এই ফরোয়ার্ডের। দুটি গোলের উৎস যদিও পেনাল্টি; কিন্তু চলতি বিশ্বকাপেই লিওনেল মেসি, ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোদের পেনাল্টি মিসের ইতিহাস মাথায় রাখলে এ কৃতিত্ব কম নয়। দ্বিতীয় রাউন্ডে নিশ্চিত হয়ে যাওয়ায় বেলজিয়ামের বিপক্ষে শেষ ম্যাচে প্রথম একাদশের প্রায় সবাইকে বিশ্রাম দেন কোচ সাউথগেট। কেইনও খেলেননি সে ম্যাচ।

ফিরলেন কলম্বিয়ার বিপক্ষে; প্রত্যাবর্তনটা গোলেই। আরেকটি পেনাল্টি থেকে। ১২০ মিনিট ১-১ সমতায় শেষ হওয়ার পর খেলা টাইব্রেকারে গড়ালে সেখানেও ১২ গজ দূর থেকে লক্ষ্যভেদ করেন অনায়াসে। সে ম্যাচের জয়ে ইংল্যান্ড উঠে যায় কোয়ার্টার ফাইনালে। সুইডেনের বিপক্ষে ২-০ গোলের জয়েই শুধু গোলহীন ছিলেন কেইন। আজ ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে দ্বৈরথে যা তাঁর ক্ষুধা বাড়িয়ে দেবে নিশ্চিতভাবে।

ফুটবলের বাইরে পুরোপুরি পারিবারিক এক মানুষ কেইন। মা-বাবা দুজনই ফুটবলের পাগলপারা সমর্থক; ইংলিশ ক্লাব টটেনহাম হটস্পারের প্রবল ভক্ত। ওই ক্লাবের সদ্য পুরনো মাঠ হোয়াইট হার্ট লেন থেকে মাত্র পাঁচ মাইল দূরে জন্ম কেইনের। খেলায়াড়ি সত্তা পেয়েছেন নানার কাছ থেকে। মজা করে এক সাক্ষাত্কারে বলেছিলেন তা, ‘বাড়িতে বাবা এ আলোচনাটা পছন্দ করেন না। তবে আমার ফুটবলীয় সত্তা নানা এরিকের কাছ থেকে পাওয়া। বেশ ভালো ফুটবলার ছিলেন তিনি।’ বড় ভাই চার্লস তাঁর হরিহর আত্মা। মা কেট তো বলেনই, ‘চার্লস ও হ্যারিকে মনে হয় অভিন্ন সত্তার দুজন; যাদের চার পায়ে ভাগ করে দেওয়া হয়েছে বলে আলাদা হাঁটে।’ আর শৈশবের বান্ধবী কেটি গুডল্যান্ডের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধার কথা তো বলা হয়েছে আগেই। কেইন নিজেও বলেন, ‘আমরা একসঙ্গে স্কুলে গিয়েছি। ও আমার পুরো ক্যারিয়ারই দেখেছে। এখন আমি ফুটবলার হওয়ার পর ব্যাপারটা ওর কাছে কিছুটা পাগলাটে ঠেকে।’

ছোটবেলায় আর্সেনাল একাডেমিতে ভর্তি হয়েছিলেন প্রথম। এক বছর পর বাদ দেওয়া হয় ‘যথেষ্ট ভালো নন’ বলে। সেই কেইন এখন টটেনহাম হটস্পারের কিংবদন্তি। বেকহামের জার্সি পরা ছেলেটি চলতি বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের অধিনায়ক। আগের প্রজন্মে দেশটির সেরা স্ট্রাইকার ওয়েইন রুনি তিন বিশ্বকাপ খেলে দেন এক গোল; সেখানে এক বিশ্বকাপের চার ম্যাচেই ছয় গোল হয়ে গেছে কেইনের। তাঁর আদুরে নাম ‘হারি কেন’-এর গতিতেই লণ্ডভণ্ড করে দিচ্ছেন প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগ। কেইনের গোল্ডেন বুট এবং দেশের বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন এগোচ্ছে একই সমান্তরালে।

আজ ক্রোয়েশিয়া কি আর পারবে সে পথে বাধার প্রাচীর তুলতে!

Check Also

দেশ্যম কী এমন জাদু করলেন ফরাসি ফুটবলে

যমুনা নিউজ বিডি ঃ দুবছর আগে ঘরের মাঠে ফ্রান্সের কাছ থেকে পর্তুগাল ছিনিয়ে নিয়েছিল ইউরো …

Powered by themekiller.com