Home / রুপচর্চা / লিপস্টিক ব্যবহারে এক্সপার্টের টিপস

লিপস্টিক ব্যবহারে এক্সপার্টের টিপস

যমুনা নিউজ বিডি :  ঠোঁট রাঙিয়ে নিতে লিপস্টিকই ভরসা। মেকআপ হোক বা নাই হোক, লিপস্টিক না হলেই নয়। এটা চটজলদি নেয়া যায়। কেবলমাত্র লিপস্টিকের ব্যবহারেই যেন সাজগোজের অর্ধেকের বেশিটা সেরে ফেলা সম্ভব। তাই যেনতেনভাবে লিপস্টিক নেয়া ঠিক  না। অনেকে সঠিক পদ্ধতিতে নিতেও পারেন না। আবার লিপস্টিক নেয়ার পর হয়তো তা বেশিক্ষণ টেকে না। এ ধরনের নানা সমস্যায় এক্সপার্টের পরামর্শ প্রয়োজন বৈকি। এখানে বিউটি এক্সপার্টরা সঠিক পদ্ধতিতে লিপস্টিক ব্যবহার এবং তাকে দীর্ঘস্থায়ী করার টিপস দিচ্ছেন।

জেনে রাখুন… 
১. আপনার ত্বকের রংয়ের সঙ্গে মানানসই লিপস্টিক বেছে নেয়া উচিত। অর্থাৎ, লিপস্টিকের রংটা যেন আপনার ত্বকের সঙ্গে দৃষ্টিকটু না হয়। সৌন্দর্য বৃদ্ধির উদ্দেশ্যেই লিপস্টিক নেয়া হয়। কাজেই বুঝে শুনে লিপস্টিকের রং বাছাই করুন। কেনার আগে বিভিন্ন রংয়ের লিপস্টিকের টেস্টার হাতে লাগিয়ে দেখুন। ধারণা মিলবে কোনটা আপনাকে সবচেয়ে বেশি আকর্ষণীয় করে তুলবে।

২. যদি মেকআপ করেন সেক্ষেত্রে একই সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। অবশ্য এখানে কিছু সুবিধা মিলবে। মেকআপ অনুযায়ী আপনি লিপস্টিক বাছাইয়ে কিছুটা বাড়তি সুযোগ পাবেন। কারণ মেকআপ দিয়ে ত্বকের রং অনেকটাই বদলে ফেলা সম্ভব। মেকআপের আগে যে লিপস্টিকটা বেমানান, পরে ওটাও মানিয়ে যেতে পারে।

৩. অনেকের ঠোঁটে মৃত ত্বক থাকে। এর ওপর কখনোই লিপস্টিক দেবেন না। বাড়তি ত্বক উঠে থাকলে কিংবা ঠোঁটফাটা থাকলে লিপস্টিক ঠিকমতো বসবে না। এ কারণে শীতের মৌসুমে লিপস্টিক ব্যবহার একটু অসুবিধার হয়ে ওঠে। তাই নিয়মিত ঠোঁটের স্বাস্থ্যের যত্ন নিতে হবে। ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে পারেন।

৪. লিপস্টিক, নেইল পলিশ বা কাজল ব্যবহারের ক্ষেত্রে ট্রেন্ড চলে। হয়তো বিশেষ একটা রংয়ের লিপস্টিক অনেক জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। মনে রাখতে হবে, এসব হালফ্যাশন যে আপনাকে মানিয়ে যাবে এমন কোনো কথা নেই। তাই কোন রংয়ের লিপস্টিক মানায় তা পরখ করে ঠিক করে নিন।

৫. যদি চোখে কাজল বা মাস্কারা ব্যবহার করেন তবে লিপস্টিকের রং যেন মানিয়ে যায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

৬. লিপস্টিক লাগানোর আগে লিপ লাইন করে নেয়া বুদ্ধিমানের কাজ। বিশেষ করে নিজে দিলে এ কৌশল খুবই কাজের হয়ে ওঠে। এক্ষেত্রে লিপস্টিক নিখুঁতভাবে লাগানো সম্ভব হয়।

৭. এটা লাগানো শুরু করতে হবে ঠোঁটের মাঝে থেকে। ঠোঁটের ওপরে মাঝ বরাবর যে ‘ভি’ আকৃতি অংশ থাকে সেখান থেকে লিপ লাইনার এবং লিপস্টিক দুটোই শুরু করবেন।

৮. আর অবশ্যই লিপস্টিক সময়মতো যত্নের সাথে তুলে ফেলতে হবে। বাইরে থেকে বাড়ি ফিরে যেমন মুখ ধুয়ে ফেলেন, তেমনই ঠোঁটেরও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা দরকার আছে।

দীর্ঘস্থায়ী করতে…
প্রথমেই বলা হয়েছে টেস্টার হাতে লাগিয়ে রং বাছাই করবেন। আবার সেখানেই পরখ করা সম্ভব কোন লিপস্টিক কতটা বেশি সময় ঠোঁটে থাকতে পারে। টিস্যু দিয়ে হাতে লাগানো লিপস্টিক মুছে ফেলার সময় খেয়াল করুন কোনটা কত দ্রুত মুছে যাচ্ছে। ক্রিম বা তৈলাক্ত লিপস্টিক বেশি সময় একইভাবে থাকে না। এগুলো দ্রুত উঠে যেতে চায়। এক্ষেত্রে লিকুইড বা ম্যাট লিপস্টিক বেছে নিতে বলেন এক্সপার্টরা।

যদি ক্রিম বা তৈলাক্ত লিপস্টিক ব্যবহার করেই থাকেন তবে তাকে দীর্ঘ সময় রাখতে পাউডারের সহায়তা নিতে পারেন। প্রথমে লিপস্টিক ঠোঁটে লাগিয়ে নিন। একটু সময় বিরতিতে আরেক পরত লিপস্টিক লাগাতে হবে। এরপর টিস্যুতে সামান্য পাউডার নিয়ে ঠোঁটে হালকাভাবে ছড়িয়ে দিন।

ম্যাট লিপস্টিক শুষ্ক ঠোঁটে লাগিয়ে সুবিধা করতে পারবেন না। বরং দেখতে খারাপ লাগবে। মৃত ত্বক থাকলে স্ক্র্যাব করে তুলে ফেলতে হবে। তারপর লিপবামের সহায়তা নিন। কিছুক্ষণ পর ঠোঁট ম্যাট লিপস্টিক ব্যবহারে উপযুক্ত হয়ে উঠবে। তবে ম্যাট লিপস্টিক ঠোঁটকে আরো শুষ্ক করে দিতে পারে। তাই লিপবাম ব্যবহারে মিলবে উপকার।
সূত্র: কসমোপলিটন

Check Also

রঙিন চুল রঙিনই থাকুক

যমুনা নিউজ বিডি:   হারায় রাতারাতি পরিবর্তন আনতে পারে চুলের পরিবর্তিত রূপ। নতুন কাটের পাশাপাশি চুলে …

Powered by themekiller.com