Breaking News
Home / ইতিহাস ও ঐতিহ্য / মৌলভীবাজারে ৬৫টি চা বাগানে শ্রমিকদের গণছুটি

মৌলভীবাজারে ৬৫টি চা বাগানে শ্রমিকদের গণছুটি

যমুনা নিউজ বিডি ঃ মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল ও কমলগঞ্জ উপজেলায় চা বাগানের শ্রমিকরা গতকাল সোমবার (৭ জানুয়ারি) গণছুটি কর্মসূচি পালন করেছেন। এ সময় চা-শিল্পাঞ্চলের বালিশিরা ভ্যালির অন্তত ৬৫টি চা বাগানের প্রায় ২৩ হাজার শ্রমিক কাজে যোগ দেয়নি। মালিকপক্ষ চুক্তির বরখেলাপ করায় শ্রমিকরা এই কর্মসূচি পালন করেন বলে জানা গেছে।

শ্রমিকরা জানান, গত ৩০ ডিসেম্বর (রবিবার) জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দিন চা বাগানের সাপ্তাহিক ছুটি ছিল। চা-শিল্পাঞ্চলে সাপ্তাহিক ছুটি রবিবার। তাই চা-শিল্পাঞ্চলের শ্রমিকদের সরকারের এই বিশেষ ছুটি পাওনা থাকে। চুক্তি অনুযায়ী মালিকপক্ষ পরদিন সোমবার শ্রমিকদের ওই বিশেষ ছুটি দেওয়া কথা। কিন্তু ফিনলে চা কম্পানিসহ আরো কয়েকটি চা বাগান কর্তৃপক্ষ সোমবার ছুটি মঞ্জুর করেনি।

চা শ্রমিক নেতা পরাগ বারই বলেন, গত ৫০ বছরে চা বাগানে এমন হয়নি। ভোটের আগের দিন (২৯ ডিসেম্বর) কয়েকটি চা বাগান কর্তৃপক্ষ চিঠি দিয়ে শ্রমিকদের সোমবার ছুটি দেওয়া হবে না বলে জানায়। এতে বাগানের শ্রমিকদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়।

বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রামভজন কৈরী বলেন, সরকারের কোনো বিশেষ ছুটি যদি চা বাগানের সাপ্তাহিক ছুটির দিনে হয় তবে পরের দিন চা বাগানের শ্রমিকরা ছুটি ভোগ করে। চুক্তি অনুযায়ী চা বাগান কর্তৃপক্ষ এই ছুটি দিতে বাধ্য। কিন্তু ফিনলে চা বাগান কর্তৃপক্ষসহ আরো কয়েকটি চা বাগানে এবারই প্রথম চিঠি দিয়ে ওই ছুটি বাতিল করে। এতে চা শ্রমিকদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দেয়। এই ক্ষোভের বহির্প্রকাশ থেকে সাধারণ শ্রমিকরা গণছুটি কর্মসূচি পালন করে। কর্মসূচির অংশ হিসেবে বালিশিরা ভ্যালির ৬৫টি চা বাগানের প্রায় ২৩ হাজার শ্রমিক কাজে যোগ দেয়নি।

শ্রমিকদের গণছুটি সম্পর্কে ফিনলে চা কম্পানির কোনো দায়িত্বশীল কর্মকর্তা কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

Check Also

দূর্গম পাহাড়ে স্বেচ্ছাশ্রমে নির্মিত হলো ১০ কি:মি: রাস্তা

আলমগীর মানিক,রাঙামাটি থেকে: সরকারী উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর দৃষ্টির বাইরে থাকা দুর্গমাঞ্চলের ১০ গ্রামের বাসিন্দারা …

Powered by themekiller.com